‘নির্বাচনে না এলে বিএনপির অস্তিত্ব থাকবে না’

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ২০১৯ সালের নির্বাচনে অংশ না নিলে বিএনপির অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যাবে না। যতই দাবি করা হোক না কেন আগামী নির্বাচন হবে শেখ হাসিনার অধীনে। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে গণতন্ত্র ও জনগণের অধিকার রক্ষা করারও আহ্বান জানান তিনি। বৃহস্পতিবার দুপুরে দিনাজপুরের এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের নামকরণ ও আইসিইউ উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত সুধী সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। সম্প্রতি সরকার মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক এম আবদুর রহিমের নামে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের নামকরণ করায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে তা উদ্বোধন করেন। এর আগে মন্ত্রী মেডিকেল কলেজে ১০ শয্যাবিশিষ্ট অত্যাধুনিক আইসিইউ উদ্বোধন করেন। 
কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. কামরুল আহসানের সভাপতিত্বে সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, বিএমএ’র কেন্দ্রীয় সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দীন, হুইপ ইকবালুর রহিম, হাসপাতালের পরিচালক ডা. সারওয়ার জাহান, জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম, রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. মোঃ মোজাম্মেল হক, মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. কান্তা রায় রিমি, জেলা বিএমএ’র সাধারণ সম্পাদক ডা. বি কে বোস, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের জেলা সভাপতি ডা. শহিদুল ইসলাম খান, এম আবদুর রহিমের পরিবারের পক্ষে তার দুই মেয়ে ডা. নাদিরা সুলতানা ও নাসিমা সুলতানা এবং মেডিকেল কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আসিফ শামস। 
মন্ত্রী বলেন, ২০১৯ সালের জাতীয় নির্বাচন হবে শেখ হাসিনার অধীনে। যতই কথা বলুন দেশ চলবে সংবিধান অনুযায়ী। সংবিধানে সহায়ক সরকারের কোনো বিধান নেই। বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচনে অংশ নেয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির উদ্দেশে তিনি বলেন, যদি নির্বাচনে না আসেন তাহলে বাটি চালান দিয়েও আপনাদের অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যাবে না। নির্বাচনের মাঠে নামুন, নির্বাচন কমিশন যে কোনো মূল্যে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের আয়োজন করবে। জনগণ যার পক্ষে রায় দেবে তিনিই দেশ পরিচালনার দায়িত্ব পাবেন। বিএনপির দাবি নাকচ করে নাসিম বলেন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ পরাজয় মেনে নিয়েছে। জনগণের রায় মেনে নেয়ার মানসিকতা আওয়ামী লীগের আছে। কেউ আসুক বা না আসুক সংবিধান অনুযায়ী ২০১৯ সালে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তিনি বলেন, এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের উন্নয়নে আগামী ৫ বছরে ১০০ কোটি টাকা ব্যয়ে কলেজ ও হাসপাতালের ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ, নার্স ও ইন্টার্ন ডাক্তারদের আবাসন, অডিটোরিয়ামসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করা হবে। জেনারেল হাসপাতালের জন্য ৫ কোটি টাকা নির্মাণ কাজে ব্যয় করা হবে। তিনি বলেন, সারা দেশে ৪০ হাজার নার্স ও কর্মচারী নিয়োগ দেয়া হবে। শিগগিরই ৫ হাজার ডাক্তার নিয়োগ দেয়া হবে। আগামীতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নীত করার পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। 


তারেকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানায় বুধবার
বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির
বিস্তারিত
‘তা‌রেক রহমানের বিরু‌দ্ধে গ্রেফতারি প‌রোয়ানার
রাজনৈ‌তিকভাবে হয়রা‌নির উদ্দে‌শ্যেই সরকার বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও সিনিয়র
বিস্তারিত
ফখরুলের বিরুদ্ধে নাশকতার মামলার কার্যক্রম
রাজধানীর পল্টন থানায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিরুদ্ধে 
বিস্তারিত
আ.লীগকে প্রশ্নপত্র জালিয়াতির ‘মূল হোতা’
আওয়ামী লীগ দেশজুড়ে সব প্রশ্নপত্র ফাঁস ও জালিয়াতির মূল হোতা
বিস্তারিত
খালেদার সঙ্গে সুষমার বৈঠক
ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা
বিস্তারিত
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সভা সোমবার
বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম স্থায়ী কমিটির সভা বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক
বিস্তারিত