তোমার উদ্দেশে

পৃথিবী, বেদনা, হে, ওপারে
ত্রিপল ছড়িয়েছি, বসেছি;
তা বলে মুখোমুখি তোমাকে
দাঁড়াতে দেব ঠাঁই, এতটা
ভীরুতা ছিল চোখে! জানলে
কাজল রাখতাম। গোপনে
বনানী মেলে দিয়ে হারানো
এবং হার মেনে যাবার
ক্লান্তি, আছে বটে দোসরা
বিষাদ। কেউ এসে দেখাও
তামাটে জাদু। মারি মড়কে
রক্তঝরনার নিকটে
জগৎ দোল খায় বাতাসে;
আমিই আহা উড়ে চৌচির!
সত্যি নাকি সব মরণ, 
তোমার কালো কালো খোলস
মিথ্যা নয় তবে বাগান
সাজিয়ে অনেকে যে থেকেছে
কাঙাল! হাহাকার, পুলিশ
সবাই নাচঘরে, বাজনা।
হা ঝুম ঝুম ঝুম...পেয়েছি
তোমাকে করতলে, পৃথিবী;
এখন পাশ ফেরো গরিব!
বাজাও লেখা। লেখা ওপারে
বোরাক হলো কী! কে কে এল...


নৈসর্গ, পাহাড় ও নদীর কবি
কবি ও কথাসাহিত্যিক আফিফ জাহাঙ্গীর আলির জন্মদিন পহেলা জানুয়ারি। ১৯৭৮
বিস্তারিত
এলোমেলো
মনে করো কেউ তোমাকে ডাকেনি,  অথচ তুমি শুনতে পাচ্ছো অতল
বিস্তারিত
বুড়ি চাঁদ
সুগন্ধি রোমাল হাতে         তুমি মেপে গেলে ষাঁড়ের
বিস্তারিত
প্রেমিক হতে পারি না আজকাল
প্রেমিকার উষ্ণ চুম্বনে কৃষ্ণগৌড় ঠোঁটে  ভেসে ওঠে শোষিত মানুষের রক্তের দাগ! 
বিস্তারিত
এ মাটি
এ মাটি আমাকে দিয়েছে জীবনের যতো গান, বাতাসে রৌদ্রের ঝিলিমিলি প্রজাপতি
বিস্তারিত
নোনাজলের ঢেউ
যাবতীয় আয়োজন শেষে কত ভেঙেছি  এ নদীতে নোনাজলের মিছিলের ঢেউ  শব্দবাণে
বিস্তারিত