ভাঙল রিও’র মিলনমেলা

হাসি-কান্না ও সাফল্য-ব্যর্থতার ১৭ দিনের উৎসবমুখর রিও অলিম্পিক শেষে নিখাদ ব্রাজিলিয়ান ঐতিহ্যে নেচে-গেয়ে মারাকানা স্টেডিয়ামে সোমবার উদযাপিত হলো স্পোর্টসের সার্বজনীন বন্ধুত্ব, ভ্রাতৃত্ব ও একতার  জয়গান সমাপনী অনুষ্ঠানে বিদায়ের সুর বাজতে দেয়নি ব্রাজিল। দেয়নি মন খারাপ করে দেয়ার মতো কোনো বার্তাও। বরং নাচে-গানে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মতো রঙ ছড়িয়ে ২০১৬ সালের রিও অলিম্পিকের ইতি টানল আয়োজক ব্রাজিল। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মতো বিদায়বেলায়ও নিজেদের সবচেয়ে বড় ঐতিহ্য সাম্বা নৃত্যের ঝলক দিয়ে জাপানে ২০২০ সালের টোকিও অলিম্পিককে স্বাগত জানানো হলো। অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মধ্যেই একটা অংশ ছিল আগামী অলিম্পিকের স্বাগতিক জাপানের জন্য। জাপানের পক্ষ থেকে অলিম্পিক আয়োজক কমিটি সংক্ষিপ্ত প্রদর্শনীর মাধ্যমে বিশ্বকে জানিয়ে দিল ২০২০ সালের জন্য তারা কী প্রস্তুতি রেখেছে। এরপরই আনুষ্ঠানিকভাবে অলিম্পিক পতাকা তুলে দেয়া হয় জাপান অলিম্পিক কর্তৃপক্ষের হাতে।
রিও’তে অলিম্পিকের ৩১তম আসরে মোট পদক সংখ্যা ছিল ৩০৬টি। অংশ নেয় রেকর্ড ২০৯টি দেশ। এর মধ্যে প্রথমবারের মতো অংশ নিয়েছে কসোভো ও দক্ষিণ সুদান। এছাড়া ৩১তম আসরে রেকর্ডসংখ্যক ইভেন্টও রাখা হয়। অলিম্পিক ইতিহাসে ১১২ বছর পর গলফের পাশাপাশি রাগবি সেভেন প্রতিযোগিতাও অন্তর্ভুক্ত করা হয় রিও অলিম্পিকে। এছাড়া প্রথমবারের মতো অলিম্পিকে শরণার্থী দলের অংশগ্রহণ আলাদা মুহূর্ত ছিল ব্রাজিল অলিম্পিকের জন্য। সব মিলিয়ে মোট ১১ হাজার প্রতিযোগী পদকের লড়াইয়ে নামে রিও’তে। মূল ভেন্যু মারাকানা স্টেডিয়ামসহ ব্রাজিলের মোট ৩৩ ভেন্যুতে আয়োজিত হয় অলিম্পিকের বিভিন্ন ইভেন্টের খেলা। মোট ২০৯ দেশের মধ্যে ১২০টি দেশ পুরোপুরি পদকহীন থেকে অলিম্পিক আসর শেষ করেছে। পদক জয়ের তালিকায় নাম লিখিয়েছে মোট ৮৯টি দেশ। আর স্বর্ণপদক জয়ের কৃতিত্ব দেখিয়েছে মোট ৬০টি দেশ। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ৪৬টি স্বর্ণপদক জিতেছে যুক্তরাষ্ট্র। গেল পাঁচ আসর ধরে পদক তালিকায় শ্রেষ্ঠত্ব দেখানোর গৌরব ধরে রাখল দেশটি। ৪৬টি স্বর্ণের পাশাপাশি ৩৭টি রৌপ্য ও ৩৮টি ব্রোঞ্জপদক জিতে মোট ১২১টি পদক জিতেছে তারা। কাকতালীয় ব্যাপার হলোÑ ২০১২ সালের লন্ডন অলিম্পিকেও ঠিক ৪৬টি স্বর্ণপদক জিতেছিল যুক্তরাষ্ট্র। দ্বিতীয় স্থানে ৬৭ পদকজয়ী গ্রেট ব্রিটেন। তাদের স্বর্ণপদক সংখ্যা ২৭টি। গেল অলিম্পিকে তালিকার তিনে ছিল ব্রিটেন। এবার তারা উঠে এসেছে দ্বিতীয় স্থানে। গতবার দুইয়ে থাকা চীন এবার নেমে গেছে তিনে। ৭০টি পদকের মধ্যে তাদের স্বর্ণপদক ২৬টি। গেলবার তালিকার চারে থাকা রাশিয়ার ডোপ ক্যালেঙ্কারির অভিযোগে অনেক অ্যাথলেট নিষিদ্ধ হলেও স্থান দরে রেখেছে ৫৬টি মধ্যে ১৯টি স্বর্ণপদক জিতে। এশিয়ার মধ্যে গতবার পাঁচে থাকা দক্ষিণ কোরিয়া ২১টি পদক নিয়ে নেমে গেছে আটে। আর এশিয়ার মধ্যে ৪১টি পদক নিয়ে শীর্ষে (ছয়) উঠে এসেছে জাপান। রিও অলিম্পিকের সবচেয়ে বড় আকর্ষণ বা হাইলাইট হয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের সাঁতারু মাইকেল ফেলপস ও জ্যামাইকা স্প্রিন্টার উসাইন বোল্ট। নিজেদের পারফরম্যান্সের দ্যুতি ছড়িয়ে আসরটিকে রাঙিয়ে গেলেন এ দুই অ্যাথলেট। দুইজনই নিজেদের শেষ অলিম্পিকে খেলতে এসে জেতেন রেকর্ডসংখ্যক স্বর্ণপদক। ফেলপস সাঁতারের ছয়টি ইভেন্টের মধ্যে পাঁচটিতেই স্বর্ণপদক জিতেছেন। তাতে সর্বকালের সেরা সাঁতারু হয়েছেন রেকর্ড ২৩টি স্বর্ণপদক জিতে। এদিকে বোল্ট নিজেকে বিশ্বের দ্রুততম মানব হিসেবে আবারও প্রমাণ দিয়েছেন স্প্রিন্টের সবগুলো (তিনটি) ইভেন্টের স্বর্ণপদক জিতে। 


বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রকাশিত
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রকাশিত
বিস্তারিত
কৃষকের হাসি
দীর্ঘদিন ধরে মাচায় পটোল চাষ হচ্ছে। এতে ফলন হয় ভালো।
বিস্তারিত
জাতিসংঘের সঙ্গে জন্মগত সম্পর্ক বাংলাদেশের
জাতিসংঘের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক জন্মগত। অর্থাৎ বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর
বিস্তারিত
বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির কাছে অনুসন্ধান কমিটির
রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদের কাছে সোমবার বঙ্গভবনে সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের
বিস্তারিত
বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাতে অংশ
বঙ্গভবনে দরবার হলে রোববার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাতে
বিস্তারিত
প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার কার্যালয়ে বুধবার জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত
বিস্তারিত