গ্রন্থের ভবিষ্যৎ

অন্য খবর

গ্রন্থ নিয়ে বিচিত্র ভাবনাচিন্তা! কোথাও বইকে আক্ষরিক অর্থে ছাইয়ে পরিণত করে সাজিয়ে রাখা আশ্চর্য সুন্দর আধার বা পাত্রে, কোথাও আবার শতবর্ষ পরের এক গ্রন্থ-সংকলনের পরিকল্পনা চলছে এখন থেকেই, ভবিষ্যতের পাঠকের জন্য।
ইতালীয় শিল্পী আন্তোনিও রিয়েল্লো এক অভিনব শিল্পপ্রদর্শনীতে তার প্রিয় কয়েকটি বই পুড়িয়ে ছাইগুলো ভরে রেখেছিলেন কাচের ‘আর্ন’ বা ভস্মাধারে, বইগুলোকে মুহূর্তে এক পবিত্র অথচ অপাঠ্য, অস্পৃশ্য বস্তুতে পরিণত করে! প্রদর্শনীর নাম ‘অ্যাশেজ টু অ্যাশেজ’।
অন্যদিকে কেটি প্যাটারসন নামের আরেক শিল্পী গড়ে তুলেছেন ‘ফিউচার লাইব্রেরি’। স্বনাম খ্যাত সাহিত্যিকদের কাছ থেকে তিনি চেয়ে নিচ্ছেন অপ্রকাশিত পা-ুলিপি, সেগুলো সযতেœ রাখা থাকবে একটি গ্রন্থাগারে এবং প্রকাশিত হবে ২১১৪ সালে। অসলোর নর্ডমারকা জঙ্গলে কেটি ২০১৪ সালে এক হাজার গাছ রোপণ করেছিলেন, সেই গাছ থেকে নির্মিত পৃষ্ঠাতেই ১০০ বছর পর ছাপা হবে বই। এখন পর্যন্ত পা-ুলিপি জমা দিয়েছেন মার্গারেট অ্যাটউড, ডেভিড মিচেল এবং আইসল্যান্ডের বিখ্যাত সাহিত্যিক শন।


সাহিত্যের বর্ণিল উৎসব
প্রথম দিন দুপুরে বাংলা একাডেমির লনে অনুষ্ঠিত হয় মিতালি বোসের
বিস্তারিত
নিদারুণ বাস্তবতার চিত্র মান্টোর মতো সাবলীলভাবে
এ উৎসবের অন্যতম আকর্ষণ ছিল ভারতের প্রখ্যাত পরিচালক নন্দিতা দাস
বিস্তারিত
পাখি শিকারিদের পা
অর্ধমৃত চোখটি পাহারা দিতে দিতে ক্লান্ত হয়ে পড়ছে অন্য চোখ।
বিস্তারিত
এমনই নিশ্চিহ্ন হবে একদিন
এমনই নিশ্চিহ্ন হবে সব চিহ্ন একদিন মুছে যাবে অক্ষত ক্ষতচিহ্ন, ছোপ
বিস্তারিত
পদ্মপ্রয়াণ
বিগত পুকুর ভরাট করে সূর্যমুখীর চাষ করেছি  সেদিন জলের টান ছিঁড়ে
বিস্তারিত
মেঘ যেখানে ছুঁয়ে যায়
অপরূপ প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য উপভোগ করতে চাইলে সাজেক ভ্যালিতে দু-এক
বিস্তারিত