আ লো কি ত মা নু ষ

বেদেদের অন্ধকার থেকে আলোর পথ দেখালেন হাবিবুর রহমান

জীবনের প্রতিটি সময়ে যেখানে নিরন্তর সংগ্রামের পথ পাড়ি দেয়া, সেখানে স্নিগ্ধ সকালের প্রত্যাশা সুদূরপরাহত। আঁধারের বিপরীতে আলোর মতো কিছু সৃষ্টিশীল স্বপ্নবুনা মানুষ থাকে। সুন্দর সমাজ ও আলোকিত বাংলাদেশ গড়তে মেধা ও মনন দিয়ে সৃজনশীল প্রচেষ্টায় তারুণ্যের প্রতিচ্ছবি হয়ে থাকে। তেমনি এক সুন্দর মনের অধিকারী মা-মাটি মানুষ নিয়ে ভাবনার ধারক বাংলাদেশ পুলিশের অ্যাডিশনাল ডিআইজি (সংস্থাপন) হাবিবুর রহমান। ছোটবেলা থেকেই সমাজের অসহায়-নিপীড়িত মানুষের দুঃখ দেখে তিনি কষ্ট অনুভব করতেন।  হাবিবুর রহমানের আন্তরিক প্রচেষ্টায়  সাভারের অবহেলিত বেদেপল্লী খুঁজে পায় আলোর পথ। ঝাড়ফুঁক, সিংগা লাগানো, দাঁতের পোকা ফেলা, সাপ পালন ও বিক্রি, মাদক সেবন ও ব্যবসা যে গ্রামের চিরচেনা পরিবেশ ছিল সেই বেদেপল্লীতে দিনবদলের ছোঁয়া লেগেছে। অবহেলিত বেদেপল্লীর জীবনচিত্র বদলে দেয়ার অসাধ্যকে সাধন করেছেন অ্যাডিশনাল ডিআইজি হাবিবুর রহমান। যুগ যুগ ধরে বেদে নারীরা চুড়ি-ফিতা, তাবিজ-কবজ বিক্রি, সাপে কাটা রোগীর চিকিৎসা, সাপের খেলা দেখানো, বানর খেলা, জাদু দেখানোসহ অনেক উপায়ে জীবিকা নির্বাহ করতেন। হাবিবুর রহমানের একান্ত উদ্যোগে বেদে সম্প্রদায় নিজেদের পেশা থেকে সরে আসেন। বিভিন্ন সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও সমাজকর্মী অ্যাডিশনাল ডিআইজি হাবিবুর রহমানের মহতী এ প্রচেষ্টায় নিজেদের নিবেদিত করেন। বেদে পরিবারের জন্য বিনামূল্যে কারিগরি প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা, প্রাথমিক শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করেন হাবিবুর রহমান। বেদে পরিবারের শতাধিক মেয়েকে সেলাই মেশিন কিনে দেয়া হয়। তাদের বসবাসরত গ্রামের রাস্তাঘাট উন্নয়ন, ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ ও চাকরির ব্যবস্থা করা হয়েছে। সম্প্রতি বেদে পরিবারের তিন বেদে কন্যার বিয়ে জাঁকজমকভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে অংশ নেন দুই হাজারেরও বেশি অতিথি। সমাজবন্ধু হাবিবুর রহমান বলেন, শুধু নির্দিষ্ট কোনো এলাকা নয়, ধীরে ধীরে অন্যান্য বেদেপল্লীতেও উন্নয়নের ধারাবাহিকতা এগিয়ে চলবে। একজন অভিভাবকের বুকে একটি পরিবার যেমন পৃথিবীর সবচেয়ে নিরাপদ জায়গা মনে করে, তেমনি সমাজের অবহেলিত বেদে সম্প্রদায়সহ অসহায় মানুষ ও মুক্তমনা সমাজবন্ধুরা হাবিবুর রহমানকে আশ্রয় এবং সহায়কের ধারক বলে বিশ^াস করেন। সাদাসিধে জীবনযাপনকারী হাবিবুর রহমান মনে করেন, তরুণদের রয়েছে সৃজনশীল চেতনা ও উদ্দাম, তারাই গড়তে পারে সুষ্ঠু আধুনিক সমাজ।  দিনের শুরু থেকে গভীর রাত পর্যন্ত মানুষের কল্যাণ ও দেশের সেবায় নিয়োজিত থাকেন হাবিবুর রহমান। মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে বদ্ধপরিকর অ্যাডিশনাল ডিআইজি হাবিবুর রহমান।  মানবতা, অসাম্প্রদায়িকতা, সুশিক্ষা, সততা, সাধুতা সব কিছু মিলিয়ে যেন হাবিবুর রহমান তারুণ্যের এক আলোকিত মানুষ।
হকো-অর্ডিনেটর
আলোকিত বন্ধু ফোরাম


শিল্পী-সাহিত্যিকদের মিলনমেলা
বন্ধু ফোরাম ও শুভজন মানবতার কল্যাণে অপরিসীম ভূমিকা রেখে এগিয়ে
বিস্তারিত
স্বপ্ন দেখি তরুণরাই বদলে দেবে
৯০তম জন্মদিনে ভালোবাসায় সিক্ত আহমদ রফিক। বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী আহমদ
বিস্তারিত
আলোকিত সমাজ গড়ার প্রত্যয়
আলোকিত সমাজ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে স্বাধীনতাবিরোধী কর্মকা- থেকে দূরে থেকে
বিস্তারিত
সুশিক্ষা সুন্দর সমাজ বিনির্মাণের হাতিয়ার
সৃষ্টিশীল মনন, আর্তমানবতার সেবায়, সুশৃঙ্খল ও সংস্কৃতির মাধ্যমে সম্ভাবনাময় আগামীর
বিস্তারিত
আলো ছড়ানোর শপথ নিয়ে অনেকদূর যাবে বন্ধু
স্বপ্নীল এক তারুণ্যের মাধ্যমে ‘আলোকিত মানুষের বন্ধন’ নিয়ে সারা দেশে
বিস্তারিত
বন্ধুত্বের মাধ্যমে দেশ গড়ার কাজে এগিয়ে
স্বপ্নীল এক তারুণ্যের মাধ্যমে আলোকিত মানুষের বন্ধন নিয়ে সারা দেশে
বিস্তারিত