উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে ধর্মঘট স্থগিত বিসিসি'র

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আশ্বাসের ভিত্তিতে টানা এক মাস এক দিন পর ধর্মঘট স্থগিত করে কাজে যোগ দিয়েছেন বরিশাল সিটি করপোরেশনের (বিসিসি) প্রায় ২ হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী।

বরিশাল নগরের সার্কিট হাউজের সভাকক্ষে মঙ্গলবার (২০ মার্চ) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে অনুষ্ঠিত সমঝোতা বৈঠকের পরে ধর্মঘট স্থগিত করে কাজে যোগ দেন তারা।

বরিশালের বিভাগীয় কমিশানর মো. শহিদুজ্জামান ও জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমানের মধ্যস্থতায় সিটি করপোরেশনে মেয়র আহসান হাবিব কামাল ও আন্দোলকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে এ সমঝোতা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

এ সমঝোতা বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মঙ্গলবার স্থায়ী কর্মকতা-কর্মচারীদের ২ মাসের বকেয়া বেতন ও ৩টি প্রভিডেন্ট ফাণ্ডের টাকা এবং দৈনিক মুজরি ভিত্তিক শ্রমিকদের দুই মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধসহ আগামী ৭ এপ্রিলের মধ্যে আরো ১ মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধের সিদ্ধান্ত হয়। আগামী ২৭ মার্চ আরো একটি সমঝোতা বৈঠকের মাধ্যমে বকেয়া বেতন পরিশোধের স্থায়ী সমাধানের সিদ্ধান্ত হয়।

বিসিসির পরিচ্ছন্নতা কর্মকর্তা ও আন্দোলকারীদের নেতা দীপক লাল মৃধা জানান, বকেয়া বেতনের দাবিতে আমরা বরিশাল-১ আসনের সংসদ সদস্য ও মন্ত্রী পদমর্যাদাপ্রাপ্ত আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর স্মরণাপন্ন হই। পরে তার হস্তক্ষেপে বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকের মধ্যস্ততায় সমঝোতা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মেয়র দাবি মেনে নেওয়ায় বেলা ১ টা থেকে আন্দোলনরত সব কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কাজে যোগ দিয়েছেন।

গত ৩ দিনে নগরজুড়ে যে বর্জ্য জমা পড়েছে তা পরিষ্কার করার কাজ শুরু হয়েছে। দ্রুত সময়ের বর্জ্য অপসারণ কাজ সম্পন্ন করা হবে বলেও জানান দীপক লাল মৃধা।

মেয়র আহসান হাবিব কামাল বলেন, সকলের সহযোগীতায় কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আন্দোলনের পথ থেকে সরে কাজে যোগ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। এটা ভালো, তবে বিগত ১ মাসের অধিক সময় ধরে আন্দোলনের ফলে করপোরেশন ও নগরবাসীর যে ক্ষতি হয়েছে তা বাড়তি কাজের মাধ্যমে পুশিয়ে দেওয়া হবে বলে আমাকে জানিয়েছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। পাশাপাশি সিটি করপোরেশনের আয়ের খাতে ২৩ কোটি টাকা পাওনা রয়েছে, তা আদায়ে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করবেন তারা।

মেয়র বলেন, হিসাব শাখায় মাত্র এক কোটি টাকা রয়েছে। কিন্তু বেতন দেওয়ার জন্য এখন যে টাকা প্রয়োজন তা বিকল্প খাত থেকে ‍ধার নেওয়া হবে। আবার করপোরেশনের বকেয়া টাকা আদায় হলে এ ফাণ্ডে ফেরত দেওয়া হবে।

বরিশালের জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান বলেন, সুন্দর একটি বৈঠকে আলোচনার মধ্য দিয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আন্দোলন থেকে সরে এসেছে। তারা কাজে যোগদান করে সব ক্ষতি পুষিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

গত ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকে বকেয়া বেতন ও প্রভিডেন্ট ফাণ্ডের টাকার জন্য কর্মবিরত, অবস্থান কর্মসূচি, মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে আসছে বিসিসির স্থায়ী ও দৈনিক মজুরি ভিত্তিক ২ হাজারের ওপর কর্মকর্তা-কর্মচারী।


ময়মনসিংহে দেশি অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৬
বৃহস্পতিবার (২৬ এপ্রিল) ভোরে ময়মনসিংহ সদর উপজেলার দাপুনিয়া ইউনিয়ন থেকে
বিস্তারিত
পাচারকালে চুয়াডাঙ্গায় ৩২০ পিস স্বর্ণের
চুয়াডাঙ্গার দর্শনা নাস্তিপুর সীমান্তে ৩২০ পিস স্বর্ণের বার জব্দ করেছে
বিস্তারিত
১৩৭ বছরে পা দিল খুলনা
খুলনা জেলার ১৩৬ বছর পূর্তিতে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক
বিস্তারিত
মধুখালীতে রাস্তা নয়, মরণ ফাঁদ
মরণ ফাঁদে পরিনত হয়েছে ফরিদপুর জেলার মধুখালী পৌরসভার অন্তর্গত প্রায়
বিস্তারিত
‘মন্ত্রী-এমপিদের কথাও শোনেন না চিকিৎসকরা’
জাতীয় পার্টি (জেপি) চেয়ারম্যান পানিসম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেছেন,
বিস্তারিত
রানা প্লাজা ট্র্যাজেডির ৫ বছর
স্মরণকালের ভয়াবহ ভবন ধস সাভারের রানা প্লাজা ট্র্যাজেডির ৫ বছর
বিস্তারিত