তিনি বেঁচে ছিলেন ২৫৬ বছর!

‘পৃথিবীতে আমার যা যা করার কথা ছিল সবই আমি করেছি।’ মৃত্যুশয্যায় শেষ কথাটি বলে গিয়েছিলেন ২৫৬ বছর বাঁচা চীনের লি শিং ইউয়েন। অবিশ্বাস্য হলেও এটা যে সত্যি তার প্রমাণও আছে।

১৯৩০ সালে নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, চীনের চেংদু বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক য়ু চাং শি চায়না সাম্রাজ্যের কিছু নথি পেয়েছিলেন। তাতে দেখা যায়, ১৮২৭ সালে লি শিং ইউয়েনকে তার ১৫০তম জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছিল চীন সরকার।

আরেকটি নথিতে দেখা যায়, ১৮৭৭ সালে সরকারের পক্ষ থেকে লি শিং ইউয়েনকে ২০০তম জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানো হয়। তারও ৫৬ বছর পর মৃত্যুকে বরণ করেন এই চীনা।

জানা গেছে, ১৭৪৯ সালে ৭১ বছর বয়সে সেনাবাহিনীতে যোগ দেন লি শিং। সেখানে মার্শাল আর্ট বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিতেন তিনি। বিয়ে করেছিলেন মোট ২৩টি। সন্তানের সংখ্যা ছিল ২০০ জনেরও বেশি। নিজ সম্প্রদায়ে লি শিং ইউয়েন খুবই জনপ্রিয় ছিলেন। তিনি লিখতে ও পড়তে পারতেন।

তবে ১০ বছর বয়সেই তিনি চীনের কানসু, শানসি, তিব্বত, আনাম, সিয়াম ও মাঞ্চুরিয়া প্রদেশ ভ্রমণ করেন ওষুধি লতাপাতা সংগ্রহের জন্য। ১০০ বছর বয়স পর্যন্ত তা সংগ্রহ অব্যাহত রাখেন। এরপর সেগুলো বিক্রি করেই জীবিকা নির্বাহ করতেন এই চীনা।

লি চিং ইউয়েন ভাত থেকে তৈরি মদ ও ওষুধি লতাপাতা খেতেন। দীর্ঘ সময় বেঁচে থাকার রহস্য নিয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে লি চিং ইউয়েন একবার বলেছিলেন, ‘মনকে শান্ত রাখো, কচ্ছপের মতো বসো, কবুতরে ছন্দে হাঁটো আর কুকুরের মতো ঘুমাও।’


হাসি ও গম্ভীর মুখের পার্থক্য
আমরা কথায় কথায় কাউকে না কাউকে ছাগল বলে ফেলি। ছাগল
বিস্তারিত
স্কুলে শিক্ষক একজন, শিক্ষার্থীও এক!
ভারতের কলকাতার ঝাঁ চকচকে গুরুগ্রাম (গুরগাঁও) থেকে মাত্র ৬০ কিমি
বিস্তারিত
হাতে হেঁটে ১০ কিমি. পাড়ি!
প্রবল ইচ্ছাশক্তির কঠিন পরীক্ষা দিয়েছেন সোলায়মান মাগোমেদয়। রাশিয়ার দাগেনস্টানের ৫৩
বিস্তারিত
৬৬ বছর পর নখ কাটলেন
হাতের নখ কাটাতে ভারতের পুনে থেকে নিউ ইয়র্কে উড়ে গেলেন
বিস্তারিত
দুই মাথাওয়ালা বাছুর দুধ পান
দুই মাথাওয়ালা এই বাছুরের জন্ম হয়েছে ব্রাজিলের গোইয়া প্রদেশের কাইয়াপোনিয়া
বিস্তারিত
১৮৫ কেজি ওজনের উড়ন্ত মাছ!
গল্পের মতো মনে হলেও সত্যি। মাছও উড়তে পারে। এতদিন নাম
বিস্তারিত