ভাষা-বিকৃতি আর নয়

ইদানীং নতুন এক বাংলা ভাষার খোঁজ মিলেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকের বদৌলতে। তারুণ্য মানেই মনের মাঝে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস! তাদের স্বভাবসুলভ আচরণে থাকবে নতুন কোনো সৃষ্টির নেশা। গঠনমূলক কাজের বাসনা থাকবে তরুণের মনে। আর যে তরুণের মনে এসব নেই, তাকে এক ধরনের মানসিক প্রতিবন্ধী বললে অত্যুক্তি হবে না। তারুণ্য মানেই সমাজের প্রাণ। সৃজনশীল কাজের জন্য তারাই একদিন দেশের জন্য সম্মান বয়ে আনে। এই তরুণরাই যদি আবার তাদের মেধার অপপ্রয়োগ করেন, তাহলে দেশ ও জাতির উন্নয়ন কোনোভাইে সম্ভব নয়। আজকের তারুণ্য আগামী দিনের রাষ্ট্রনায়ক। এই ভাবী রাষ্ট্রনায়কদের ফেইসবুক স্ট্যাটাসে প্রতিনিয়ত যদি ভাষার বিকৃতি ঘটে, তাহলে সমাজের জন্য তা হবে মহামারি। উচ্চতর ডিগ্রি অর্জনকারী বা দেশসেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অধ্যয়ন করা তরুণসমাজ আজকাল আনাড়ি ফেইসবুক ব্যবহারকারী বা মুর্খ-অর্ধশিক্ষিতদের ব্যঙ্গ করতে গিয়ে নিজেরাই উপহাসের পাত্রে পরিণত হতে চলেছেন। তারা বেশ আনন্দচিত্তে মজা করেই লিখে থাকেনÑ ফডু, খিচ্চা, মঞ্চায়, গিবনে, হপে, খিচাইছে এমন সব উদ্ভট শব্দ। স্ট্যাটাস-কমেন্টে এমন শব্দ থাকে প্রায় নিয়মিত, যা ভবিষ্যৎ প্রজন্ম ধরেই নেবে, এটাও মায়ের ভাষা বাংলা। আজকের উচ্ছ্বসিত তারুণ্য বুঝতেই পারছে না যে, এটা যে কতটা ভয়াবহ, কুৎসিত রূপ ধারণ করবে। বড়দের হাতে ক্যামেরা দেখে যদি শিশুরা বলে ওঠেÑ মামা মামা, দু-চারটা ফডু খিচ্চা দাও বা চাচ্চু চুইংগাম হপে, তখন শুনতে কেমন লাগবে? তাই এখনই প্রয়োজন সবার সচেতনতা। 

১৯৫২ সালের ভাষা আন্দেলনের জন্য যারা শহীদ হয়েছেন, তারা নিশ্চয়ই এরকম জঘন্যভাবে ভাষার বিকৃতি ঘটুক, তা চাননি। পৃথিবীর বুকে একমাত্র বাংলাদেশের মানুষই তার মায়ের ভাষা বাংলার জন্য হাসিমুখে নিজের প্রাণ উৎসর্গ করেছেন। সুতরাং ভাষার ইতিহাস আমাদের ভুলে গেলে চলবে না। আমরা যেখানেই লিখি বা বলি না কেন, অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে, ভাষার যেন বিকৃতি না ঘটে। [email protected]


আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণ পেলেন ৯০ প্রাণী
পোলট্র্রির বিজ্ঞানসম্মত স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা, সঠিকভাবে রোগবালাই নির্ণয়, চিকিৎসা এবং রোগ
বিস্তারিত
সবার উপরে বাবা-মা
যে-কোনো মানুষের গায়ে হাত তোলাই অপরাধ। আর সন্তান হয়ে বাবা-মায়ের
বিস্তারিত
স্মৃতির মানসপটে যুক্তরাজ্য সফর
বিদেশে যাওয়ার অভিজ্ঞতা হয়তো অনেকেরই হয়ে থাকে। তবে কলেজের প্রতিনিধি,
বিস্তারিত
ব্যবসার ধারণা : গড়তে চাইলে
নিজের পায়ে দাঁড়াতে হলে আপনাকে উদ্যোগী হতে হবে। আর উদ্যোক্তা
বিস্তারিত
৭৫ শতাংশ বৃত্তিতে আইটি ও
বিভিন্ন কারণে যারা আইটিতে দক্ষতা উন্নয়নের সুযোগ থেকে বঞ্চিত তাদের
বিস্তারিত
লক্ষ্য যখন কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার বিপরীতে ক্রমাগত উর্বরা জমির পরিমাণ কমছে। জনসংখ্যার এ
বিস্তারিত