পরীক্ষার খাতা ভিজে যায় অশ্রুজলে

বাবার স্বপ্নপূরণে পড়াশোনাই হাতিয়ার। তাই বাবার মৃত্যুর পরও মাধ্যমিক পরীক্ষা দিল মেয়ে। চোখের জলে বাবাকে বিদায় জানালেন ঠিকই, সঙ্গে শপথও নিলেন স্বপ্নের আকাশে সওয়ার হওয়ার। নিজের স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ করতে হলে পড়াশুনাই যে একমাত্র হাতিয়ার তা বেশ ভালোভাবে বুঝতে পেরেছিল ভারতের বীরভূমের মুর্শিদাবাদ সীমানা লাগোয়া মুরারই থানার মিত্রপুর গ্রামের কাজিপাড়ার শবনম খাতুন।
বাবা ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) হেড কনস্টেবল। গত ৩০ জানুয়ারি পাঞ্জাবে কর্মক্ষেত্রে রহস্যজনক মৃত্যু হয় বাবার। মঙ্গলবারই মরদেহ আনা হয় বাড়িতে। বাবার মরদেহ বাড়িতে রেখেই পরীক্ষা দিতে যায় শবনম।
জি নিউজ জানিয়েছে, শবনমের বাবা সামসউদ্দিন মানসিক অবসাদ থেকে নিজের নাইন এমএম সার্ভিস রিভলভার থেকে গুলি চালিয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন বলে বিএসএফ দাবি করেছে। যদিও ময়না-তদন্তে জানা গেছে, ওই জওয়ানের দেহে কমপক্ষে ১১টি গুলির ক্ষতচিহ্ন রয়েছে। মৃত জওয়ানের পরিবারের প্রশ্ন, কেউ কি নিজেকে এগারোটি গুলি করে আত্মঘাতী হতে পারে?
পরীক্ষা দিতে যাওয়ার আগে ফোন করে বাবার আশীর্বাদ নেওয়ার পরিকল্পনা ছিল শবনমের। উল্টো বাবার নিথর দেহ বাড়িতে প্রবেশের মুখেই বুকে পাথর চাপা দিয়ে মেয়ে ছুটল গ্রাম ছাড়িয়ে পাইকর হাইস্কুলের পরীক্ষাকেন্দ্রে।

 


তামাক নিয়ন্ত্রণ: সরকারি অনুদানে নির্মিত
ছোটবেলায় সিনেমা হলে গিয়ে অনেক ছবি দেখতাম। চলচ্চিত্রের একটা অদৃশ্য
বিস্তারিত
ভোলায় প্রান্তিক মানুষের আস্থা গ্রাম
ভোলায় ৫ টি উপজেলার ৪৬ টি ইউনিয়ন পরিষদে গ্রাম আদালতের
বিস্তারিত
পঞ্চাশ বছর ধরে শিক্ষার আলো
কোথাও খোলা উঠুনে চাটাই পেতে। আবার কোথাও কারো বাড়ির বারান্দায়।
বিস্তারিত
রংপুরে শিম চাষে কৃষকের সাফল্য
রংপুর জেলায় শিম চাষ করে সাফল্যের মুখ দেখছে কৃষকরা। অপরদিকে
বিস্তারিত
কিশোরগঞ্জের হাওরে নির্মিত হচ্ছে স্বপ্নের
কিশোরগঞ্জের হাওর অঞ্চলে প্রায় ৯ শ’ কোটি টাকা ব্যয়ে সারা
বিস্তারিত
জলের ফলে দিন বদল
নদী মাতৃক এই দেশ। সারা দেশে জালের মতো ছড়িয়ে রয়েছে
বিস্তারিত