লাউ চাষে সফল কৃষক

রাস্তার পাশে লাউ চাষ করে সাফল্য এসেছে সাতক্ষীরার তালা উপজেলার তেরছি গ্রামর শৌখিন কৃষকের। প্রথমে শখের বসে লাউয়ের আবাদ করলেও এখন রীতিমত বাণিজ্যিক ভিত্তিতে আবাদ করছেন তারা। তেরছি গ্রামের মাঠে প্রায় ৩০০ ফুট রাস্তার ধারে বেড়া দিয়ে গড়ে ওঠা লাউয়ের মাচা তাদের অর্থনৈতিক সাফল্য এনে দিয়েছে। পাশাপাশি নজর কাড়ছে পথচারীদের। তাদের দেখে এলাকার অনেকে এখন সাদা জমিতেও আবাদ করছেন লাউয়ের।

তেরছি বাজার থেকে মদনপুর মহাসড়ক অভিমুখী প্রায় ২০০ ফুট রাস্তার দুই পাশে গড়ে ওঠা পৌষি লাউয়ের মাচা ওই এলাকার শৌখিন চাষিকে পথ দেখিয়েছে। ফেলে রাখা পতিত জমিতে মৌসুমি সবজি চাষে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হচ্ছেন তারা। অগ্রহায়ণের মাঝামাঝিতে চারা রোপণ করেন এখানকার কৃষকরা। ফলে বাজারে তাদের লাউ আগাম আসে। উৎপাদনও নজর কাড়া, দামও ভালো। এখন পর্যন্ত বাজারে পর্যাপ্ত লাউ না উঠলেও তাদের উৎপাদিত লাউয়ে বাজার সয়লাব। প্রতি পিস লাউ ২০ থেকে ২৫ টাকা পর্যন্ত দামে বিক্রি করছেন তারা। রাস্তার পাশে যার যার জমির মাথা, তার তার আবাদ- এ নিয়ে কারও সঙ্গে কারও গোলযোগ নেই। এ যেন বিকল্প পদ্ধতিতে পতিত জমিতে কৃষি বিপ্লবের এক নতুন সূচনা।

প্রতিদিন রাস্তা দিয়ে শত শত পথচারীর নজর কাড়ে লাউয়ের আবাদ। চাষি মোঃ আজগর মোল্লা জানান, লাউ আবাদে শত শত মানুষের নজর কাড়লেও স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তাদের এখনও দৃষ্টিগোচর হয়নি। এখন পর্যন্ত কোনো পরামর্শ পাননি তারা। নিজেদের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়েই তাদের বৈপ্লবিক চ্যালেঞ্জ বলে মনে করেন তিনি।

 তিনি আরও জানান, প্রথমত নিতান্তই শখের বসে রাস্তার পাশে বাঁশের কঞ্চি বা গাছের ডাল পুঁতে বেড়া দিয়েই শুরু করেছিলেন লাউয়ের চারা রোপণ। অগ্রহায়ণ থেকে ফাল্গুন পর্যন্ত স্থায়ী হয় এ গাছ। পোকা-মাকড়ের হাত থেকে রক্ষা পেতে সপ্তাহে এক দিন কীটনাশক ও ওন্ডার স্প্রে করেন তারা। আর এতেই পোকার আক্রমণের হাত থেকে রক্ষার পাশাপাশি স্থানীয় গবাদি পশুর হাত থেকেও রক্ষা মেলে। সবচেয়ে বড় কথা লাউয়ের এ পরিকল্পিত আবাদে তাদের কোনো বাড়তি শ্রমিক নিয়োগ করতে হয় না। নিজেরাই নিজেদের ক্ষেতের শ্রমিক।

সব মিলিয়ে ভালো আছেন তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের এ শৌখিন লাউ চাষিরা। তারা এখন এলাকার মডেল চাষি। তারা মনে করেন সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা পেলে পরিকল্পিত প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে কৃষিকে নিয়ে যেতে পারতেন অনন্য উচ্চতায়।


মায়ের দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে ছেলের
সাধারণত মা দ্বিতীয় বিয়ে করলে আগের ঘরের সন্তানেরা অখুশি হন।
বিস্তারিত
রাব্বীর টিউশনির গল্প সিনেমাকেও হার
ছাত্র জীবনে টিউশনি করানোর অভিজ্ঞতা অনেকেরই আছে, সেগুলো কখনো তিক্ত,
বিস্তারিত
তোমার কারণে তোমার বউমার অসুবিধা
সংসার সন্তান-সন্তুতি, টাকা, বাড়ি-গাড়ি তাদের সবই ছিল। কিন্তু আজ তাদের
বিস্তারিত
যে নারী পুরুষের প্রিয় হতে
কিছুদিন আগে এক ভারতীয় নারী বন্ধু আমাকে প্রশ্ন করেছিল, ‘আমি
বিস্তারিত
নরীর পাশবিক নির্যাতনের প্রতিকার কি?
সখি ভালবাসা কারে কয়-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের এ গানটির আমরা প্রায় সবাই
বিস্তারিত
আবারও প্রমাণ করলেন ‘গরিবের বন্ধু
একজন মানুষ, কাজ অনেক। অসহায় দরিদ্র, অবহেলিত, শিক্ষা বঞ্চিত মানুষের
বিস্তারিত