স্মার্ট প্রযুক্তি শিশুদের জন্য ভালো

প্রযুক্তির উৎকর্ষতা ও স্মার্টপ্রযুক্তির যুগে আধুনিক কালের প্রতিটি ঘরেই স্মার্ট ডিভাইসের উপস্থিতি রয়েছে। একটা সময় ছিল যখন মানুষ প্রাপ্ত বয়সেও ফোনের দেখা পেতো না। অথচ এখন হাত বাড়ালেই শিশুরাও পেয়ে যাচ্ছে স্মার্টফোন, ট্যাবসহ আধুনিক সব মোবাইল ডিভাইস। এসব স্মার্ট পণ্য শিশুদের উপর প্রভাব ফেলছে কিনা এ নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে মত অাছে। তবে সম্প্রতি ভারতের এক গবেষণায় দেখা গেছে, স্মার্ট ডিভাইস শিশুদের উপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলে।  'আর্কাইভস অব ডিজিজেস ইন চাইল্ডহুড' নামের সাময়িকীতে ওই গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।
একেবারে একদম বাচ্চাদের ক্ষেত্রেও প্রযুক্তি ইতিবাচক ভুমিকা রাখে। তবে এ ক্ষেত্রে শিশুদের উপর নজরদারি রাখার কথা বলা হয়েছে।
গবেষণায় বলা হয়, শিশুর মানসিক বিকাশ যখন থেকে শুরু হয় সেই সময় অর্থাৎ শিশুর বয়স দুই বছর পেরুলেই তারা স্মার্ট ডিভাইস থেকে জ্ঞান নিতে পারে। গবেষণায় মোট ৮২ জন শিশু অংশগ্রহণ করে। ২ থেকে তিন বছর বয়সের ওই শিশুদের পিতামাতা প্রযুক্তি ব্যবহারের বিষয়ে তথ্য দেন।
এতে দেখা যায়, অংশগ্রহণকারীদের ৮২ শতাংশই বাসায় থাকা পিতামাতার স্মার্ট ডিভাইস ব্যবহার করতে পারে। সেখানে তারা অ্যাপগুলো নিয়মিত খুঁজে পায়। স্মার্ট ডিভাইসগুলো ব্যবহারের পর ওই সব শিশুর মধ্যে অন্য শিশুদের তুলনায় বিশেষ কিছু পরিবর্তন খেয়াল করেন গবেষকরা।
এতে দেখা যায়, স্মার্ট ডিভাইস ব্যবহার করা ২৯ মাসের শিশুদের দিয়ে ১ বছর নিয়মিত টাচ স্ক্রিন ব্যবহার করিয়ে চারটি দক্ষতা সঞ্চালন করা সম্ভব যেগুলো তার সামাজিকীকরণে ভুমিকা রাখে।
 


ডিজিটাল রূপান্তরকে গতিশীল করতে আরও
ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপান্তরকে গতিশীল করার পথে প্রতিশ্রুতি ও প্রচেষ্টা বাড়িয়েছে
বিস্তারিত
১৩ লাখ ডেভেলপার নিয়ে এগিয়ে
বিশ্বব্যাপী নিরাপদ ও সুরক্ষিত ইকোসিস্টেম গড়ে তুলতে অব্যাহতভাবে কাজ করে
বিস্তারিত
৬ প্রাইভেসি চেক করতে পারবেন
ব্যবহারকারীদের হাতে তাদের তথ্যের বাড়তি নিয়ন্ত্রণ তুলে দিতে প্রাইভেসি চেকআপ
বিস্তারিত
বাংলাদেশে রিয়েলমির অফিসিয়াল যাত্রা শুরু
স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি ২৪ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশে যাত্রা শুরু করছে প্রেস
বিস্তারিত
করোনা ভাইরাসের প্রভাবে দক্ষিণ কোরিয়ায়
করোনা ভাইরাসের প্রভাবে সবচেয়ে কম ক্ষতি হয়েছে স্যামসাংয়ের। কারণ আগেই
বিস্তারিত
টিএসএ কর্মীদের টিকটক ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা
যুক্তরাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ সংস্থা ‘ট্রান্সপোর্টেশন সিকিউরিটি অ্যাডমিনিস্ট্রেশন’ (টিএসএ)-এর কর্মীরা
বিস্তারিত