বিশ্বময় সংকটে মানবাধিকার

জনমোহিনী রাজনীতি করতে গিয়ে নেতারা মানুষের মধ্যে বিদ্বেষের বীজ ছড়াচ্ছেন। আক্রান্ত হচ্ছে মানবাধিকার। এভাবে চলতে থাকলে বিশ্বযুদ্ধকালীন ইতিহাস ফিরে আসবেÑ সতর্ক করছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।
বিশ্বজুড়ে মানবাধিকার হুমকির মুখে। অধিকাংশ দেশেই তা ঠিকভাবে রক্ষিত হচ্ছে না। সম্প্রতি তাদের বার্ষিক প্রতিবেদনে এ কথা জানিয়েছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। তাদের বক্তব্য, রাজনৈতিক নেতা এবং রাষ্ট্রপ্রধানরা জনসংযোগ তৈরি করতে এবং ভোটে জেতার জন্য সস্তা রাজনীতি করছেন। জনগণকে উত্তেজিত করতে তারা ‘হেট স্পিচ’ দিচ্ছেন, যা আসলে মানুষের মধ্যে বিভেদ আরও বৃদ্ধি করছে। তাদের মতে, বিদ্বেষমূলক রাজনীতি বিশ্বজুড়ে ক্রমে বৃদ্ধি পাচ্ছে।
বিদ্বেষের রাজনীতির কথা বলতে গিয়ে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে হাঙ্গেরি, তুরস্ক এবং মিয়ানমারের কথা। এসব দেশে একইভাবে নেতারা রাজনীতির নামে মানুষের ভেতরে বিদ্বেষের বিষ ঢুকিয়ে দিচ্ছেন। তুরস্ক সরাসরি হামলা চালিয়েছে সিরিয়ায়, মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর ভয়াবহ অত্যাচার চালিয়েছে। হাজার হাজার রোহিঙ্গা দেশ ছেড়ে বাংলাদেশে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়েছেন। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল সেসব প্রসঙ্গই এনেছে তাদের রিপোর্টে।
শুধু তা-ই নয়, রিপোর্টে পরিসংখ্যান দিয়ে দেখানো হয়েছে, গত এক বছরে মানবাধিকার কর্মীদের ওপর আক্রমণ আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে। শুধু ২০১৭ সালেই ৩১২ মানবাধিকার কর্মী পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে নিহত হয়েছেন। আক্রমণ বাড়ছে সাংবাদিকদের ওপরও। এ সবকিছুর জন্যই ‘পপুলার রাজনীতি’ বা বিদ্বেষমূলক রাজনীতিকে দায়ী করা হচ্ছে।
উপসংহারে এসে রিপোর্টটি একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে দিকনির্দেশনা দিয়েছে। বলা হয়েছে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের বীভৎসতা দেখে ১৯৪৮ সালে হিউম্যান রাইটস বা মানবাধিকার চুক্তি তৈরি হয়েছিল। এ বছর যা ৭০ বছরে পা দিল। পৃথিবীতে একটি শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতি তৈরির জন্যই সেই চুক্তিতে সই করেছিল অধিকাংশ দেশ। বর্তমান সময়ে বিশ্বরাজনীতি আবার পেছনের দিকে হাঁটতে শুরু করেছে। মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে বারবার। এভাবে চলতে থাকলে অনতিদূরের ইতিহাস ফিরে আসতে খুব বেশি সময় লাগবে না। তখন কিন্তু পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হয়ে উঠবে।

ডয়চে ভেলে


হৃদয়ে নুরের প্রদীপ জ্বালো
  দুষ্ট সাপ যখন ছোবল হানে, তখন দংশিত বিষক্রিয়ায় প্রাণ হারায়।
বিস্তারিত
হেদায়েত লাভে মুর্শিদের সোহবত
শুধু পুঁজি থাকলেই যেমন ব্যবসায়ী হওয়া যায় না, তেমনি ব্যবসা
বিস্তারিত
গোপন কোনো কিছুই রয় না
আমরা অনেক সময় লোকদেখানোর জন্য অনেক মন্তব্য করে থাকি। কিংবা
বিস্তারিত
মজলুমের সাহায্য ও জালিমের প্রতিরোধ
হজরত নোমান (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) এরশাদ করেন, ‘সব
বিস্তারিত
অর্থসম্পদের ভালো-মন্দ
সম্পদে বিপদ ও পরীক্ষাও আছে, কোরআন যা দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বুঝিয়ে
বিস্তারিত
প্রকাশিত হলো বাংলাদেশি লেখকের আরবি উপন্যাস
প্রকাশিত হলো বাংলাদেশি লেখকের আরবি ভাষায় লেখা উপন্যাস ‘আল ইসার’।
বিস্তারিত