ঋদ্ধতার গান

এখন রুমি, উনিশতম রাত্তিতে 
এমন একটা কক্ষে আমি আছি
যেখানে কৃত্রিম আলো হাওয়ার মাঝে 
মানুষের উচ্ছ্বাস সযতেœ ঘুমিয়েছে

মনে পড়ছে হাজার প্রাণের উচ্চারণসমÑ
আমাদের শ্রমণ, সেদিন দেহকে মাটি পর্যন্ত ছুঁতে দেয়নি 
তুমিও তো সোনা, আমিও তো 

অথচ অশান্ত আয়ু-অবধি 
এই আক্রান্ত মাংস-মজ্জার রাগে
এখন কী করে ঘুমাই বলো
এমন তো পরিচ্ছন্ন পরাগ নেই
যা তোমার দেহ থেকে উপচে পড়েছে
এমন তো মখমল বুঝি না 
যা সেদিন জাপটে ধরেছিল মমতায়

এরকম সুন্দর বয়ান কীভাবে পড়া হয় 
সহ্যহীন, যন্ত্রণাহীনÑ অনঙ্গ নিয়মে!
তাই স্পর্শাতীত কিছুমাত্র শব্দবিধিতে 
লিখে যাচ্ছি রুমি
শেষ ঋদ্ধতার কথা

যে নৃত্য-হলাহল ছিঁড়ে ফেলে ধ্যানির আসন
রাজার অহং দিত মুছেÑ 
সে তোমার গভীর কামনা  
না না আর বুঝি না 
আর তো জানি না, না... 


পাঠক কমছে; কিন্তু সেটা কোনো
দুই বাংলার জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়। অন্যদিকে বাংলাদেশের জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক
বিস্তারিত
মনীষা কৈরালা আমি ক্যান্সারের প্রতি কৃতজ্ঞ,
ঢাকা লিট ফেস্টের দ্বিতীয় দিন ৯ নভেম্বরের বিশেষ চমক ছিল
বিস্তারিত
এনহেদুয়ান্নার কবিতা ভাষান্তর :
  যিশুখ্রিষ্টের জন্মের ২২৮৫ বছর আগে অর্থাৎ প্রায় সাড়ে ৪ হাজার
বিস্তারিত
উপহার
  হেমন্তের আওলা বাতাস করেছে উতলা। জোয়ার এসেছে বাউলা নদীতে, সোনালি
বিস্তারিত
সাহিত্যের বর্ণিল উৎসব
প্রথম দিন দুপুরে বাংলা একাডেমির লনে অনুষ্ঠিত হয় মিতালি বোসের
বিস্তারিত
নিদারুণ বাস্তবতার চিত্র মান্টোর মতো সাবলীলভাবে
এ উৎসবের অন্যতম আকর্ষণ ছিল ভারতের প্রখ্যাত পরিচালক নন্দিতা দাস
বিস্তারিত