নিঃসঙ্গের ছদ্মবেশে

মানুষের ছদ্মবেশে থাকি, আদতে রাক্ষস! একদিন রাক্ষসপুরীতে ছিলাম। কিন্তু
রাক্ষসদের সঙ্গে আমার বনিবনা হতো না। সবসময় খিটিমিটি লেগে থাকত। ভালোবেসে যে রাক্ষুসী
আমার পাশে ছায়াচ্ছন্ন দাঁড়িয়েছিল, এক সন্ধ্যার অজান্তে তাকে অন্য রাক্ষসেরা ভক্ষণ করে ফেলেছিল।
মনের দুঃখে, স্বপক্ষত্যাগী আমি মানুষের ছদ্মবেশে মানবসমাজে চলে এসেছি। আমিও কবিতা লিখি...এই
হচ্ছে মানুষের মধ্যে থেকেও আমার নিঃসঙ্গতার সংগোপন ইতিহাস। এই হচ্ছে মানুষের সমাবেশে থেকেও
আমার মানুষ হতে না পারার ইহলৌকিক যন্ত্রণা। কারণ, সৌন্দর্যলুব্ধক এক মোমের মানবীকে
ভালোবাসতে গিয়ে সম্পূর্ণ ভুলে গিয়েছিলাম যে, আমি গোত্রান্তরিত রাক্ষস। স্বগোত্রে আমার জন্য এক
রাক্ষুসী আত্মাহুতি দিয়েছিল। আর এদিকে আমি মোমের মানবীতে হাত ধরে আবেগে-আবেগেÑ যেই
বলেছি, রাক্ষুসী, প্রিয়ে, তোমাকেই আজ ভালোবাসি, তুমি আমার পাশে দাঁড়াও; কিন্তু সে ভয় পেয়ে
ছিটকে পালায়, আর রাক্ষসের ভয়ে মানবীরা চিরকাল ভীত বলে আমি নিঃসঙ্গ হয়ে যাই, যথাক্রমশ
নিঃসঙ্গ হয়ে উঠি। নিঃসঙ্গতা এমন একটি উদাহরণ, যে-কেউ গ্রহণে অনিচ্ছুক... হায় রে এমন নিঃসঙ্গ
থাকি সকাল থেকেই একটা শালিক কার্নিশে ভিজছে স্থিরচিত্রে, নিঃসঙ্গের ছদ্মবেশে আমি এখন ওই ভেজা
শালিক পাখি শালিকের ছদ্মবেশে কবিতা লিখি!


আল মাহমুদ
আল মাহমুদের কবিতা বাংলাদেশের পরবর্তী প্রজন্মের অনেক কবিকেই প্রভাবিত করেছিল।
বিস্তারিত
বিম্বিত বিরহ পদাবলি
এখানে, এখন যেটাকে বাইপাস সড়ক বলেনÑ  ঠিক এখানেই রোপণ করেছিলাম যৌথ
বিস্তারিত
একটি বাহারি স্বপ্নের স্রষ্টা
খ্যাতির চাষাবাদে প্রলুব্ধ ফুটন্ত লাল গোলাপ অথচÑ একটি বাহারি স্বপ্নের সৃষ্টিতে
বিস্তারিত
সুবর্ণ পাতা
কাঙাল খোঁজে সুবর্ণ পাতা স্বভাব যেখানে ময়লার স্থায়ী আসন গেড়েছে পুরোটাই
বিস্তারিত
জলের আগুন থেকে
জলের আগুন থেকে তুলে নিয়ে তারার প্রকার সাজিয়ে আরেক ভেলা খুঁজেছি
বিস্তারিত
গ্রন্থমেলার নতুন বই
আলোঘর : আদিম লতাগুল্মময়। লেখক শঙ্খ ঘোষ। প্রচ্ছদ শতাব্দী জাহিদ।
বিস্তারিত