জুহাইমের মেঘ দেখা

ঝমঝমিয়ে বৃষ্টি পড়ছে অনেকক্ষণ। বিকেলও প্রায় শেষ। কিন্তু বৃষ্টি কমছে না। জুহাইম খেলতে এসেছিল। কিন্তু বৃষ্টিতে মাঠ ডুবে যাওয়ায় আর খেলা হলো না।
দূরে উঁচু মহাসড়কে গাড়ি ছুটে চলছে হেডলাইট জ্বালিয়ে। সড়কের পাশেই পানিভর্তি দিঘি। পানিতে মেঘের কালোছায়াও পড়ছে। বৃষ্টিতে বাসাতও কিছুটা ঠা-ার মতো।
সন্ধ্যা ঘনিয়ে এসেছে বলে পানকৌড়ির ঝাঁক ফিরছে তাদের বাসায়। বৃষ্টির পানিতে পুকুর, দিঘি, বিল সব পানিতে থইথই। তাই ওরা ডুব দিয়ে মাছ ধরেছে আর খেয়েছে। এখন পেট ভরা।
কালো মেঘে মনে হচ্ছে এখনই সন্ধ্যা নেমে গেছে। তবে এখনও দেখা যাচ্ছে ঘাস, লতাপাতা, মাঠ। জুহাইম তাকিয়ে আছে এসবের দিকে। আকাশে কালো মেঘও উড়ে উড়ে যাচ্ছে। জুহাইম সেদিকেও তাকায়। 
কালো রঙের মেঘগুলোকে কখনও পাহাড়, কখনও বাড়ি, কখনও নদী, কখনও মানুষের মতো মনে হয়। জুহাইম ভাবে কী সুন্দর এ প্রকৃতি। এসব ভাবতে ভাবতে বাড়ি ফেরে জুহাইম।


রঙিন বল
টিউটরের কাছে পড়া শেষে মাঠে পৌঁছতেই টুটুন দৌড়ে এসে বলল,
বিস্তারিত
বৃষ্টি
বৃষ্টি আসে যখন তখন ব্যাঙ মেলেছে ছাতা, পানির ভেতর ডুবে তবু
বিস্তারিত
বৃষ্টি নামের মিষ্টি মেয়ে
বৃষ্টি নামের মিষ্টি মেয়ে আয়রে ছুটে আয় বন-বনানীর ছায়াঘেরা সবুজ-শ্যামল গাঁয়। আয়রে
বিস্তারিত
মেঘ-বৃষ্টি
মেঘ মিষ্টি মেঘ সন্দেশ  মেঘ বৃষ্টির বোন মেঘ জোসনা আলোর
বিস্তারিত
মেঘের কন্যা
নীল আকাশে ভেসে বেড়াও ওগো মেঘের পরি জলনাচনের গল্পগুলো তোমার
বিস্তারিত
মেঘের দেশে
সন্ধ্যা নামার আগে হঠাৎ বাড়ির কাছে এসে ওই যে দূরে
বিস্তারিত