মায়ের শোলক

মায়ের মুখে সেদিন খোকা শুনেছিল শোলক
বুড়িগঙ্গায় হারিয়েছিল এক অভাগীর নোলক।
বলতে গিয়ে মায়ের চোখে গড়িয়ে পড়ে জল
বলছে খোকন মাকে তখন, তারপরে কী বল?

বললো মায়ে বলছি খোকন শুনবে যখন শোন
শোলক তো নয় সত্য কথা শক্ত করো মন।
দেশটা যখন গভীর ঘুমে পঁচিশে মার্চ রাতে
ঘুম ভেঙে যায় সবার তখন বোম বুলেটের ঘাতে।

বীর-বাঙালি ঠিক তখনই যুদ্ধে নেমে গেল
জেলখানার ওই বন্দিরা সব মুক্তি সেদিন পেল।
বুড়িগঙ্গায় শত্রু জাহাজ টহল দিতে এলো
শত্রু ঘায়েল করতে তখন বীর-বাঙালি গেল।

আঘাতের পর পাল্টা-আঘাত চলছে অবিরত
রক্ততে লাল বুড়িগঙ্গা; মরছে মানুষ শত।
নিজের চোখেই দেখছি সেদিন হাজার লাশের ভিড়ে
আমার নোলক ঘুমিয়ে আছে বুড়িগঙ্গার তীরে।

দেশের জন্য যুদ্ধ করে জীবন যারা দিল
তাদের মধ্যে তোমার বাবা রহিম উদ্দিন ছিল।


শরৎ রানী বাংলা মাকে
আমার গাঁয়ে শরৎ আসে শিউলি ও কাশ মুচকি হাসে আমার
বিস্তারিত
যেন সাদা রেলগাড়ি
নীল আকাশে উড়ছে সাদা ডানা অলা মেঘ অনেক মেঘ পাখিরা
বিস্তারিত
ষড়ঋতুর দেশ
শরৎ এলো গুনগুনিয়ে  বর্ষা বলে ওরে,  শরৎ এলো, শরৎ এলো 
বিস্তারিত
শরৎ এলে
শরৎ এলে দোল খেয়ে যায় সাদা কাশের বন, তুলোর মতো
বিস্তারিত
সোনার বাংলাদেশ
  নদীর ধারে শাদা ফুলের দোলা, আকাশটাতে নীলের কপাট খোলা। 
বিস্তারিত
তোমাদের আঁকা ছবি
‘ভোরের আকাশ’ শিরোনামে এ ছবিটি এঁকেছে দেবারতি ঘোষ। সে পড়ে
বিস্তারিত