কোটিপতি কৃষক!

সরকারি চাকরির বেশিরভাগ মানুষের কাছে সোনার হরিণ। এই সোনার হরিণের পেছেনে দৌঁড়াতে দৌঁড়াতে দিশেহার অনেকে। অথচ সেই সেই সরকারি চাকরিকে বিদায় জানিয়েছিলেন জয়সালমিরের হরিশ ধনদেব।
টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, কৃষি পরিবারের সন্তান হরিশ একবার ভারতের দিল্লিতে কৃষি এক্সপো দেখতে গিয়েছিলেন। সেখানেই গিয়েই মত পরিবর্তন হয় তার। সিদ্ধান্ত নেন আর সরকারি চাকরি করবেন না। বরং সময় দেবেন কৃষি কাজে। ভারতের রাজস্থানের জয়সালমির থেকে ৪৫ কিলোমিটার দূরে ধাইসর-এ ১২০ একর জায়গা জুড়ে রয়েছে তার ক্ষেত। সেখানেই তিনি শুরু করেন অ্যালোভেরা এবং অন্যান্য শস্যের চাষ। তৈরি করেন তার নিজস্ব সংস্থা ন্যাচুরেলো অ্যাগ্রো। তারপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। এখন বছরে তার সংস্থার টার্নওভার দেড় থেকে ২ কোটি টাকা। থর মরূভূমির অ্যালোভেরা চলে যায় পতঞ্জলি ফুড প্রডাক্টস লিমিটেড-এর কারখানায়। তাই দিয়েই তৈরি হয় অ্যালোভেরা জুস।
মরুভূমি অঞ্চলের অ্যালোভেরার গুণগতমান এতটাই ভালো যে বিদেশেও এর চাহিদা তুঙ্গে। জয়সালমিরের মিউনিসিপাল কাউন্সিলের জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ারের পদে ইস্তফা দেওয়ার সময় যে সামান্য দ্বিধা ছিল, এখন তার আর কোনও জায়গা নেই হরিশের জীবনে। এক বছরের মধ্যেই সাফল্যের মুখ দেখেছেন তিনি। তার ক্ষেতের অ্যালোভেরা চাহিদা রয়েছে ব্রাজিল, হংকং এবং আমেরিকাতেও। শুরুতে ৮০ হাজার অ্যালোভেরার চারা লাগিয়েছিলেন তিনি। এখন তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে সাত লাখে।

 


এক ছোবলে ৮৬০ ভোল্ট কারেন্ট,
একদিকে ধ্বংসের আর্তনাদ, অন্যদিকে নতুন প্রজাতির খোঁজ। আমাজনের পরতে পরতে
বিস্তারিত
কুকুর-মুরগীরসহ এক মোটরসাইকেলে ৭ জন!
সাধারণত একটি মোটরসাইকেলে দুই থেকে তিনজন চড়তে পারেন। তবে একটি
বিস্তারিত
জন্মের পর ডেলিভারি রুমেই দাঁড়িয়ে
ইন্টারনেটের সৌজন্যে একটা অবিশ্বাস্য ও অদ্ভুত ঘটনার সাক্ষী হলো গোটা
বিস্তারিত
প্রেমে ব্যর্থ হয়ে কুকুরকে বিয়ে
ডেটিংয়ে ব্যর্থ হয়েছেন ২২১ বার! আবার বিয়েও ভেঙেছে চার বার।
বিস্তারিত
দুটি কলা ৪৪২ টাকায় বিক্রি,
মাত্র এক জোড়া কলার দাম ৪৪২টাকা! শুনলেই চক্ষু চড়ক গাছ।
বিস্তারিত
পেটের ভেতরে এত কিছু! হতভম্ব
পেটে অসহ্য ব্যথা। সন্দেহ হওয়ায় এক্স-রে করে দেখতে বলেন চিকিত্সক।
বিস্তারিত