রাসায়নিক দিয়ে পাকানো ফল চেনার উপায় (ভিডিও)

বাজারে প্রতিদিন আসছে নতুন নতুন ফল। কোনটি আসল আর কোনটি নকল এটা চিনে ফল কেনা বেশ সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়। অধিকাংশ ফলই বিভিন্ন রাসায়নিক দ্রবণ দিয়ে পাকানোর অভিযোগ রয়েছে। কিন্তু আসল ফল আর রাসায়নিক দ্রবণ মিশ্রিত ফল চেনার উপায় কি? হ্যা, আপনি একটু সর্তক হলেই এটা চিনেই আসল ফল কেনা সম্ভব।

ফল পাকানোর জন্য ক্যালসিয়াম কার্বাইড, এথিলিনের মতো বিভিন্ন রাসায়নিকের ব্যবহার নতুন কিছু নয়। কিন্তু দীর্ঘদিন এই ধরনের রাসায়নিক শরীরে গেলে তা থেকে ক্যানসার, কিডনির সমস্যা, ত্বকের সমস্যা দেখা দিতে পারে। কারণ কার্বাইডের মতো রাসায়নিকের মধ্যে ফসফরাস ও আর্সেনিক থাকে। তাই ফল কেনার ক্ষেত্রে রাসায়নিক দিয়ে পাকানো কিনা তা যাচাই করে কেনাই ভালো। কিন্তু কোন ফল রাসায়নিক দিয়ে পাকানো, আর কোনটা স্বাভাবিকভাবে পেকেছে, তা কীভাবে চিনবেন?

• কলা কৃত্রিমভাবে পাকানো হলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই কলার খোসায় কালো ছোপ পড়তে থাকে।

• আম কৃত্রিমভাবে পাকানো হলে গায়ে সবুজ এবং হলুদ রংয়ে সামঞ্জস্য থাকে না। হলুদ রংয়ের মাঝে সবুজ সবুজ ছোপ থাকে। এর অর্থ, রাসায়নিকটি ফলের মধ্যে ভালভাবে মেশেনি।

• ফল কেনার পরে বালতিতে পানি ভরে তার মধ্যে ফলটি ফেলুন। যদি সঙ্গে সঙ্গে ফলটি পানির মধ্যে সম্পূর্ণ ডুবে যায়, তাহলে সেটি স্বাভাবিকভাবে পেকেছে। কিন্তু যদি ভেসে থাকে বা ডুবতে সময় নেয় তাহলে বুঝতে হবে ফলটি কৃত্রিমভাবে পাকানো।

• কৃত্রিম পদ্ধতিতে পাকানো কলা বা আমের স্বাভাবিক মিষ্টিভাব থাকে না। বাইরে থেকে হলদে হয়ে গেলেও ভিতরে শক্ত থেকে যায়।

• কৃত্রিমভাবে রাসায়নিকের সাহায্যে পাকানো ফল খেলে তা থেকে বমি, মাথা ঘোরা, অ্যাসিডিটির মতো সমস্যা হতে পারে। একটানা অনেক দিন খেলে প্রভাব পড়ে কিডনিতে।

ভিডিও দেখে চিনুন রাসায়নিক দেওয়া ফল: 


পালংশাক খেলে বয়স কমে
বয়সের ছাপ লুকানোর জন্য আমরা কতকিছুই না করি। মুখে দামি
বিস্তারিত
জন্মের পরই শিশুর জন্ডিস
মাথায় আকাশ ভেঙে পড়েছে শহীদ-নাদিয়া দম্পতির। হাসপাতালে এনআইসিইউতে ভর্তি করতে
বিস্তারিত
ওজন বাড়ানোর খাবার
ওজন কমানোর জন্য যেখানে অসংখ্য মানুষ ব্যস্ত রয়েছেন, সেখানে কিছু
বিস্তারিত
মোবাইলে ম্যালেরিয়া নির্ণয়
এবার মোবাইল ক্যামেরায় ম্যালেরিয়া রোগ নির্ণয় করা যাবে। স্মার্টফোনে লাগানো
বিস্তারিত
ঝিনাইদহে পাম চাষিরা বিপাকে
ঝিনাইদহের ৬ উপজেলায় পাম চাষ করে বিপাকে পড়েছেন চাষিরা। পাম
বিস্তারিত
শিক্ষার্থীদের নিরাপদ ইন্টারনেট ব্যবহার
নিয়ন্ত্রণহীন ইন্টারনেট সমাজ ও জীবনকে বিপর্যস্ত করতে পারে। আমরা তরুণদের
বিস্তারিত