জিআরই জিম্যাট উচ্চশিক্ষার সহায়

উচ্চশিক্ষার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো এখন বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের প্রথম পছন্দ। প্রকৌশল হোক কিংবা বাণিজ্য হোক দেশে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের পড়াশোনা শেষ করেই শিক্ষার্থীরা মাস্টার্স বা পিএইচডি অর্জনের জন্য বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় আবেদন শুরু করেন।
জিআরই, জিম্যাট দুটি পরীক্ষাই যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশে স্নাতকোত্তর পর্যায়ে ভর্তির জন্য প্রাথমিক শর্তগুলোর একটি। এমবিএ কিংবা বাণিজ্যের বিষয়গুলোতে পড়ার জন্য জিম্যাট স্কোর জরুরি শর্ত। অন্য যে-কোনো বিষয়ে পড়তে জিআরই স্কোর গুরুত্বপূর্ণ। বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি, স্কলারশিপ ও ফান্ডিং অনেক ক্ষেত্রে নির্ভর করে এ দুই পরীক্ষার স্কোরের ওপর।
জিআরই
গ্র্যাজুয়েট রেকর্ডস এক্সামিনেশনসের সংক্ষিপ্তরূপ জিআরই। যুক্তরাষ্ট্রের এডুকেশনাল টেস্টিং সার্ভিস (ইটিএস) এ পরীক্ষার তত্ত্বাবধায়ক। ইটিএস অনুমোদিত নির্ধারিত পরীক্ষার কেন্দ্রে কম্পিউটারের মাধ্যমে পরীক্ষা দিতে হয়। ছয়টি অংশে বিভক্ত এ পরীক্ষার মোট সময় তিন ঘণ্টা ৪৫ মিনিট। 
লিখিত পরীক্ষা : পরীক্ষার শুরুতে দুটি নিবন্ধ লিখতে হয়। ইস্যু টাস্ক ও আরগুমেন্ট টাস্ক নামের এ অংশে বরাদ্দ ৩০ মিনিট করে মোট এক ঘণ্টা সময়। ইস্যু টাস্কে একটি বিষয়ে দুটি বক্তব্য দেওয়া হয়। সেই বক্তব্যের পক্ষে বা বিপক্ষে যুক্তি লিখতে হয়। পরের অংশে আরগুমেন্ট টাস্কে একটি বিষয়ে বক্তব্য তুলে ধরা হয়। যুক্তি দিয়ে সেই বক্তব্যের পেছনের কারণ আলোচিত দিক, দুর্বলতা বা শক্তি সম্পর্কে লিখতে হয়। শূন্য থেকে ৬ নম্বরের মধ্যে স্কোর দেওয়া হয়। 
ভারবাল রিজনিং : দুটি ভাগে বিভক্ত এ অংশের জন্য মোট ৬০ মিনিট বরাদ্দ। ৩০ মিনিটে আলাদাভাবে দুই অংশে ২০টি করে ৪০টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়। এ অংশে এমসিকিউ ধরনের শূন্যস্থান পূরণ, বাক্য সম্পূর্ণ করা, রিডিং কমপ্রিহেনশনের প্রশ্ন আসে।
কোয়ানটিটেটিভ রিজনিং : এ অংশও দুই ভাগে বিভক্ত। মোট সময় ৭০ মিনিট। ৩৫ মিনিটে আলাদাভাবে দুই অংশে ২০টি করে ৪০টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়। সাধারণ গাণিতিক হিসাব, বীজগণিত ও জ্যামিতির ওপর বিভিন্ন প্রশ্ন আসে।
অন্যান্য অংশ : জিআরই পরীক্ষায় গবেষণা, পরীক্ষামূলক নামে আরেকটি অংশ থাকে। এ অংশের নম্বর যোগ হয় না। তবে শিক্ষার্থীদের জানানো হয় না কোন অংশটি গবেষণা বা পরীক্ষামূলক অংশ। 
স্কোর : জিআরই পরীক্ষার স্কোর প্রকাশের পাঁচ বছর পর্যন্ত মূল্যায়ন করা হয়। ভারবাল ও কোয়ানটিটেটিভ অংশে ১৩০ থেকে ১৭০ এর মধ্যে স্কোর প্রদান করা হয়। এছাড়া অ্যানালাইটিক্যাল রাইটিংয়ে শূন্য থেকে ৬ এর মধ্যে নম্বর দেওয়া হয়।
এ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র, ধরন ও রেজিস্ট্রেশন সম্পর্কে জানতে লগইন করুন বঃং.ড়ৎম ওয়েবসাইটে।
গ্র্যাজুয়েট ম্যানেজমেন্ট অ্যাডমিশন টেস্টকে জিম্যাট পরীক্ষা বলা হয়। সাধারণত যুক্তরাষ্ট্রে এমবিএ ডিগ্রির জন্য পড়াশোনার জন্য এ পরীক্ষার স্কোর প্রয়োজন। মোট চারটি অংশে বিভক্ত এ পরীক্ষার সময় থাকে ৩ ঘণ্টা ৩০ মিনিট।
