বজ্রপাতে তিন জেলায় ১০ জনের মৃত্যু

বজ্রপাতে ফরিদপুর, মাগুরা ও ঝালকাঠিতে ১০ জনের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। যাদের মধ্যে রয়েছেন মা-ছেলেসহ একই পরিবারের তিনজন। আহত হয়েছেন আরও তিনজন।আজ সোমবার দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত ফরিদপুরে সাতজন, মাগুরায় দুইজন ও ঝালকাঠিতে একজনের মৃত্যু হয়।

আলোকিত বাংলাদেশের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর:

ফরিদপুরে মা-ছেলেসহ সাত জনের মৃত্যু

ফরিদপুরের সালথায় বজ্রপাতে মা-ছেলেসহ তিনজন, চরভদ্রাসনে দুইজন ও বোয়ালমারীতে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে।

এরা হলেন- সালথা উপজেলার ভাবুকদিয়া গ্রামের গৃহবধূ হেলেনা বেগম, তার ছেলে হেলাল এবং একই এলাকার মো. মিলন, বোয়ালমারী উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামের আওয়াল ফকির ও ফরহাদ শেখ এবং কুষ্টিয়ার কাবুল।

সালথা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. ফায়েকুজ্জামান জানান, সোমবার সকালে বজ্রপাতে ভাবুকদিয়া গ্রামের গৃহবধূ হেলেনা বেগম ও তার শিশুপুত্র হেলাল মারা যায়। এছাড়া মাঠে কাজ করার সময় বজ্রপাতে মিলনের মৃত্যু হয়।

চরভদ্রাসনের ছমির ব্যাপারীর ডাঙ্গী এলাকায় জমিতে কাজ করার সময় বজ্রপাতে কাবুলের মৃত্যু হয়।এ ঘটনায় আহত অপর দুই দিনমজুরকে চরভদ্রাসন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এছাড়া বোয়ালমারী উপজেলার শেখর ইউনিয়নের দুর্গাপুর গ্রামে বজ্রপাতে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইস্রাফিল মোল্লা।

তিনি বলেন, স্থানীয় মসজিদের ইমাম আওয়াল ফকির মাঠে গরু আনতে গিয়ে এবং মাঠে কাজ করার সময় বজ্রপাতে ফরহাদ শেখের মৃত্যু হয়।

মাগুরায় দুই কৃষকের মৃত্যু

মাঠে কাজ করার সময় বজ্রপাতে মাগুরা সদর উপজেলার নালিয়ারডাঙ্গী ও মঘি গ্রামে দুই

কৃষকের মৃত্যু হয়েছে।

এরা হলেন নালিয়াডাঙ্গী গ্রামের কলমদী বিশ্বাস (৪৮) ও মঘি গ্রামের আহাদ শেখ (৫০)।মাগুরা সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক সুশান্ত বিশ্বাস জানান, বজ্রপাতে আহত দুই কৃষককে হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতদের পরিবার জানায়, বেলা ১২ টার দিকে স্থানীয় মাঠে ক্ষেতে কাজ করার সময় বজ্রপাতে আহত হন কলমদী বিশ্বাস ও আহাদ শেখ।

তাদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন বলে জানায় পরিবার।

এ ঘটনায় সদর থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে জানান পরিদর্শক (তদন্ত) হোসেন আল মাহবুব।

ঝালকাঠিতে কৃষকের মৃত্যু

ঝালকাঠি সদর উপজেলার নবগ্রাম গ্রামে বজ্রপাতে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে।নিহত জাকির হোসেন আকন সদর উপজেলার নবগ্রাম ইউনিয়নের নবগ্রাম গ্রামের গের আলীর ছেলে। তিনি কৃষি কাজ করে জীবিকা চালাতেন।

সোমবার বেলা ১টায়র দিকে বাড়ির পাশে জমিতে কাজ করার সময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয় বলে জানান নবগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমান।


ঈদে ঢাকা-বরিশাল নৌরুটে কেবিন বুকিংয়ের
আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ঢাকা-বরিশাল নৌরুটের বেসরকারি লঞ্চের স্পেশাল সার্ভিসের
বিস্তারিত
মমতার সঙ্গে আলাদা বৈঠক হবে
ভারত সফরকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আলাদা বৈঠক হবে পশ্চিমবঙ্গের
বিস্তারিত
কঙ্গোতে নৌকা ডুবে ৪৯ জনের
কঙ্গোলিস রেডিও জানিয়েছে, পশ্চিম আফ্রিকার দেশ কঙ্গোতে নৌকা ডুবে ৪৯
বিস্তারিত
জাতীয় কবির সমাধিতে সর্বস্তরের মানুষের
১১৯তম জন্মবার্ষিকীতে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের সমাধিতে ফুল দিয়ে
বিস্তারিত
ছয়দিনে কথিত বন্দুকযুদ্ধে অর্ধ শতাধিক
আইনশৃঙ্খলার বাহিনীর সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে আজসহ ছয়দিনে অর্ধ শতাধিক মানুষ
বিস্তারিত
রোহিঙ্গা শিশুদের দায়িত্ব পুরো বিশ্বকে
রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ যে ভালোবাসার নজির স্থাপন করেছে, তাতে
বিস্তারিত