অন্য খবর

পত্রিকার পাতায় প্রত্যাখ্যাতদের নোবেল জয়

শুরুর দিকে বিজ্ঞান সাময়িকী, জার্নাল, দৈনিক পত্রিকা বা বিশেষ ম্যাগাজিনে প্রকাশের অযোগ্য বলে ছুড়ে ফেলা হয়েছিল। পরবর্তী সময়ে সেগুলোই আবার জিতে নেয় নোবেল। এমনই কয়েকটি ঘটনাÑ 

মার্কিন প্রাণরসায়নবিদ পল বয়ার আবিষ্কার করলেন, প্রাণী উদ্ভিদ এবং ব্যাক্টেরিয়ার ভেতর অসাধারণ আণবিক যন্ত্র কাজ করে (এটিপি সিন্থেস মেশিন), যার মাধ্যমে শক্তি উৎপাদিত হয় এবং সঞ্চিত হয়। এটিই জীবনকে সম্ভব করে তোলে। সে সময়ে ‘দ্য জার্নাল অব বায়োলজিক্যাল কেমেস্ট্রি’ পত্রিকাটি গবেষণার প্রতি সন্দেহ প্রকাশ করে ছাপতে রাজি হয়নি। রসায়ন শাস্ত্রে ১৯৯৭ সালে ঠিকই পুরস্কার জিতে নিল এ গবেষণা।
উচ্চক্ষমতার পারমাণবিক চৌম্বকীয় অনুরণন (এনএমআর) বর্ণালিবীক্ষণ যন্ত্রের উন্নয়ন সাধনের জন্য রসায়ন শাস্ত্রে নোবেলে (১৯৯১) ভূষিত হন রিচার্ড আর্নেস্ট। অথচ এ গবেষণাপত্রটি দুই দুইবার প্রত্যাখ্যাত হয় প্রকাশের জন্য। পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল (১৯৬৯) পেলেন মারি গেল-মান। মার্কিন এ পদার্থবিদ পদার্থের মৌলিক কণাগুলোর শ্রেণিবিভাগ করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ আবিষ্কার করেন। ‘ফিজিক্যাল রিভিউ লেটারস’ পত্রিকায় গবেষণাটি প্রকাশিত হলেও তাতে ইচ্ছেমতো এডিট করে লেখকের বারোটা বাজিয়ে দেয়া হয়েছিল। চিকিৎসাবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার (১৯৫৩) পান জার্মান বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ চিকিৎসক ও প্রাণরসায়নবিদ হ্যান্স অ্যাডলফ ক্রেবস। তিনি ইউরিয়া চক্র এবং সাইট্রিক এসিড চক্র আবিষ্কার করেন। তার নামে সাইট্রিক চক্রের নামকরণ করা হয় ‘ক্রেবস সার্কেল’। ক্রেবসকে এ গবেষণাপত্রটি প্রথমবার প্রকাশের ক্ষেত্রে অপারগতা জানিয়ে আরও চেষ্টা করার চিঠি দিয়েছিল বিখ্যাত বিজ্ঞান সাময়িকী ‘নেচার’। 
উচ্চগতির আলোক-ইলেকট্রনিক্স ব্যবহৃত অর্ধপরিবাহী হেটারোস্ট্রাকচারের উন্নয়ন ঘটিয়ে পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল (২০০০) পেলেন হার্বার্ট ক্রোয়েম। ক্রোয়েম প্রথমে তার আইডিয়াটি জমা দিয়েছিলেন ‘এপ্লাইড ফিজিক্স লেটারস’ পত্রিকায়। কিন্তু প্রত্যাখ্যাত হন। হ

হইমদাদুল হক


আরব ছোটগল্পের রাজকুমারী
সামিরা আজ্জম ১৯২৬ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর ফিলিস্তিনের আর্কে একটি গোঁড়া
বিস্তারিত
অমায়ার আনবেশে
সাদা মুখোশে থাকতে গেলে ছুড়ে দেওয়া কালি  হয়ে যায় সার্কাসের রংমুখ, 
বিস্তারিত
শারদীয় বিকেল
ঝিরিঝিরি বাতাসের অবিরাম দোলায় মননের মুকুরে ফুটে ওঠে মুঠো মুঠো শেফালিকা
বিস্তারিত
গল্পের পটভূমি ইতিহাস ও বর্তমানের
গল্পের বই ‘দশজন দিগম্বর একজন সাধক’। লেখক শাহাব আহমেদ। বইয়ে
বিস্তারিত
ধোঁয়াশার তামাটে রঙ
দীর্ঘ অবহেলায় যদি ক্লান্ত হয়ে উঠি বিষণœ সন্ধ্যায়Ñ মনে রেখো
বিস্তারিত
নজরুলকে দেখা
আমাদের পরম সৌভাগ্য, এই উন্নত-মস্তকটি অনেক দেরিতে হলেও পৃথিবীর নজরে
বিস্তারিত