স্বাধীনতার ঘুড়ি

আমি মায়ের ডানপিটে এক ছেলে
সারাটা দিন কাটাই হেসে খেলে।

অনেক দিনের স্বপ্ন-আঁকা
লাল-সবুজের আঁচল ঢাকা
আজ আকাশে উড়িয়ে দেব
নতুন রঙের ঘুড়ি,
আজকে মাগো দাও না ছুটি
রঙের পাখায় উড়ি।

সেই ঘুড়িটার রঙিন লেজে
মিহিন বাতাস উঠবে বেজে
বুঝবে মাগো বাবার দেয়া
বাজছে হাতের চুড়ি,
মাগো, আমায় দাও না ছুটি
আজ ওড়াব ঘুড়ি।

মাগো আমি আমগাছেতে
মারব না আর ঢিল,
ছোট্ট সোনা সাফিয়াকে
আর দেব না কিল।

আজকে মাগো, দাও না ছুটি
রৌদ্র-মাঠে পুড়ি
আবার আমি দিই উড়িয়ে
স্বাধীনতার ঘুড়ি।

সেই ঘুড়িটা উড়ে উড়ে
যাবে অনেক দূর,
আনবে তুলে একাত্তরের
বাপ হারানো সুর।


শরৎ রানী বাংলা মাকে
আমার গাঁয়ে শরৎ আসে শিউলি ও কাশ মুচকি হাসে আমার
বিস্তারিত
যেন সাদা রেলগাড়ি
নীল আকাশে উড়ছে সাদা ডানা অলা মেঘ অনেক মেঘ পাখিরা
বিস্তারিত
ষড়ঋতুর দেশ
শরৎ এলো গুনগুনিয়ে  বর্ষা বলে ওরে,  শরৎ এলো, শরৎ এলো 
বিস্তারিত
শরৎ এলে
শরৎ এলে দোল খেয়ে যায় সাদা কাশের বন, তুলোর মতো
বিস্তারিত
সোনার বাংলাদেশ
  নদীর ধারে শাদা ফুলের দোলা, আকাশটাতে নীলের কপাট খোলা। 
বিস্তারিত
তোমাদের আঁকা ছবি
‘ভোরের আকাশ’ শিরোনামে এ ছবিটি এঁকেছে দেবারতি ঘোষ। সে পড়ে
বিস্তারিত