আধুনিক পদ্ধতিতে টমেটো চাষে মুন্সীগঞ্জের কৃষকরা সফল

মুন্সীগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলায় টমেটো চাষে কৃষকদের আগ্রহ ক্রমেই বাড়ছে। গত দুই বছর আলুতে লোকসান হওয়ায় মুন্সীগঞ্জের অনেক কৃষক এই বছর টমেটো চাষের দিকে ঝুঁকছেন। কোনরকম ক্ষতিকারক কীটনাশক ব্যবহার না করে সম্পূর্ণ আধুনিক পদ্ধতিতে তারা টমেটোর আবাদ করছেন।

জেলা কৃষি কর্মকর্তা বলেছেন, মুন্সীগঞ্জের টমেটো চাষিরা রাসায়নিক কীটনাশকের পরিবর্তে জৈব কীটনাশক ব্যবহার করছেন।
 
জেলার মুন্সীগঞ্জ সদর, গজারিয়া, টঙ্গীবাড়ী, সিরাজদিখান ও শ্রীনগর উপজেলায় এবার টমেটোর আবাদ হয়েছে। মুন্সীগঞ্জ সদরের মহাকালী ইউনিয়নের দক্ষিণ মহাকালী গ্রামের সাতানিখিল চকে কমপক্ষে ৪০-৫০ জন কৃষক সারিবন্ধভাবে টমেটো আবাদ করেছেন।

টমেটোর জমি দেখলে মনে হবে এ যেন টমেটোর বাগান। টমেটোর বাগানে এখন সবুজের সমারোহ। দুই-একজন কৃষক তাদের জমির টমেটো বিক্রি করলেও অধিকাংশ কৃষকের টমেটো এখনো বিক্রি উপযোগী হয়ে উঠেনি। আর ক’দিন পরেই তারা তাদের জমি থেকে টমেটো তুলে বিক্রি শুরু করবেন।
জমিতে এসেই পাইকাররা টমেটো কিনে নিয়ে মুন্সীগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জসহ ঢাকার বিভিন্ন পাইকারি আড়তে নিয়ে বিক্রি করবেন বলে জানা গেছে। আর টমেটো গাছের পরিচর্যায় স্থানীয়সহ রংপুর ও কুড়িগ্রামের নারী শ্রমিকেরাও কাজ করছেন।

মুন্সীগঞ্জের দক্ষিণ মহাকালী গ্রামের একাধিক টমেটো চাষিরা জানালেন, টমেটোর চাষে লাভবান হওয়ায় এই বছর টমেটোর আবাদ আরো বেড়েছে। তারা কোন ক্ষতিকারক কীটনাশক ব্যবহার করছেন না। যেসব গাছে ক্ষতিকারক কীটনাশক ব্যবহার করা হয়, সেসব গাছের টমেটোর মধ্যে বোটা পাওয়া যাবে না।

কৃষক মামুন বলেন, মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার শেষ সীমান্তবর্তী চর কিশোরগঞ্জ এলাকায়ও টমেটো চাষ করেছেন এবার অনেক কৃষক। ঐ এলাকার কৃষকরা ইতোমধ্যে সদর উপজেলার সবজি বাজারে এবং ঢাকা, নারায়ণগঞ্জে পাইকারি বাজারে টমেটো বিক্রি করছেন লাভের মুখও দেখছেন তারা।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. হুমায়ুন কবীর জানালেন, রাসায়নিক কীটনাশকের পরিবর্তে জৈব কীটনাশক ব্যবহার করে মুন্সীগঞ্জের কৃষকেরা টমেটোর আবাদ করছেন এবং ক্ষতিকারক কোন ছত্রাকনাশক বা কীটনাশক প্রয়োগ করছেন না।

এদিকে, জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানিয়েছে, মুন্সীগঞ্জে সোনালী, ক্যাপ্টেন, মানিক, রতন, মিন্টু সুপারসহ বিভিন্ন জাতের টমেটো হয়ে থাকে। গত বছর জেলায় ২০২ হেক্টর জমিতে টমেটোর আবাদ হয়েছিল। এই বছর তা বেড়ে ২০৯ হেক্টর জমিতে টমেটোর চাষ হয়েছে এবং এখনো আবাদ শেষ হয়নি। এই বছর টমেটোর আবাদ প্রায় ৩০০ হেক্টর ছাড়িয়ে যাবে।


উলিপুরের চরাঞ্চলে তিসি চাষে কৃষকের
কুড়িগ্রামের উলিপুরে এবারে তিসি চাষ এর বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা দেখছে
বিস্তারিত
উলিপুরের চরাঞ্চলে ভুট্টাচাষের উজ্জ্বল সম্ভাবনা
কুড়িগ্রামের উলিপুরে বিভিন্ন নদ-নদীর অববাহিকায় জেগে উঠা চর সমুহে ভুট্টা
বিস্তারিত
নকলায় হাঁসের খামারে দিন বদল
অভিজ্ঞতা আর কঠোর পরিশ্রমের ফলে যেকোন কাজে যে কেউ স্বাবলম্বী
বিস্তারিত
কৃষকদের আশার আলো দেখাচ্ছে বারি
চাষের অনুকুল আবহাওয়া ও চাষ উপযোগি মাটি থাকা সত্ত্বেও এদেশে
বিস্তারিত
শেরপুরে নতুন পেঁয়াজে মিলছে কাঁচা
দেশে পেঁয়াজের দাম নিয়ে অস্থিরতা যখন ক্রমেই বাড়ছে, ঠিক তখনই
বিস্তারিত
পরিত্যক্ত প্লাস্টিক পণ্যে আসছে টাকা,
মানুষের ব্যবহার্য্য প্লাস্টিকসহ বিভিন্ন পরিত্যক্ত পণ্যের কারনে প্রতি মুহুর্তে পরিবেশ
বিস্তারিত