দাও ফিরিয়ে ছেলেবেলা

পুব আকাশে সূর্য যখন মনটা খুলে হাসে
পাতায় পাতায় সুর তুলে যে স্বপ্ন গাঙে ভাসে।
শিশিরকণা ঘাসের ডগায় বুঁদ হয়ে রয় যেই
আলতো রোদে গা এলিয়ে যাচ্ছে অজান্তেই।

শীতসকালে পাখির গানে মন কি যে উৎফুল্ল
ঠিক তখনই সকাল হলো খুশির দুয়ার খুলল।
পাখির গানে পড়াশোনা বাইরে পালায় তখন
এমন সকাল আমার প্রিয় ভীষণ রকম আপন।
ঘাসের গায়ে রোদের নাচন লুকোচুরি খেলা
এমন সকাল যায় যে পাওয়া রোদ পোহানো বেলা।
ভোরের আলোয় চোখ রাখি যেই ঘুম জড়ানো চোখে
গাঙশালিকের ঝাঁকের ভেতর ছুটলে কে আর রোখে।
এমন মজার দিনটা খুঁজি আর আসে না ফিরে
কত্তোরকম খেলা হতো সকালটাকে ঘিরে।

এই শহরের জানলাগুলো বন্দি পাখির খাঁচা
চারদেয়ালে যায় কি বলো স্বাধীন মতো বাঁচা।
ব্যস্ত থাকি ল্যাপটপ আর মোবাইল ফোনের ডাকে
তবুুও মন সুযোগ পেলে স্মৃতির ছবি আঁকে।
মনকে বলি দাও ফিরিয়ে স্মৃতির ছেলেবেলা
যে বেলাটা ছোট্ট খোকার ইচ্ছেমতো খেলা।

 


বন্ধু
আবুল বলল, ‘আমাগো ভুল বুইঝ না ভাই। আমরা আসলে...’, ‘তোরা
বিস্তারিত
হেমন্ত দিন
হেমন্ত দিন হরেক রঙিন হরেক রঙের খেলা বনে বনে ফুল-পাখিদের
বিস্তারিত
এলিয়েন এসেছিল
হামীম বসা থেকে দাঁড়িয়ে পড়ল। বললÑ কে তুমি? -হ্যাঁ আমি
বিস্তারিত
হেমন্ত এসেছে
মাঠে মাঠে সোনা ধানে প্রাণটা ফিরে পেল সেদ্ধ চালের গন্ধ
বিস্তারিত
বাংলা মায়ের সবুজ প্রাণ
ইস্টি কুটুম মিষ্টি পাখির দুষ্ট ছানা আকাশ নীলে মেলছে খুশির নরম
বিস্তারিত
হেমন্তের নেমন্ত
ধানের ছড়ায় ঝুলছে সোনা আসলো ঋতু হেমন্ত শিশির কণা চিঠি
বিস্তারিত