দাও ফিরিয়ে ছেলেবেলা

পুব আকাশে সূর্য যখন মনটা খুলে হাসে
পাতায় পাতায় সুর তুলে যে স্বপ্ন গাঙে ভাসে।
শিশিরকণা ঘাসের ডগায় বুঁদ হয়ে রয় যেই
আলতো রোদে গা এলিয়ে যাচ্ছে অজান্তেই।

শীতসকালে পাখির গানে মন কি যে উৎফুল্ল
ঠিক তখনই সকাল হলো খুশির দুয়ার খুলল।
পাখির গানে পড়াশোনা বাইরে পালায় তখন
এমন সকাল আমার প্রিয় ভীষণ রকম আপন।
ঘাসের গায়ে রোদের নাচন লুকোচুরি খেলা
এমন সকাল যায় যে পাওয়া রোদ পোহানো বেলা।
ভোরের আলোয় চোখ রাখি যেই ঘুম জড়ানো চোখে
গাঙশালিকের ঝাঁকের ভেতর ছুটলে কে আর রোখে।
এমন মজার দিনটা খুঁজি আর আসে না ফিরে
কত্তোরকম খেলা হতো সকালটাকে ঘিরে।

এই শহরের জানলাগুলো বন্দি পাখির খাঁচা
চারদেয়ালে যায় কি বলো স্বাধীন মতো বাঁচা।
ব্যস্ত থাকি ল্যাপটপ আর মোবাইল ফোনের ডাকে
তবুুও মন সুযোগ পেলে স্মৃতির ছবি আঁকে।
মনকে বলি দাও ফিরিয়ে স্মৃতির ছেলেবেলা
যে বেলাটা ছোট্ট খোকার ইচ্ছেমতো খেলা।

 


ভাইয়ের ভালোবাসা
রুহানকে ভাইয়ের ভালোবাসা বোঝানোর জন্যই মামার এই কৌশল। এ কথা
বিস্তারিত
শরৎ সাজ
শরৎ সাজ পাই খুঁজে আজ শিউলি ফোটা ভোরে পল্লী গাঁয়ের মাঠে
বিস্তারিত
মশারাজ্যে
প্যাঁপো লাফাতে লাফাতে বলল, ‘আমি আগেই সন্দেহ করেছিলাম, আপনি বিদেশি
বিস্তারিত
আবার শরৎ এলো
নদীর ধারে শাদা ফুলের দোলা,
বিস্তারিত
জাতীয় কবি
ছোট্টবেলায় বাবা মারা যান অসহায় হন ‘দুখু’ সংসারে তার হাল ধরা
বিস্তারিত
বিদ্রোহী নজরুল
চুরুলিয়ার সেই ছেলে তুমি  কবিতার নজরুল, রণাঙ্গনের বীর সৈনিক প্রাণেরই বুলবুল। কেঁদেছো তুমি দুখীর
বিস্তারিত