ফলাফল প্রত্যাখ্যান, সিইসির পদত্যাগ দাবি রিজভীর

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের পদত্যাগ দাবি করেছেন।

নয়াপল্টনে দলীয় অফিসে বুধবার (১৬ মে) দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, মঙ্গলবারের ভোট নিরস্ত্র ভোটারদের ওপর ‘অবৈধ’ সরকারের ‘অবৈধ ক্ষমতা’ প্রদর্শন ছাড়া আর কিছুই নয়।

বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, ভোট শেষে প্রধান নির্বাচন কমিশনার লজ্জায় গণমাধ্যমের সামনে আসেননি। তবে ইসি সচিব গণমাধ্যমকে বলেছেন- খুলনায় চমৎকার ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হয়েছে। উনি ঠিকই বলেছেন। ওইখানকার ভোটের পরিবেশই হচ্ছে ‘শেখ হাসিনা মার্কা’ নির্বাচন- যে নির্বাচনে দ্বিতীয় শ্রেণী পড়ুয়া ছেলে একই সঙ্গে বাবার সঙ্গে ভোট দিতে পারে। কেন্দ্রে যাবার আগেই ভোটারদের ভোট দেয়া হয়ে যায়। পুলিশের সহায়তায় কেন্দ্র দখল করে ভোট ডাকাতির উৎসব চলে। ভোটাররা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকলেও ব্যালট পেপার আগেই শেষ হয়ে যায়। কেন্দ্র দখল করে আধা ঘণ্টায় ১২০০ ভোট দেয়া হয়।

তিনি বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে নির্বাচন কমিশনের সদিচ্ছা নেই। তাদের সে সামর্থও নেই, যোগ্যতাও নেই। ভোট ডাকাতি, ভোট সন্ত্রাস, জাল ভোট, ভোট কেন্দ্র দখল, অবৈধ অস্ত্রের আস্ফালন ছাড়া আওয়ামী লীগের বিজয় নিশানে হাওয়া লাগে না।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার আত্মীয়স্বজন ২দিন আগে দেখা করেছেন। তারা তার অসুস্থতা দেখে বেদনাহত হয়েছেন। তার শারীরিক অসুস্থতা ক্রমাগত অবনতিশীল। সরকারের নিয়োগকৃত চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। তাকে দেয়া হয়নি অর্থোপেডিক বেড, করা হয়নি নিয়মিত ফিজিওথেরাপির ব্যবস্থা এবং উন্নত মানের এমআরআই দিয়ে পরীক্ষা করা। প্রতিরাতে জ্বরে ভুগছেন তিনি। বারবার দাবি জানানোর পরেও ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের দিয়ে খালেদার চিকিৎসা অগ্রাহ্য করা হয়েছে। চিকিৎসা নিয়ে সরকারের উদ্দেশ্যপ্রণোদিত উদাসীনতা ও উপেক্ষায় তার কোনরুপ ক্ষতি হলে সরকার কোনভাবেই রেহাই পাবে না।

বিএনপি চেয়ারপারসনের ব্যক্তিগত সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস নারায়ণগঞ্জ কারাগারে বন্দি আছেন। তিনি বর্তমানে গুরুতর অসুস্থ হলেও জেল কর্তৃপক্ষ তার চিকিৎসার ব্যবস্থা না নেয়ায় রিজভী উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তিনি অবিলম্বে শিমুল বিশ্বাসের সুচিকিৎসা ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, বিএনপি নেতা হাবিবুল ইসলাম হাবিব, তাইফুল ইসলাম টিপু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আ.লীগ বিজয়ী হলে শেখ হাসিনাই
স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের
বিস্তারিত
জাতীয় ঐক্যে জাতি কোনো সাড়া
নৌপরিবহন মন্ত্রী মো. শাহজাহান খান এমপি বলেছেন, ড. কামাল হোসেনের
বিস্তারিত
জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠনে সরকার বিচলিত:
জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠনে আঁতে ঘা লেগেছে সরকারের। এই ঐক্যফ্রন্ট গঠনের
বিস্তারিত
জাতীয় ঐক্যের নামে দেশে ষড়যন্ত্র
আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, জাতীয়
বিস্তারিত
অস্থিতিশীলতার চেষ্টা হলে কঠোর অবস্থানে
বিএনপি ও গণফোরামসহ কয়েকটি দলের সমন্বয়ে গঠিত ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট’র কর্মসূচি
বিস্তারিত
বিকল্পধারা থেকে বি. চৌধুরী-মান্নান-মাহীকে বহিষ্কার
দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ডা. এ কিউ
বিস্তারিত