রুদ্রর কবিতা উচ্চারণ থেকে কথনে
রুদ্রর বহির্মুখী চেতনারাশির ওপর তার ভাবকল্প ও সংরাগবহুলতার তোড় আছড়ে পড়েছে। ফলে প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘উপদ্রুত উপকূল’ (১৯৭৯) এই তোড়ে ভেসে গিয়ে শব্দগুণসম্পন্ন কবিতাকাশে মুখনিঃসৃত উচ্চারণকেই বেশি চারিয়ে দিয়েছে। আর তাতে ধ্বনিময়তা প্রবল হয়েছে, আঁকড়ে রয়েছে অন্যাসক্ত অলঙ্কারের বিস্তারিত

রুদ্রর কবিতা উচ্চারণ থেকে কথনে
রুদ্রর বহির্মুখী চেতনারাশির ওপর তার ভাবকল্প ও সংরাগবহুলতার তোড় আছড়ে
বিস্তারিত
আলো জেলে রাখি কবিতার খাতায়
কী নীরব রাত! একা একা বসে লিখছি। লেখার মাঝে দুঃখগুলো
বিস্তারিত
কতিপয় বিচ্ছিন্ন মুহূর্তের টীকা
  ১. নিরন্তর শুষ্কতার বশে আমি এক মরুকাঠ; অথচ ঠান্ডাজলপূর্ণ কিছু
বিস্তারিত
রৈখিক রক্তে হিজলফুল
বৃষ্টি হৃদয় উঠোন ভিজিয়ে যায় বিপ্রতীপ বিভাবন আঁধারের ক্লান্তিলগ্নে চোখের
বিস্তারিত
অপারগতা
না তুষার ঝড় না মাইনাস ফোর্টি শীতের রাত তো, বুড়োটা কিছুক্ষণ
বিস্তারিত
যন্ত্রণার দীর্ঘশ্বাস
  অলীক স্বপ্ন, অসীম দহন, সমুখের হিসাব নিকাশ প্রদীপের শিখা ছিল
বিস্তারিত
শীতের কদর
শীতের দেশে থাকতে থাকতে বরফ হয়েছি আমি শুষ্ক বোধ আর রুক্ষ
বিস্তারিত
একান্ত প্রার্থনা এই শীতে
শীতের দংশনে চাই ভালোবাসা শর্তহীন ওম এ জগতে প্রকৃতই যা কিনা
বিস্তারিত
রাষ্ট্র
শীতকালেই বিয়ে, উৎসবÑ এগুলো বেশি হয়। আমরা ভারী গাউন গায়ে
বিস্তারিত
বিরহের বেলাভূমি
বিরহের বেলাভূমি যদি ভেঙে দেয় প্রেমের জোয়ার আমি না হয় নোনা
বিস্তারিত
দাঁত ব্রাশ
সকালটা আজ দাঁত ব্রাশ করেনিÑ ধানখালি মাঠ  নালা ঝোপঝাড় গুঁড়ি গুঁড়ি
বিস্তারিত
নামহীন সুগন্ধি নকশি আঁকি খাতায়
বারান্দায় টাঙানো কৃত্রিম ফুলদানিতে গুল্মলতা বেড়ে ওঠে  বেড়ে ওঠে রাতের জ্যোৎস্না
বিস্তারিত
ওমের চাদরে জড়ানো শীত
শরীর তোমাকে বলিÑ ঘুমপাড়ানি মাসি গীত ভালোবেসে রাত্রির মেঘদরজায় কড়া নাড়া
বিস্তারিত