কে কারে করিবে ক্ষমা

তুমি এক অনন্তের পাখি। 

গাছে গাছে বনে বনে মনে মনে
আকাশের মেঘে মেঘে গান গাওÑ
পথে পথে বাঁধো হৃদয়ের রাখি।

তুমি উড়ে উড়ে দূরে চলে যাও
ফিরে ফিরে আসো, ভালোবাসো।
তবু তুমি কেন এত কষ্ট পাও? 
কেন তুমি আমাকে কাঁদাও?

তুমি রাধা নওÑ নও তো পাঞ্চালী।
তুমি বৃন্দাবনে খোলো না দেহের ভাঁজ;
নদীকূলেÑ গঙ্গা-যমুনার সুখে 
দেবী, তুমি সর্বদেহে মনে 
সমর্পিত নও পঞ্চপা-বের বুকে। 
কামরাঙা লাইলীর মতো তুমি একা মরে যাওÑ
একা ভেসে যাও প্রেমের সাগরে। 

তুমি এক আটপৌরে নারীÑ তুমি শঙ্খমালা;
তুমি সোনার প্রতীমা, শ্যামাÑ সুন্দরের ছবি;  
তোমার নীরব চোখে অস্থির প্রতীক্ষা করে 
এক চ-ীদাসÑ শ্যামাঙ্গীর রূপমুগ্ধ কবি;

কোথায় হারিয়ে যেতে চাও তুমি?
জীবন সহজ হয়, মরণ সহজ তবু
প্রেম যদি অপরাধÑ তবে, প্রিয়তমা
কার এত শক্তি বলো, এত স্পর্ধা কার? 
কে কারে করিবে ক্ষমা? 


বৈশাখের আহ্বান
বাতাসের সুরে সুরে ঝড়ের ঝংকার  আকাশের কালো মেঘে কালের হুংকার  বজ্রের
বিস্তারিত
ডোম
প্রথমে লোকটির ডান হাত কেটে ফেললাম তারপর বাম হাত তার পা
বিস্তারিত
আয়না সিরিজ
এক একদিন প্রেমিকার চশমায় প্রবেশ করি,  ঢুকে পড়ি অজান্তে আয়নার শহরে
বিস্তারিত
শ্রেষ্ঠ ডায়ালগ
(এক স্রোতস্বিনীর পাশে আমার সুন্দর ফুলবাগান। সেখানে আমি মন নিয়ে খেলা
বিস্তারিত
প্রতীক্ষা
সমুদ্রের মুখোমুখি, বসে আছি একাকী মনের তুলিতে আছ তুমি, কল্পনায় করি
বিস্তারিত
এসো হে বৈশাখ
বৈশাখ দরজায় নাড়ছে কড়া বাঙালি সাজাবে নতুন এই ধরা চারদিকে বসবে
বিস্তারিত