কুমড়োবড়িতে আত্মনির্ভরশীল কেশবপুরে গৃহবধূরা

যশোরের কেশবপুর উপজেলার ঘরে ঘরে এখন কুমড়োবড়ি তৈরির ধুম পড়েছে। এ বড়ি তৈরি করে অজপড়াগাঁয়ের গৃহবধূরা খুঁজে পেয়েছেন আত্মনির্ভরশীলতার পথ। শুধু গৃহবধূরাই নন, স্কুল-কলেজপড়ুয়া মেয়েরাও কুমড়োবড়ি তৈরি করে তাদের লেখাপড়ার খরচ জোগাচ্ছেন। আর তাদের তৈরি কুমড়োবড়ি স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে রাজধানীসহ বিভিন্ন শহরে সরবরাহ করা হচ্ছে। প্রতি বছর শীত মৌসুমে গৃহবধূ ও স্কুল-কলেজপড়ুয়া মেয়েরা চালকুমড়োর সঙ্গে মাষকলাই ও বিভিন্ন সবজি মিশিয়ে তৈরি করেন কুমড়োবড়ি। এ কাজে তারা সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ব্যস্ত সময় পার করেন।

সরেজমিন উপজেলার ব্রহ্মকাটি, রামচন্দ্রপুর, ব্যাসডাঙ্গা, সুজাপুর, মাগুরখালী, পাঁজিয়া, কর্ন্দপপুর, গৌরিঘোনা, কলাগাছি, ময়নাপুর, আড়ুয়া, কাটাখালী, দেউলি, বাগদাহ, সাবদিয়া, কুশুলদিয়া, শ্রীফলা, ভান্ডারখোলা, হাসানপুর, বগা, সাগরদাঁড়ি, ধর্মপুর, ফতেপুর, প্রতাপপুর, শিকারপুর, ভালুকঘর, শ্রীরামপুর, বায়সা, জাহানপুর, সাতবাড়িয়া, ত্রিমোহিনী, বরণডালি, মূলগ্রাম, বেগমপুর, মধ্যকুল, হাবাসপোল, বালিয়াডাঙ্গাসহ বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে দেখা গেছে, ওইসব গ্রামের গৃহবধূদের পাশাপাশি স্কুলপপড়ুয়া মেয়েরা কুমড়োবড়ি তৈরি করে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

 চিংড়া গ্রামের গৃহবধূ আমেনা বেগম জানান, প্রতি বছর শীত এলে চালকুমড়ো আর মাষকলাই মিশিয়ে তৈরি করা হয় কুমড়োবড়ি। ফতেপুর গ্রামে আছিয়া বেগম বলেন, চালকুমড়োর বড়ি খেতে খুবই মজা। এখানকার গৃহবধূদের তৈরি কুমড়োবড়ি নিজেদের চাহিদা মিটিয়ে বাজারে বিক্রি করা হয়।

গড়ভাঙ্গা গ্রামের রুমিছা বেগম বলেন, নাওয়া-খাওয়া বাদ দিয়ে সকাল-সন্ধ্যা কুমড়োবড়ি তৈরির কাজে ব্যস্ত সময় পার করছি।

বাগদাহ গ্রামের আকলিমা বেগম বলেন, প্রতি বছর শীত মৌসুমে কুমড়োর সঙ্গে মাষকলাই ও বিভিন্ন সবজি রাতে ভিজিয়ে রেখে পরদিন সকালে বড়ি তৈরি করি। এ বড়ি ১২০ থেকে ১৫০ টাকা কেজিদরে বিক্রি করে সংসারে আর্থিকভাবে সহযোগিতা করছি।

জাহানপুর গ্রামের আলেয়া বেগম বলেন, রাতভর মাষকলাই ভিজিয়ে রেখে পরদিন সকালে বেঁটে পেস্ট করে চাল কুমড়োর পেস্টের সঙ্গে মিশিয়ে পরিষ্কার কাপড়ের ওপর ছোট ছোট করে বসিয়ে দেন। পরে তা রোদে শুকিয়ে খুব যত্ন করে রেখে দেন পাত্রে ভরে। এ বড়ি ব্যাপক পুষ্টিগুণ থাকায় শহরের লোকজন খেতে খুব ভালোবাসেন। তাই স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে রাজধানীসহ সারা দেশে যাচ্ছে এখানকার গৃহবধূদের তৈরি কুমড়োবড়ি। এ বড়ি এখানকার গৃহবধূদের আত্মনির্ভশীলতার পথ দেখাচ্ছে।

 


তামাক নিয়ন্ত্রণ: সরকারি অনুদানে নির্মিত
ছোটবেলায় সিনেমা হলে গিয়ে অনেক ছবি দেখতাম। চলচ্চিত্রের একটা অদৃশ্য
বিস্তারিত
ভোলায় প্রান্তিক মানুষের আস্থা গ্রাম
ভোলায় ৫ টি উপজেলার ৪৬ টি ইউনিয়ন পরিষদে গ্রাম আদালতের
বিস্তারিত
পঞ্চাশ বছর ধরে শিক্ষার আলো
কোথাও খোলা উঠুনে চাটাই পেতে। আবার কোথাও কারো বাড়ির বারান্দায়।
বিস্তারিত
রংপুরে শিম চাষে কৃষকের সাফল্য
রংপুর জেলায় শিম চাষ করে সাফল্যের মুখ দেখছে কৃষকরা। অপরদিকে
বিস্তারিত
কিশোরগঞ্জের হাওরে নির্মিত হচ্ছে স্বপ্নের
কিশোরগঞ্জের হাওর অঞ্চলে প্রায় ৯ শ’ কোটি টাকা ব্যয়ে সারা
বিস্তারিত
জলের ফলে দিন বদল
নদী মাতৃক এই দেশ। সারা দেশে জালের মতো ছড়িয়ে রয়েছে
বিস্তারিত