দাও ফিরিয়ে ছেলেবেলা

পুব আকাশে সূর্য যখন মনটা খুলে হাসে
পাতায় পাতায় সুর তুলে যে স্বপ্ন গাঙে ভাসে।
শিশিরকণা ঘাসের ডগায় বুঁদ হয়ে রয় যেই
আলতো রোদে গা এলিয়ে যাচ্ছে অজান্তেই।

শীতসকালে পাখির গানে মন কি যে উৎফুল্ল
ঠিক তখনই সকাল হলো খুশির দুয়ার খুলল।
পাখির গানে পড়াশোনা বাইরে পালায় তখন
এমন সকাল আমার প্রিয় ভীষণ রকম আপন।
ঘাসের গায়ে রোদের নাচন লুকোচুরি খেলা
এমন সকাল যায় যে পাওয়া রোদ পোহানো বেলা।
ভোরের আলোয় চোখ রাখি যেই ঘুম জড়ানো চোখে
গাঙশালিকের ঝাঁকের ভেতর ছুটলে কে আর রোখে।
এমন মজার দিনটা খুঁজি আর আসে না ফিরে
কত্তোরকম খেলা হতো সকালটাকে ঘিরে।

এই শহরের জানলাগুলো বন্দি পাখির খাঁচা
চারদেয়ালে যায় কি বলো স্বাধীন মতো বাঁচা।
ব্যস্ত থাকি ল্যাপটপ আর মোবাইল ফোনের ডাকে
তবুুও মন সুযোগ পেলে স্মৃতির ছবি আঁকে।
মনকে বলি দাও ফিরিয়ে স্মৃতির ছেলেবেলা
যে বেলাটা ছোট্ট খোকার ইচ্ছেমতো খেলা।

 


শিশু বাথাইন্নাদের অন্যরকম জীবন
চারপাশে নদী। মাঝখানে জেগে ওঠা বিশাল চর। এর নাম-দমারচর। বঙ্গোপসাগরের
বিস্তারিত
অগ্নিশিখা
অগ্নিশিখা  মালেক মাহমুদ    অগ্নিশিখায় কুঁকড়ে গেছি  আছি মরার মতো  আগুন! আগুন! জ্বলছে আগুন আগুন জ্বলে
বিস্তারিত
বাংলা শকুনের গল্প
শুধু বাংলা শকুন নয়, এক সময় বাংলাদেশে সাত প্রজাতির শকুন
বিস্তারিত
বৈশাখ এলো
  বৈশাখ এলো বৈশাখ এলো গ্রীষ্মদুপুর কালো মেঘে ঘাপটি মেরে ঢেকে
বিস্তারিত
চৈতালী হাওয়া
চৈতালী হাওয়ায় গ্রীষ্ম কাটে গ্রীষ্ম যেনো কষ্টের, চৈত্রের দাহন অভিশাপের
বিস্তারিত
বকের বিড়ম্বনা
সবাই মিলে বকের বিরুদ্ধে বিচার নিয়ে গেল হুতুম প্যাঁচার কাছে।
বিস্তারিত