কুমড়ো বড়িতে সচ্ছলতা

শীতকালীন শাকসবজির পাশাপাশি ভোজনপ্রিয়দের কাছে অত্যন্ত প্রিয় ‘কুমড়ো বড়ি’। সুস্বাদু এ বড়ি তৈরি করে খ্যাতি অর্জন করেছেন বগুড়ার গ্রামীণ গৃহবধূরা। তারা কুমড়োর বড়ি বিক্রি করে সংসারে ফিরিয়ে এনেছেন সচ্ছলতা। স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে তাদের তৈরি কুমড়ো বড়ি সরবরাহ করা হচ্ছে দেশের বিভিন্ন এলাকায়। বিভিন্ন তরকারির সঙ্গে কুমড়ো বড়ি মিশিয়ে রান্না করলে খাবারে এনে দেয় ভিন্ন রকমের স্বাদ।

গ্রামেগঞ্জে-শহরে সবখানেই সমান জনপ্রিয় এ কুমড়ো বড়ি। শীতকালে হাটবাজারে ব্যাপক হারে কুমড়ো বড়ি পাওয়া যায়। শীত আসার সঙ্গে সঙ্গে বগুড়ার বিভিন্ন গ্রামে কুমড়ো বড়ি তৈরির ব্যস্ত হয়ে পড়েন গৃহবধূরা। সবচেয়ে বেশি কুমড়ো বড়ি তৈরি হয় নন্দীগ্রাম উপজেলার হাটধুমা গ্রামে।
এ গ্রামের প্রায় প্রতিটি বাড়িতেই তৈরি হচ্ছে কুমড়ো বড়ি। সারা রাত পানিতে মাষকলাইয়ের ডাল ভিজিয়ে রাখার পর তা পাটায় পিষে প্রতিদিন ভোরে গ্রাম্য বধূরা পাতলা কাপড়ের ওপর বিছিয়ে দিয়ে রোদে শুকান। দেড় থেকে দুই দিন শুকানোর পর কুমড়ো বড়ি খাওয়ার উপযোগী হলে বিভিন্ন দোকানে পাইকারি এবং খুচরা বিক্রি করা হয়। কখনও কখনও বড় মহাজন ও ছোট দোকানিরা নিজেরাই এসে গ্রাম থেকে এসব বড়ি কিনে নিয়ে যান।

নন্দীগ্রাম উপজেলার কয়াপাড়া, চাঁনপুরা, কল্যাণনগর, নুনদহ, হাটধুমাসহ বিভিন্ন গ্রামে এখন কুমড়ো বড়ি তৈরির ধুম পড়েছে। হাটধুমা গ্রামের জাহানারা বেগম জানান, ‘কুমুর বড়ি (কুমড়ো বড়ি) তৈরি করতে প্রধান উপাদান হিসেবে ব্যবহার করা হয় মাষকলাইয়ের ডাল। এটি আসল কুমুর বড়ি। এর সঙ্গে চাল মিশিয়ে যে বড়ি তৈরি করা হয়, তার কদর থাকলেও মান ভালো নয়।’

একই গ্রামের কুমড়ো বড়ি বিক্রেতা আছির উদ্দিন জানান, মাষকলাই থেকে তৈরি কুমড়ো বড়ি প্রতি কেজি ৩০০ টাকায় বিক্রি করা হয়। আর মাষকলাই ও চাল মেশানো কুমড়ো বড়ি ২০০ টাকা কেজি বিক্রি করা হচ্ছে। এছাড়া নিম্নমানের কুমড়ো বড়ি প্রতি কেজি ৮০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি করা হয়। নভেম্বর-ডিসেম্বর কুমড়ো বড়ি তৈরির উপযুক্ত সময়। এ ২ মাসে যতটুকু কুমড়ো বড়ি উৎপাদন করা হয়, তা বছরজুড়ে বিক্রি হয়।

 তিনি জানান, এ উপজেলা ছাড়াও নাটোর, পাবনা, সিরাজগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলার পাইকারি ব্যবসায়ীরা এসে কুমড়ো বড়ি কিনে নিয়ে যান। ঘরে বসে কুমড়ো বড়ি তৈরি করে জেলার অসংখ্য গৃহবধূর সংসারে সচ্ছলতা ফিরে এসেছে।


তামাক নিয়ন্ত্রণ: সরকারি অনুদানে নির্মিত
ছোটবেলায় সিনেমা হলে গিয়ে অনেক ছবি দেখতাম। চলচ্চিত্রের একটা অদৃশ্য
বিস্তারিত
ভোলায় প্রান্তিক মানুষের আস্থা গ্রাম
ভোলায় ৫ টি উপজেলার ৪৬ টি ইউনিয়ন পরিষদে গ্রাম আদালতের
বিস্তারিত
পঞ্চাশ বছর ধরে শিক্ষার আলো
কোথাও খোলা উঠুনে চাটাই পেতে। আবার কোথাও কারো বাড়ির বারান্দায়।
বিস্তারিত
রংপুরে শিম চাষে কৃষকের সাফল্য
রংপুর জেলায় শিম চাষ করে সাফল্যের মুখ দেখছে কৃষকরা। অপরদিকে
বিস্তারিত
কিশোরগঞ্জের হাওরে নির্মিত হচ্ছে স্বপ্নের
কিশোরগঞ্জের হাওর অঞ্চলে প্রায় ৯ শ’ কোটি টাকা ব্যয়ে সারা
বিস্তারিত
জলের ফলে দিন বদল
নদী মাতৃক এই দেশ। সারা দেশে জালের মতো ছড়িয়ে রয়েছে
বিস্তারিত