পানিফলে বাড়তি আয়

কম খরচে অধিক লাভ পাওয়ায় জামালপুরের মুক্ত জলাশয়গুলোয় বাণিজ্যিকভাবে চাষ হচ্ছে পানিফল। খেতে সুস্বাদু আর ফরমালিনমুক্ত হওয়ায় স্থানীয়দের কাছে বেশ জনপ্রিয় এ পানিফল। জামালপুরের নদীভাঙন কবলিত এলাকায় এ ফলটি চাষ করে কৃষক বাড়তি আয়ের পাশাপাশি ধীরে ধীরে স্বাবলম্বী হয়ে উঠছেন। এখানকার পানিফল যাচ্ছে রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায়।

স্থানীয় কৃষক জানান, খাল, বিল, ডোবা ও নালাতে পানিফল চাষ করা হয়। জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে চাষ শুরু হয় চাষ। বিঘাপ্রতি মাত্র ১০ থেকে ১২টি পানিফল গাছ ফেলে রাখলেই চলে। কচুরিপানার মতো দেখতে এ ফলগাছে মাত্র ১২০ দিনেই ফলন পাওয়া যায়। পানিফল চাষে প্রতি একরে কৃষক ৩ থেকে সাড়ে ৩ হাজার টাকা খরচ হয় আর লাভ হয় ৩০ হাজার টাকা। বর্তমানে প্রতি মণ পানিফল ৮০০ থেকে ১ হাজার টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। কৃষি বিভাগের তথ্যনুযায়ী জামালপুর জেলার সরিষাবাড়ী, দেওয়ানগঞ্জ ও ইসলামপুর উপজেলার প্রায় ২৫০ হেক্টর জমিতে পানিফল চাষ করা হয়। এ ফল চাষে প্রায় ৫০০ চাষি প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িয়ে আছে। জেলায় উৎপাদিত এসব পানিফল স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে বিক্রি করা হয় রাজধানী ঢাকাসহ অন্যান্য জেলায়। সাধারণত জুন মাসে মুক্ত জলাশয়ে কচুরিপানার মতো পানিফলের গাছ ছড়িয়ে দেয়া হয়। অক্টোবরের শেষ থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত এসব গাছে ফল আসে। ১০ বিঘা জলাশয়ে পানিফল আবাদ করতে খরচ হয় ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা আর তা থেকে ৭ থেকে ৮ লাখ টাকা আয় করা যায়। পানিফল ফরমালিনমুক্ত হওয়ায় ছোট-বড় সবার কাছেই খুব প্রিয়। সরকারের সহযোগিতা আর কৃষি বিভাগের যথাযথ পরামর্শ পেলে এখানকার কৃষক আরও বেশি পরিমাণ জলাশয়ে পানিফল চাষ করে আর্থিকভাবে লাভবান হতে পারবে।

জামালপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক কৃষিবিদ    ড. মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেছেন, কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতার পাশাপাশি চাষিদের উন্নত জাত সম্পর্কে ধারণা দিয়ে তৃণমূল পর্যায়ে কৃষি কর্মকর্তারা পানিফল নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। নিয়মিত ফসলের সঙ্গে পানিফল চাষে এ জেলার কৃষক বাড়তি আয় করছেন।


বাণিজ্যিক ভাবে বারোমাসি সজিনা চাষের
শেরপুরের নকলা উপজেলায় বারোমাসি সজিনা ডাটা চাষের গভীর সম্ভবনা দেখা
বিস্তারিত
কৃষি সংস্থার সবাই যেন একেকজন
মেধা, ইচ্ছা শক্তি আর অভিজ্ঞতা থাকলে কোন বাধাই কাউকে থামিয়ে
বিস্তারিত
পীরগঞ্জের রাজা নীলাম্বরের রাজধানীকে পর্যটন
রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার চতরা ইউনিয়নের রাজা নীলাম্বরের রাজধানীকে পর্যটন কেন্দ্র
বিস্তারিত
রংপুরে কৃষকরা শীতের আগাম সবজি
রংপুরের কৃষকরা এখন শীতের আগাম সবজি চাষে উঠে-পড়ে লেগেছে। আগাম
বিস্তারিত
ড্রাগনে রঙিন স্বপ্ন দেখছেন নকলার
ড্রাগন ফল চাষে রঙিন স্বপ্ন দেখছেন শেরপুরের নকলা উপজেলার অনেক
বিস্তারিত
দেশি মাছ চাষে লাখপতি নকলার
গত এক দশক ধরে শেরপুরের প্রতিটি উপজেলায় মাছ চাষ বাড়ছে।
বিস্তারিত