গুটিবসন্তের কথা আমরা জানি। এ ক্ষেত্রে উইলিয়াম হার্বাট ফেগির নাম খুবই উল্লেখযোগ্য। তিনি বিশ্বব্যাপী আলোচিত মহামারী রোগ বিশেষজ্ঞ। সময়টা ১৯৭০-এর দশক, যখন পৃথিবী থেকে গুটিবসন্ত তাড়ানোর কৌশল আবিষ্কার করেন তিনি। সম্প্রতি ইমোরি বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৭১তম সমাবর্তনে ভা

জীবনের পরিকল্পনা থেকে দূরে থাক- উইলিয়াম হার্বাট ফেগি

যখন আমি তোমাদের বয়সী ছিলাম তখন সবাই আমাকে আমার জীবনের পরিকল্পনা কী এ প্রশ্ন করত। এ ব্যাপারে আমার পরামর্শ হলো, ‘জীবনের পরিকল্পনা’ করা থেকে দূরে থাক। ভবিষ্যতে তুমি কী আবিষ্কার করবে এটা বর্তমানে দাঁড়িয়ে কল্পনাও করতে পারবে না! তুমি এটাও কল্পনা করতে পারবে না যে, তুমি আগামী পৃথিবীকে কী সুবিধা দিতে যাচ্ছ। তুমি এমন একটি নিয়ত পরিবর্তনশীল পৃথিবীতে প্রবেশ করতে যাচ্ছ, যেখানে সম্ভাবনা অসীম, ধারণাগুলো বিভ্রান্তিকর। তাই জীবনের পরিকল্পনা তোমার ভবিষ্যৎকে ‘সংকুচিত’ করে দিতে পারে। জীবনের পরিকল্পনার পরিবর্তে তুমি বরং তোমার জীবন দর্শন উন্নত করার ব্যাপারে সময় ব্যয় কর। প্রত্যেক পথের শাখাপথকে মূল্যায়ন করার যন্ত্র তোমার হাতে আছে। সুতরাং চিন্তা কর, তোমার জন্য আসলে কোন পথটি গুরুত্বপূর্ণ। ‘প্রথা’গুলো আমাদের বিশ্বাসের ‘ডিএনএ’তে পরিণত হয়েছে। এটা একদিনে হয়নি, আমাদের দীর্ঘদিনের ভুল চর্চার মধ্য দিয়ে এমনটি হয়েছে। আমরা এ প্রথাগুলোকে প্রশ্ন করতে শিখিনি, এর পরিবর্তে আমরা ‘দাসত্ব’ মেনে নিই। এখনই আমাদের ভিন্ন দিকে দৃষ্টি ফেরানো দরকার। প্রতিশ্রুতিতে, জটিলতায় এবং উপভোগ করার বিভিন্ন পন্থায় পৃথিবী সম্প্রসারিত হচ্ছে। এ মুহূর্তে পৃথিবীর সব সমস্যা একত্রিত হলেও আমি বলব, বাঁচার জন্য এবং উপভোগ করার জন্য এর চেয়ে ভালো সময় আর হতে পারে না। প্রযুক্তির ক্ষিপ্রতা তোমার দিনের ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা বাঁচিয়ে দিয়েছে। এ ‘ইমোরি’তে তুমি শেষ বছরে এমন অনেক কিছু শিখেছ, যা এরিস্টেটল তার সারা জীবনের চেষ্টায়ও শিখতে পারেননি। সুতরাং সম্প্রসারিত পৃথিবীতে তোমার দৃষ্টিকেও সম্প্রসারিত করতে হবে। মানুষের সংকটের বিভিন্ন সূক্ষ্ম দিক নিয়েও তোমাকে কাজ করতে হবে। ‘আমরা সভ্য’ এটা ভাবতে আমাদের ভালো লাগে। এ সভ্যতা আমরা যা যা দেখে পরিমাপ করি তা হলো বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, স্বাস্থ্য, প্রজ্ঞা, সুখ ইত্যাদি। এগুলোর একটি ছাড়া আরেকটি মূল্যহীন। কিন্তু সভ্যতার আসলে কোনো বিশেষ নিয়ামক নেই, এটি (সভ্যতা) হলো আমরা একজন আরেকজনের সঙ্গে কী আচরণ করছি। সুতরাং পরস্পরের প্রতি দয়া বা উদারতাই সভ্যতার আসল মাপকাঠি। আমার এক বন্ধুর অনুরোধে আমি প্রেসিডেন্ট কার্টারকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম, বাইবেলের মধ্যে আপনার সবচেয়ে পছন্দের বাক্য কোনটি? কার্টার জোর দিয়ে বলেছিলেন, ‘তোমরা একে অপরের প্রতি দয়াশীল হও’ এই বাক্য। প্লেটো বলেছিলেন, ‘মানবিক হও, কারণ তুমি প্রত্যেককেই পাবে যুদ্ধরত।’ এ মানবিক হওয়াটাই সভ্যতার চূড়ান্ত মাপকাঠি।  সভ্যতার মাপকাঠি হলো একজন সভ্য মানুষ, একটি সভ্য বিশ্ববিদ্যালয়, একজন সভ্য রাজনীতিক, একটি সভ্য রাষ্ট্র সর্বোপরি একটি সভ্য পৃথিবী। সম্প্রতি ‘ইবোলা’ নিয়ে খুব কথা হচ্ছে। এ নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সমালোচিত হয়েছে তার নিম্নমানের প্রতিক্রিয়ার জন্য। আমি বলতে চাই, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আরও গুরুত্ব দিয়ে ‘ইবোলা’ নামক মরণব্যাধি নিয়ে ভাববে এটাই হোক সভ্যতার মাপকাঠি। ‘কীভাবে তুমি তোমার প্রতিবেশীর সঙ্গে আচরণ করবে’ এটাই হলো রোগ-শোকে ব্যাপ্ত পৃথিবীর আরোগ্যের শক্তি। কথায় আছে, আরোগ্যই হলো পৃথিবীর সত্যিকারের ধর্ম। ইথিওপিয়ান ডাক্তার আব্রাহাম ভার্গিজ তার বিখ্যাত উপন্যাস ‘কাটিং ফর স্টোন’-এ একটি অবিস্মরণীয় লাইন লিখেছেন। চাইলে তোমরা এ লাইনকে তোমাদের জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে নিতে পার। লাইনটি হলো, ‘বাড়ি সেটা নয় যেখান থেকে তুমি এসেছ, বাড়ি হলো সেটা, যেখানে তুমি প্রয়োজনীয়।’ তোমাদের সবাইকে অভিনন্দন। আশাকরি, তোমরা সবাই এমন একটি পথ খুঁজে নেবে, যেখান থেকে প্রতিবেশীর জন্য ‘কিছু একটা’ করা যায়। 


আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণ পেলেন ৯০ প্রাণী
পোলট্র্রির বিজ্ঞানসম্মত স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা, সঠিকভাবে রোগবালাই নির্ণয়, চিকিৎসা এবং রোগ
বিস্তারিত
সবার উপরে বাবা-মা
যে-কোনো মানুষের গায়ে হাত তোলাই অপরাধ। আর সন্তান হয়ে বাবা-মায়ের
বিস্তারিত
স্মৃতির মানসপটে যুক্তরাজ্য সফর
বিদেশে যাওয়ার অভিজ্ঞতা হয়তো অনেকেরই হয়ে থাকে। তবে কলেজের প্রতিনিধি,
বিস্তারিত
ব্যবসার ধারণা : গড়তে চাইলে
নিজের পায়ে দাঁড়াতে হলে আপনাকে উদ্যোগী হতে হবে। আর উদ্যোক্তা
বিস্তারিত
৭৫ শতাংশ বৃত্তিতে আইটি ও
বিভিন্ন কারণে যারা আইটিতে দক্ষতা উন্নয়নের সুযোগ থেকে বঞ্চিত তাদের
বিস্তারিত
লক্ষ্য যখন কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার বিপরীতে ক্রমাগত উর্বরা জমির পরিমাণ কমছে। জনসংখ্যার এ
বিস্তারিত