অ্যানালাইটিক্যাল রাইটিং অ্যাসেসমেন্ট : এ অংশে ৩০ মিনিটে একটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়। একটি বক্তব্য প্রশ্ন হিসেবে দেওয়া হয়। আপনাকে সে ঘটনা বা সিদ্ধান্ত বিশ্লেষণ করতে হবে। নিজের মতামত নয়, ঘটনাকে ব্যাখ্যা করতে হয়। ১ থেকে ৬ এর মধ্যে নম্বর দেওয়া হয়। 
ইন্টিগ্রেটেড রিজনিং : এ অংশে গ্রাফিকস ইন্টারপ্রিটেশন, টু পার্ট অ্যানালাইসিস, টেবিল অ্যানালাইসিস ইত্যাদি বিশ্লেষণ করে ৩০ মিনিটে ১২টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়। 
কোয়ানটিটেটিভ : সাধারণ গণিত, বীজগণিত ও জ্যামিতি থেকে ৩৭টি প্রশ্ন থাকে। মোট সময় ৭৫ মিনিট। এতে ডেটা সাফিসিয়েন্সি সংক্রান্ত প্রশ্ন থাকে। 
ভারবাল : রিডিং কমপ্রিহেনশন, ক্রিটিক্যাল রিজনিং, বাক্য সংশোধনের ওপর ৭৫ মিনিটে ৩৭টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়।
জিম্যাট পরীক্ষার প্রশ্নপত্র, ধরন ও রেজিস্ট্রেশন সম্পর্কে জানতে লগইন করুন সনধ.পড়স ওয়েবসাইটে।
জিআরই/জিম্যাট প্রস্তুতি 
স্নাতক পড়ার সময়েই জিআরই বা জিম্যাট পরীক্ষার প্রস্তুতি শুরু করা যেতে পারে। বছরের বিভিন্ন সময়ে পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ থাকে, তাই হাতে যথেষ্ট সময় নিয়ে প্রস্তুতি গ্রহণ করা যায়। 
প্রস্তুতির জন্য ব্যারনস, কাপলান, প্রিন্সটনের বিভিন্ন বইয়ের সাহায্য নিয়ে প্রস্তুতি শুরু করতে পারেন। ঢাকার আমেরিকান সেন্টার ও ইএমকে সেন্টার থেকে পরীক্ষার নিবন্ধন, ফি, পরীক্ষার প্রস্তুতি সম্পর্কে তথ্য জানতে পারবেন। ঢাকার বেশকিছু প্রতিষ্ঠান জিআরই ও জিম্যাট পরীক্ষার বিভিন্ন বই ও পড়াশোনার জন্য প্রস্তুতি নিতে সহায়তা করে।
প্রস্তুতি ও পরীক্ষার জন্য যোগাযোগ করতে পারেন : জিআরই সেন্টার : ০১৯২১০৮০৮৪৮, জিইডি সেন্টার : ০১৯১৪৮৭১৯৬৫। এছাড়া ফেইসবুকে হায়ার স্টাডি অ্যাবরোড গ্রুপ ভন.পড়স/মৎড়ঁঢ়ং/ঐরমযবৎঝঃঁফুঅনৎড়ধফ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে পড়ছে, এমন শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর ও পরামর্শ গ্রহণ করতে পারেন।


গ্রন্থমেলায় তারুণ্যের উচ্ছ্বাস
আলোকিত মানুষ গড়ার কারিগর বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু
বিস্তারিত
কানাডায় বাংলাদেশি তরুণীর সাফল্য
কানাডার ব্রিটিশ কলাম্বিয়া প্রদেশের নানাইমো অ্যাম্বাসেডর নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশি তরুণী
বিস্তারিত
দেশের সেরা মহিলা কলেজ সিদ্ধেশ্বরী
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ র‌্যাংকিংয়ে সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজ দেশের সেরা মহিলা
বিস্তারিত
পড়তে পারেন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং
তথ্যপ্রযুক্তির এ যুগে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) জনপ্রিয় বিষয়।
বিস্তারিত
বিশ্বমানের শিক্ষা কানাডায়
একটা সময় ছিল অভিভাবকরা উচ্চশিক্ষার্থে ছাত্রছাত্রীদের ঢাকায় পর্যন্ত পাঠাতেন না।
বিস্তারিত
এনআইইটিতে সেইপ প্রোগ্রামের সনদপত্র বিতরণ
দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংকের
বিস্তারিত