অনলাইন ব্যবসায় চাই সঠিক প্রচারণা কৌশল

ব্যবসা অনলাইন হোক বা অফলাইনে প্রচারণা খুবই জরুরি। তবে অফলাইনের চেয়ে অনলাইন ব্যবসায় চ্যালেঞ্জ অনেক বেশি। মার্কেটিং পলিসিতে একটু যদি অবহেলা করেছেন তবেই পড়ে যাবেন আরও অসংখ্য ব্যবসায়ীর পেছনে। প্রতিযোগিতা এখন তুঙ্গে। একই রকম পণ্যের রয়েছে অসংখ্য ওয়েবসাইট, তারও চেয়ে কয়েকগুণ বেশি অনলাইন পেজ। এরই মাঝে ক্রেতার নজর কাড়তে মেনে চলুন এই কৌশলগুলোÑ
ভোক্তার দিকে নজর দিন : সহজ হিসাব। আপনার বিজ্ঞাপন বা প্রচারণা সবার জন্য নয়। কী পণ্য তৈরি করছেন আপনি, সেটা কোন বয়সের মানুষ ব্যবহার করবেন, পণ্যের মূল্য অনুযায়ী কোন শ্রেণির মানুষ পণ্যটি ক্রয় করবেন, লিঙ্গভেদে তার ভোক্তা আলাদা হবে কি নাÑ এসব প্রশ্নের উত্তর আপনাকে জানতে হবে। শুধু সেসব ভোক্তার কাছেই পৌঁছতে হবে যাদের আপনার প্রয়োজন। ভোক্তা নির্দিষ্ট করার পর দেখতে হবে সেই ভোক্তারা কী খুঁজছেন, তারা পণ্যের কেমন মান চাইছেন, কেমন ডিজাইন চাইছেন! বিজ্ঞাপনে তেমন ছবিই ব্যবহার করতে হবে আপনাকে, সেভাবেই তুলে ধরতে হবে পণ্যের নানা দিক।
ভোক্তার সঙ্গে আন্তরিক সংযুক্তি : গুগলে বিজ্ঞাপন কেনা বা জটিল একটি ওয়েবসাইট ডিজাইন করা দীর্ঘ সময় এবং খরচের ব্যাপার। তার পরিবর্তে একটা সিম্পল ব্লগ লিখুন নিজের ব্যবসার নানা দিক নিয়ে। একটা ইন্সটাগ্রাম বা ফেইসবুক প্রোফাইল আপনার প্রচারণাকে আরও বেশি সহজ করতে পারে। নিয়ে যেতে পারে ভোক্তার হাতে হাতে। আপনার যোগাযোগের ধরনটি হতে পারে আন্তরিক, বন্ধুর মতো। যাতে ভোক্তারা আরও বেশি সংযুক্ত বোধ করেন। এজন্য ছবি নয়, ছবির সঙ্গে যুক্ত করুন কিছু বক্তব্য। যুক্ত করুন আপনার গল্প, পণ্যটির পেছনের শ্রমের গল্প, আবেগের গল্প।


সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম : অনলাইনে ব্যবসা বাড়াতে চাইলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সবসময় সক্রিয় থাকা খুবই জরুরি। ওয়ার্ডপ্রেসে চাইলেই কনটেন্ট মার্কেটিং করতে পারেন আপনি। কিন্তু ব্লগ বা এ জাতীয় যে-কোনো প্রচারণাকে কার্যকর করতে অবশ্যই তাকে জুড়ে দিন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের সঙ্গে। ফেইসবুক, লিঙ্ক-ইন এখন মানুষের হাতের মুঠোয়। স্মার্টফোনে নিউজফিড স্ক্রল করতে করতে খুব সহজেই কিন্তু জানা যাবে আপনার ব্যবসার তথ্যটিও। একই সঙ্গে অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন পিন্টারেস্টে, ইন্সটাগ্রামে।
এসইও : গুগল এসইও একটি সামাজিক মাধ্যম, যার কথা অনেকেই জানেন না। ভোক্তার সঙ্গে যোগাযোগের জন্য এটি খুবই কার্যকরী একটি টুলস। সার্চ ইঞ্জিনে পণ্য খুঁজলে সহজেই চলে আসে পণ্য বা ব্র্যান্ডগুলো? যাদের র‌্যাংকিং ভালো, সহজে ট্যাক করা যায়। গুগলে এসইও কৌশল ব্যবহার করে আপনিও আপনার ওয়েবসাইট র‌্যাংকিং বাড়াতে পারেন। তবে আপনাকে প্রতিনিয়ত নিজের সাইটে সক্রিয় থাকতে হবে। ছবি, ভিডিও আপলোড করা, পর্যাপ্ত তথ্য দেওয়া চালিয়ে যেতে হবে। বর্ণনায় ব্যবহার করতে হবে জনপ্রিয় ‘কি-ওয়ার্ড’গুলো, যা ব্যবহার করেই মানুষ এ ধরনের পণ্য খোঁজে। ছোট ছোট কৌশল; কিন্তু এগুলোই আপনার র‌্যাংকিং বাড়াবে।
মোবাইল গ্রাহক : ডিজিটাল বিশ্ব এখন নিয়ন্ত্রিত হয় মোবাইল দ্বারা। আপনার মার্কেটিং তাই মোবাইল উপযোগী করে তৈরি করুন। এমন ছবি ব্যবহার করুন, যা মোবাইলে দেখতে ভালো লাগে। ছবির সাইজও সেই অনুযায়ী নির্ধারণ করুন। মোবাইলের গ্রাহকদের জন্য ভিন্নভাবেই সাজান আপনার মার্কেটিং কৌশল।


আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণ পেলেন ৯০ প্রাণী
পোলট্র্রির বিজ্ঞানসম্মত স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা, সঠিকভাবে রোগবালাই নির্ণয়, চিকিৎসা এবং রোগ
বিস্তারিত
সবার উপরে বাবা-মা
যে-কোনো মানুষের গায়ে হাত তোলাই অপরাধ। আর সন্তান হয়ে বাবা-মায়ের
বিস্তারিত
স্মৃতির মানসপটে যুক্তরাজ্য সফর
বিদেশে যাওয়ার অভিজ্ঞতা হয়তো অনেকেরই হয়ে থাকে। তবে কলেজের প্রতিনিধি,
বিস্তারিত
ব্যবসার ধারণা : গড়তে চাইলে
নিজের পায়ে দাঁড়াতে হলে আপনাকে উদ্যোগী হতে হবে। আর উদ্যোক্তা
বিস্তারিত
৭৫ শতাংশ বৃত্তিতে আইটি ও
বিভিন্ন কারণে যারা আইটিতে দক্ষতা উন্নয়নের সুযোগ থেকে বঞ্চিত তাদের
বিস্তারিত
লক্ষ্য যখন কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার বিপরীতে ক্রমাগত উর্বরা জমির পরিমাণ কমছে। জনসংখ্যার এ
বিস্তারিত