‘সবচেয়ে বড় অশুভ শক্তি এখন ক্ষমতায়’

সবচেয়ে বড় অশুভ শক্তি এখন দেশের ক্ষমতা দখল করে বসে আছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেছেন, বর্তমান ভোটারবিহীন সরকার দেশের ক্ষমতায়। তারা এটাই বোঝে না, বন্দুকের জোরে ক্ষমতায় টিকে থাকা শুভ শক্তির পরিচায়ক নয়।

পহেলা বৈশাখের এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, অশুভ শক্তি যেন আর ক্ষমতায় না আসতে পারে। এ বক্তব্যের সমালোচনা করে রোববার (১৫ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, জনগণ মনে করে, দেশের সবচেয়ে বড় অশুভ শক্তি বর্তমান মহাজোট সরকার। ভোটারবিহীন অগণতান্ত্রিক শক্তি হচ্ছে সবচেয়ে নিকৃষ্ট অশুভ শক্তি। মানুষ দিন গুনছে এই অশুভ শক্তির পতনের।

রিজভী সরকারের কাছে প্রশ্ন রেখে বলেন, আন্তর্জাতিক স্বীকৃতিপ্রাপ্ত স্বৈরাচারীরা কি শুভ শক্তি? জনগণের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে, জনগণের সব মৌলিক ও মানবাধিকার কেড়ে নিয়ে, নির্যাতন-নিপীড়ন চালিয়ে সম্পূর্ণ বন্দুকের জোরে ক্ষমতায় টিকে আছে বর্তমান সরকার। এটা কি শুভ শক্তির পরিচয় বহন করে?

বিএনপির এই জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, তাদের অবৈধ ক্ষমতা ধরে রাখতে খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠিয়েছে এই অশুভ সরকার। এখন কারাগারে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে তিলে তিলে নিঃশেষ করা হচ্ছে।

তিনি অভিযোগ করেন, খালেদা জিয়া কারাগারে গুরুতর অসুস্থ হলেও এখন পর্যন্ত তাকে কোনো চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না। সরকারি মেডিকেল বোর্ড মামুলি প্রহসনের এক্স-রে ও রক্ত পরীক্ষা করে ফিজিওথেরাপির সুপারিশ করেছে। দীর্ঘদিন ধরে হাঁটু ও চোখের সমস্যার পাশাপাশি তাকে কারাগারে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে রাখায় আরো বেশ কিছু শারীরিক সমস্য দেখা দিয়েছে।

রিজভী অভিযোগ করে বলেন, কারাগারে খালেদা জিয়ার ঘনিষ্ঠ আত্মীয়স্বজনকে দেখা করতেও বাধা দেয়া হচ্ছে।

বিএনপি নেতা বলেন, এমনকি সরকারি মেডিকেলের চিকিৎসক বোর্ড বলেছে, তার এক্স-রে রিপোর্টগুলোতে দেখা যাচ্ছে, ঘাড়ে ও কোমরের হাড়ে সমস্যা আছে। এমতাবস্থায় আধুনিক চিকিৎসার যুগে এমআরআইসহ উন্নত পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়া শুধু এক্স-রে ও রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে সুনির্দিষ্ট ও সঠিক রোগ নির্ণয় সম্ভব নয়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারিতে খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বিশেষ আদালত। এরপর থেকে পুরনো ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের নির্জন কারাগারে একমাত্র বন্দি হিসেবে তাকে রাখা হয়েছে। সেখানে বেগম জিয়া অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়ে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়।


জামায়াতের বিচার: খসড়া মন্ত্রিপরিষদে
একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধে জামায়াতে ইসলামীর বেশ কয়েকজন শীর্ষ নেতার বিচার
বিস্তারিত
শাহনাজ রহমতুল্লাহ মৃত্যুতে কাঁদলেন খালেদা
বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে খুব কম মানুষই
বিস্তারিত
আন্দোলন করে নয়, আইনী প্রক্রিয়ায়
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, আন্দোলন করে নয়, একমাত্র আইনী প্রক্রিয়ার
বিস্তারিত
গুম-খুনে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের লোক
গুম-খুনের সঙ্গে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের লোকজনও জড়িত বলে মন্তব্য করেছেন
বিস্তারিত
কাদেরকে সরিয়ে সংসদ উপনেতা রওশন
সংসদের বিরোধী দলের উপনেতার পদ থেকেও সরিয়ে দেয়া হয়েছে জিএম
বিস্তারিত
চিকিৎসার অভাবে আছেন এমন মানুষ
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ কল্পনাতীত জায়গায় পৌঁছে গেছে
বিস্তারিত