বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা সিইডিএ-ডিএমআর’র প্রশিক্ষণ

সিইডিএ এবং অ্যাকসেস অ্যালামনাই সোসাইটি অব বাংলাদেশ (এএএসবি) এর যৌথ উদ্যোগে প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৮ নভেম্বর ঢাকা আমেরিকান সেন্টারে এ  কর্মশালা হয়। এটি জাতিসংঘের টেকশই উন্নয়ন লক্ষ্যের আওতাধীন ১৭ নম্বর লক্ষ্য পূরণের সম্পূরক হিসেবে অবদান রয়েছে। ঢাকার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা কর্মশালায় অংশগ্রহণ করে। 

অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস এবং সিভিল ডিফেন্স’র পরিচালক এ. কে. এম. শাকিল নেওয়াজ ভূমিকম্পের পরবর্তী ব্যবস্থাপনার উপর বক্তব্য রাখেন। ভূমিকম্পের কারণ এবং পরবর্তী দুর্যোগের ওপর আলোকপাত করে তিনি উন্নত এবং উন্নয়নশীল দেশগুলোর দুর্যোগ প্রশমন ব্যবস্থাপনার তুলনামূলক চিত্র তুলে ধরেন। দুর্যোগ প্রশমন এবং দুর্যোগ পরবর্তী পুনর্বাসন ব্যবস্থা সম্পর্কেও তিনি আলোচনা করেন যা সেমিনারে আগত অংশগ্রহণকারীদের জন্য কৌতুহলোদ্দীপক ছিল।

এরপর বক্তব্য রাখেন এএএসবি’র বর্তমান সভাপতি মুহাম্মদ ফেরদৌস। কমিউনিটি কলেজ ইনিশিয়েটিভ প্রোগ্রাম নামক একটি এক বছর মেয়াদী ফেলোশিপ সম্পর্কে আলোকপাত করেন যা মূলত নয়টি বিষয়ে দেয়া হবে। অন্য আরেকটি স্কলারশিপ যা একটি সেমিস্টার ব্যাপি ছাত্র-ছাত্রীদের আমেরিকায় পড়ার সুযোগ দিয়ে থাকে য়ার নাম ‘গ্লোবাল ইউগ্র্যাড’। এ দুটি সুযোগ আমেরিকার স্টেট ডিপার্টমেন্ট করে দিয়ে থাকে।

অনুষ্ঠানে পরবর্তী পর্যায়ে সেফটি স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা ও কার্যনির্বাহী পরিচালক ও সিএলবিটি প্রশিক্ষক মোহাম্মদ সাখাওয়াত হোসেন অগ্নিকান্ড ও অগ্নিনির্বাপন সম্পর্কে আলোচনা করেন। তিনি অগ্নিকান্ডের কারণ ও অগ্নিনির্বাপণ সামগ্রী ও তাদের বৈশিষ্ট, অগ্নিনির্বাপক সমূহের আন্তর্জাতিক কালার কোড ও যথাযথ ব্যবহার বিধি সম্পর্কে আলোকপাত এবং ফায়ার সার্ভিসের যোগাযোগ নম্বর মুখস্থ করার মত প্রাণবন্ত সেশন উপহার দিয়েছেন।

এরপর সিইডিএ’র সেক্রেটারি জেনারেল ও ডিএমআর’র প্রতিষ্ঠাতা জাকারিয়া আলম একটি প্রেজেন্টেশান প্রদান করেন। সেখানে তিনি বাংলাদেশ এর বিভিন্ন দুর্যোগ ও দুর্ঘটনার তথ্যমূলক সচিত্র বিবরণী তুলে ধরেন। অতঃপর প্রাথমিক চিকিৎসার সেবা বিষয়ক একটি বেসিক ট্রেনিং অনুষ্ঠিত হয়।

পুরো অনু্ষ্ঠান জুড়েই ছাত্র-ছাত্রীরা দুর্যোগ পুর্ববর্তী, পরবর্তী ও প্রশমন ব্যবস্থাপনা এবং সেচ্ছাসেবা সম্পর্কে জানতে পারে। অনুষ্ঠানের এক পর্য়ায়ে সোনিয়া জামান, মুহাম্মদ ফেরদৌস, মিজান রহমান এবং রিয়াজুল কবির কে সামজিক উন্নয়ন কর্মকান্ডে অবদান রাখার জন্য বিশেষ সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

সিইডিএ-ডিএমআর ভলান্টিয়া উইং কো-ফাউন্ডার এফ. কে. এম তানভীর, মেহেদি হাসান রাব্বী এবং মো. জাওয়াদুল ইসলাম খান সোহান নিজ নিজ পরিচয় দেন এবং ‘বন্যর্তদের সেবায় একদিন’ ইভেন্টে তাদের অবদান তুলে ধরেন। এই ইভেন্টে যারা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন তাদের কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। সর্বশেষে ভলান্টিয়ারদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ করা হয়।


সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো কলেজ
শিক্ষক ও অভিভাবকদের প্রাণান্ত প্রচেষ্টার পরও বাঁচানো গেল না কুমিল্লা
বিস্তারিত
কলকাতায় সংবর্ধিত হবেন ৩০ মুক্তিযোদ্ধা
কলকাতায় বিজয় দিবসের উৎসবে ৩০ জন মুক্তিযোদ্ধা ও ছয়জন সেনা
বিস্তারিত
গাজীপুরে ভাগনি হত্যায় মামার ফাঁসির
গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় সাত বছরের ভাগনিকে হত্যার দায়ে মামাকে ফাঁসির
বিস্তারিত
ঢাকা আহছানিয়া মিশন এর শিশু
বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে ঢাকা আহছানিয়া মিশন কর্তৃক পরিচালিত সেকেন্ড চান্স
বিস্তারিত
তিস্তার চরে আলু ক্ষেত পরিচর্যায়
পাঁচ থেকে ছয় দিন পরেই রংপুরের বাজারে  আগাম আলু উঠতে
বিস্তারিত
মেয়র পদে আওয়ামীলীগ-বিএনপির মনোনয়ন পত্র
রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগ মনোনীত সাবেক মেয়র
বিস্তারিত