মিনার মনসুর

যার জন্য এত রক্ত এত অশ্রুপাত

শুধু পাশা খেলা, অন্তহীন বস্ত্র হরণের পালা...
শুধুই বিষবৃক্ষের লকলকে ডালপালা মাথার ওপরে
পদতলে শঠতার চোরাবালি, হিংসার হাঙর; 
যা কিছু মহৎ সব গড়াগড়ি যায় লালসার লাভাস্রোতে।

তার জন্য এত রক্ত, এত অশ্রুপাত!

আবার রক্তের হোলিখেলা দেখি, ঘোড়ার ক্ষুরের শব্দ শুনি
ঠগি-বর্গিদের সদম্ভ উত্থান দেখি ঘরে ঘরেÑ
ধুলায় লুটাতে দেখি নারীর সম্ভ্রম,
    শিশু আর বৃদ্ধদের মাথার করোটি; 
টগবগে যুবকেরা লাশ হয়ে পড়ে থাকে প্রকাশ্য রাস্তায়।

তার জন্য এত রক্ত, এত অশ্রুপাত!

সেই অজেয় কৃষক, ছাত্র, কামার-কুমোর
মুটে ও মজুর যারা গড়েছিল অন্য এক চীনের প্রাচীরÑ
তাদের তো কোথাও দেখি না; 
কোথাও দেখি না স্বজনের অস্থি দিয়ে গড়া সেই বধ্যভূমি। 
শুধু বাহারি বণিক দেখি, তাদের তীব্র হাঁকডাক শুনি...

দেশটাই যেন আজ বারোয়ারি বিশাল বাজার!
শহীদের শিরস্ত্রাণ কিংবা বীরের এ রক্তস্রোত মায়ের এ অশ্রুধারাÑ 
     কী না বিকিকিনি হয় এই হাটে! শুধু 
যার জন্য এত রক্ত, এত অশ্রুপাত 
তাকে আজ কোথাও দেখি না।


বৈশাখের আহ্বান
বাতাসের সুরে সুরে ঝড়ের ঝংকার  আকাশের কালো মেঘে কালের হুংকার  বজ্রের
বিস্তারিত
ডোম
প্রথমে লোকটির ডান হাত কেটে ফেললাম তারপর বাম হাত তার পা
বিস্তারিত
আয়না সিরিজ
এক একদিন প্রেমিকার চশমায় প্রবেশ করি,  ঢুকে পড়ি অজান্তে আয়নার শহরে
বিস্তারিত
শ্রেষ্ঠ ডায়ালগ
(এক স্রোতস্বিনীর পাশে আমার সুন্দর ফুলবাগান। সেখানে আমি মন নিয়ে খেলা
বিস্তারিত
প্রতীক্ষা
সমুদ্রের মুখোমুখি, বসে আছি একাকী মনের তুলিতে আছ তুমি, কল্পনায় করি
বিস্তারিত
এসো হে বৈশাখ
বৈশাখ দরজায় নাড়ছে কড়া বাঙালি সাজাবে নতুন এই ধরা চারদিকে বসবে
বিস্তারিত