বিশ্ব আইটি সম্মেলনের পর্দা নামছে আজ

তাইওয়ানের তাইপে ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে (টিআইসিসি) ১০ সেপ্টেম্বর শুরু হওয়া ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস অন ইনফরমেশন টেকনোলজির (ডব্লিউসিআইটি) ২১তম সম্মেলন শেষ হচ্ছে আজ। তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট টাসি ইং-ওয়েন ১১ সেপ্টেম্বর সকালে তিন দিনের এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন তাইওয়ানের পলিটিক্যাল কমিশনার উ জেং জং, কাউন্সিলর এড্রি ট্যাং, অর্থনীতিবিষয়ক মন্ত্রী জং-চিন সেন, তাইপের মেয়র কো ওয়েন-জে, উইটসা চেয়ারম্যান ইভোনি চিউ প্রমুখ।
প্রেসিডেন্ট টাসি ইং-ওয়েন তার বক্তব্যে বলেন, ১৭ বছর পর তাইওয়ানে আবার শুরু হয়েছে তথ্যপ্রযুক্তির এ বিশ^ সম্মেলন। এ সময়ের মধ্যে প্রযুক্তিগতভাবে তাইওয়ান অনেক এগিয়েছে। এখন আমরা একটা ডিজিটাল জাতি গঠনের কাছাকছি পৌঁছে গেছি। তিনি বলেন, তাইওয়ান এখন হার্ডওয়্যার শিল্পের জন্য ইনোভেটিভ উদ্ভাবনের দিকে মনোযোগ দিয়েছে। তাই ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি) এবং আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই) নিয়ে এখন আমরা কাজ করছি। এর আগে ১০ সেপ্টেম্বর বিকালে তাইওয়ানের অর্থনীতিবিষয়ক মন্ত্রী জং-চিন সেন ডব্লিউসিআইটি সম্মেলনে আগত অতিথিদের ‘ওয়েলকাম রিসেপশন’ প্রোগ্রামের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে তাইওয়ানে স্বাগত জানান। এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন সম্মেলনের আয়োজক ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সার্ভিস অ্যালায়েন্সের (উইটসা) চেয়ারম্যান ইভোনি চিউ, ডেপুটি চেয়ারম্যান ড. রায়ুুল কোলচার, পরিচালক মোঃ সবুর খান প্রমুখ।  মন্ত্রী জং-চিন সেন এ সময় তাইওয়ানকে এবারের সম্মেলনের হোস্ট কান্ট্রি নির্বাচিত করায় আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান এবং তাইওয়ানের ভবিষ্যৎ প্রযুক্তিগত উন্নয়নে এ সম্মেলন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশা প্রকাশ করেন। উইটসা চেয়ারম্যান ইভোনি চিউ জানান, আগামী ২০১৮ সালের ডব্লিউসিআইটি সম্মেলন ১৯ থেকে ২১ ফেব্রুয়ারি ভারতের হায়দরাবাদে অনুষ্ঠিত হবে। ২০১৯ সালে তথ্যপ্রযুক্তির এ বিশ^ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে আর্মেনিয়ায় এবং ২০২০ সালে অনুষ্ঠিত হবে মালয়েশিয়ায়। এরপরই ২০২১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর বছর বাংলাদেশে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এ সম্মেলন সুষ্ঠুভাবে আয়োজন এবং বিশ^বাসীর কাছে বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অগ্রগতি তুলে ধরার জন্য এরই মধ্যে কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। তাইপে থেকে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির মহাসচিব সুব্রত সরকার জানান, বাংলাদেশের ৫৩ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল এবারের বিশ্ব আইটি সম্মেলনে অংশ নিয়েছে। প্রতিনিধিদলে বিসিএস সদস্য প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা ছাড়াও সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং সংবাদ মাধ্যমের সদস্যরা অংশ নিয়েছেন। দেশের বাইরে তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক কোনো অনুষ্ঠানে এ পর্যন্ত এটিই বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় প্রতিনিধিদল অংশগ্রহণ করছে। তাছাড়া সম্মেলনের পাশাপাশি বাংলাদেশী প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য সেবা ও পণ্য প্রদর্শনের জন্য একটি সুপরিসর প্যাভিলিয়ন স্থাপন করা হয়েছে বলে প্রদর্শনীস্থল থেকে ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স সংক্রান্ত দায়িত্বপালনকারী বিসিএস পরিচালক শাহিদ-উল-মুনীর জানান। সেখানে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বিনির্মাণসংবলিত তথ্যপ্রযুক্তিতে বাংলাদেশের অগ্রগতি’র হালনাগাদ চালচিত্র বিশ্ব-তথ্যপ্রযুক্তিবিদদের কাছে তুলে ধরার ব্যবস্থা করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, এবারের ডব্লিউসিআইটি-২০১৭ সম্মেলনের পাশাপাশি একই সময়ে এশিয়ান-ওশেনিয়ান কম্পিউটিং ইন্ডাস্ট্রি অর্গানাইজেশন (অ্যাসোসিও) আইসিটি সামিট-২০১৭ এবং এশিয়া প্যাসেফিক কাউন্সিল ফর ট্রেড ফ্যাসিলিটেশন অ্যান্ড ইলেকট্রনিক বিজনেস (এএফএসিটি) প্ল্যানারি মিটিং ২০১৭ অনুষ্ঠিত হয়। ১০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হয় অ্যাসোসিও জেনারেল অ্যাসেম্বলি। এতে বর্তমান বিসিএস সভাপতি ও অ্যাসোসিও ভাইস চেয়ারম্যান আলী আশফাক এবং সাবেক বিসিএস সভাপতি ও সাবেক অ্যাসোসিও চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ এইচ কাফীর একাধিক প্রস্তাবনাগ্রহণপূর্বক আগামী বছর থেকে ‘অ্যাসোসিও আইসিটি সামিট’ শিরোনাম পাল্টিয়ে ‘অ্যাসোসিও জিডিটাল সামিট’ আয়োজনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।


টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র নিয়ে পড়াশোনা
টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র দুই-ই মানুষের ওপর শক্তিশালী প্রভাব বিস্তার
বিস্তারিত
হেমন্ত সাদিকের ‘এ লেটার টু
হলিউডে অনুষ্ঠিত চলচ্চিত্র প্রতিযোগিতা রিল টু রিল গ্লোবাল ইয়ুথ ফিল্ম
বিস্তারিত
অফিস হোক স্ট্রেস ফ্রি
অফিস মানেই কি স্ট্রেস? অনেক কাজের চাপ, বসের বকাঝকা, সহকর্মীদের
বিস্তারিত
আইসিটি খাতের সাফল্য তুলে ধরা
সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আয়োজনে অনুষ্ঠিত এবারের ডিজিটাল
বিস্তারিত
স্বাচ্ছন্দ্যময় ব্লু-টুথ হেডফোন
জাবরা ব্র্যান্ডের ব্লু-টুথ হেড ফোন বাজারে আনল আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান টেক
বিস্তারিত
এলজির নতুন গেমিং মনিটর
এলজির নতুন আল্ট্রা ওয়াইড ফুল এইচডি গেমিং মনিটর আনল গ্লোবাল
বিস্তারিত