‘ইভিএমে ভোটগ্রহণে আ.লীগের আপত্তি নেই’

আগামী জাতীয় নির্বাচনে অটোমেটিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ভোটগ্রহণে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের কোনো আপত্তি নেই বলে জানিয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ‘বর্তমান সরকারের অধীনেই নির্বাচন হবে। এটা সংবিধানে আছে এবং পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে এর প্রচলনও আছে। তাই বিএনপিসহ সব রাজনৈতিক দলকে বলব, আপনারা দয়া করে নির্বাচনে আসুন। জনগণের রায় নিন। জনগণ যে রায় দেয়, তা মেনে নিন।’

আজ শুক্রবার বেলা ১২টায় জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে রক্তদাতা সম্মাননা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

ইভিএম পদ্ধতি সম্পর্কে নাসিম বলেন, ‘এটা একটা স্বচ্ছ প্রক্রিয়া। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে আছে। তা ছাড়া জনগণ এখন সচেতন। তাদের ফাঁকি দেওয়া যাবে না।’

কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের নিরাপদ রক্ত নিশ্চিতের এ কার্যক্রমকে স্বাগত জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সরকার দেশে স্বাস্থ্য খাতে সুস্থ পরিবেশ তৈরিতে সচেতন। নিরাপদ রক্ত সরবরাহের ব্যাপারেও যথেষ্ট উদ্যোগী। এ লক্ষ্যে এরই মধ্যে সারাদেশে অবৈধ রক্ত ব্যবসায়ীদের দমনে সোচ্চার ভূমিকা পালন করা হয়েছে।’

স্বেচ্ছায় রক্তদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নবজাতক বিভাগের অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সহিদুল্লা। সভাপতিত্ব করেন কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছা রক্তদান কার্যক্রমের প্রধান সমন্বয়ক নাহার আল বোখারী। স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের হেমাটোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. এ বি এম ইউনুস।

এছাড়া অনুষ্ঠানে ২৫ বার রক্তদানের মাধ্যমে গোল্ডেন ক্লাবের সদস্যপদ লাভ করেছেন-এমন দুই শতাধিক স্বেচ্ছা রক্তদাতাকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। এ সময় ২৬ বার রক্তদানকারী দৈনিক প্রথম আলোয় কর্মরত সাইমুম ইমতিয়াজ ও থ্যালাসেমিয়া রোগী শোভা আক্তার তাদের অনুভূতি প্রকাশ করেন।

কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছা রক্তদান কার্যক্রমের প্রধান সমন্বয়ক মাদাম নাহার আল বোখারী বলেন, রক্তদাতাদের এই নীরব দানের প্রতিদান পৃথিবীর কোনো কিছু দিয়েই মূল্যায়ন করা সম্ভব নয়। এই দান পৃথিবীর মানুষের পক্ষে দেয়া সম্ভব নয়। পরম প্রভুই এর প্রতিদান দিতে পারেন। রক্তদানের মতো এমন মহৎ কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত নিয়মিত রক্তদাতাদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, ২০০০ সালে কোয়ান্টাম ল্যাব প্রতিষ্ঠার পর এ পর্যন্ত ৮,৪২,১৯৭ ইউনিট রক্ত সরবরাহ করা হয়। রক্তের বিভিন্ন উপাদান বিভাজনের মাধ্যমে ২০০৩ সাল থেকে কোয়ান্টাম রক্তের ৮টি উপদান সরবরাহ করে আসছে। এই প্রক্রিয়ায় এক ব্যাগ রক্ত থেকে প্রয়োজনে ৪ জনের জীবন বাঁচানো সম্ভব।


খবরটি পঠিত হয়েছে ১৫২০ বার

হাওরে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান
দলমত নির্বিশেষে সকলের প্রতি সকলকে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান
বিস্তারিত
‘নিরীহ মানুষ মামলা ও হামলায়
নির্বাচনের সময় আওয়ামী লীগ সরকার থাকলে ওই নির্বাচন সুষ্ঠু হবে
বিস্তারিত
‘আ.লীগকে বিজয়ী করতে সবাই এক
আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী
বিস্তারিত
‘এখনও শ্রমিকরা ন্যায্য অধিকারবঞ্চিত’
বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, মহান মে দিবস ঐতিহাসিকভাবে
বিস্তারিত
‘সরকার পরিবর্তনের কোনো বিকল্প নেই’
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রধান বিচারপতির একটি বক্তব্যের
বিস্তারিত
‘হাওরাঞ্চলের দুর্গতি সরকারের দুর্নীতির অংশ’
হাওর অঞ্চলের দুর্গতি সরকারের দুর্নীতির অংশ বলে মন্তব্য করে বিএনপির
বিস্তারিত