মুছে যাবে যাবতীয় কাতর সময়

তোমার কাতর দৃষ্টিতে আমিও কাতর হয়ে
মেঘের ডানা ঝাপটে বৃষ্টি হয়ে ঝরে পড়ি
অশ্রু হয়ে গলে পড়ে হৃদয় আমার
যেনো শাখাচ্যুত থোকা থোকা শুভ্র বকুল।

বেদনার আরশিতে ছায়া পড়ে নীরব-নিথর
যেনো মৃত্যুর হিমশীতল আহ্বানে
বধির আকাশ কালো ব্যাজ ছড়িয়ে দেয়
গোধূলিবেলায় সমগ্র পৃথিবীজুড়ে।

এখন মরণের চিহ্নের ভরপুর জনপদ-প্রান্তর
এখন ভয়ের ডানায় ভর করে সন্ধ্যা নামে,
রাত্রিগুলো কবরের অন্ধকারে গলা বাড়ায়
আর আমি অনুমোদিত কাতরতা নিয়ে অপেক্ষায় থাকি।

আমার অপেক্ষাগুলো সকালের প্রত্যাশায় থাকে
একদিন গোলাপের মতো চমৎকার সকাল-ফুটে
আলোকিত করবে আমার অদৃষ্ট সংসার।
এবং মুছে যাবে তোমার যাবতীয় কাতর সময়।

 


প্রসন্ন সাঁঝের পাখি ও ভয়াল
পাটাতনে বসে আহত পালাসি-গাঙচিল বিস্ফারিত নয়নে আমাদের দেখছে। ধীরে ধীরে
বিস্তারিত
জল : ০১
কাজল কাননে পায়ের আলোতে রবির ঘুম ভাঙে রোজ যাপিত সংসার সুখ-দুখে
বিস্তারিত
মাঝ রাতে মির্জা গালিবের শের
আরেক বার দেখা হলে অশুদ্ধ কিছু হবে না মহাভারত, চাই
বিস্তারিত
১৪ বছর বয়সি
রেখা এখন ক্লাস টেন, ক্লাস সিক্স থেকে শুরু হওয়া অপেক্ষা
বিস্তারিত
তুমি যদি এসে
এইসব শিশির ভেজা ফসলের মাঠ নতুন ভোরের সোনালি রোদ্দুর  কৃষকের হাসিমাখা
বিস্তারিত
দেহের নিমন্ত্রণে
কেউ ডাকে দেহের নিমন্ত্রণে কেউ প্রেমেরÑ সঙ্গোপনে কেউবা নিছক খেয়ালের বশে
বিস্তারিত