রোজা অবস্থায় চোখে, নাকে ও কানে ড্রপ দেওয়া

রোজা অবস্থায় দিনের বেলায় প্রয়োজনে চোখে, নাকে ও কানে ড্রপ দেওয়া যায়। কারণ এটি পানাহারের অন্তর্ভুক্ত নয় এবং এর দ্বারা পানাহারের উদ্দেশ্যও সাধিত হয় না। সর্বোপরি এই ওষুধ সরাসরি পাকস্থলী বা মস্তিষ্কেও যায় না। যদিও কখনও কখনও নাকে বা চোখে ড্রপ দিলে মুখে তার স্বাদ অনুভূত হয়; তবু এটি অতি স্বল্প মাত্রায় হওয়ার কারণে ধর্তব্যের আওতায় পড়ে না। যেমনÑ অজু করার সময় কুলি করলে মুখের ভেতরে পানি লাগে, তাতে কিন্তু রোজার কোনো ক্ষতি হয় না। গোসল করার সময় শরীরের লোমকূপগুলো দিয়ে যে অতি অল্প পরিমাণে পানি প্রবেশ করে তাতেও রোজার ক্ষতি হয় না।

অনুরূপভাবে শরীরের যে-কোনো জায়গায় ক্ষতস্থানে বা ব্যথায় ক্রিম বা পাউডার ওষুধ লাগালেও রোজার কোনো ক্ষতি হবে না; যদিও তা রক্তের সঙ্গে মিশে যায়। (মাজমাউল ফাতাওয়া)। 


নির্মল ও পবিত্র হৃদয়ের অধিকারী
রাসুলুল্লাহ (সা.) কে বলা হলো, সবচেয়ে উত্তম মানুষ কে? তিনি
বিস্তারিত
২০১৯ সালে হজে গমনেচ্ছুরা এখনই
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে, যারা ২০১৯
বিস্তারিত
নবীজিকে নিয়ে অনুভূতি
প্রিয় পাঠক, দুই সপ্তাহ আগে আমরা রবিউল আউয়াল মাস উপলক্ষে
বিস্তারিত
রাসুল (সা.) থেকে এক বিরল
মানবতার দিশারী রাসুলে করিম (সা.) জীবনে কোনো দিন কাউকে কষ্ট
বিস্তারিত
নির্বাচনি ইশতেহারে ইসলামের প্রেরণা
ইশতেহারে বিচারবহির্ভূত হত্যাকা- বন্ধের ব্যাপারে স্পষ্ট বক্তব্য দেখতে পাওয়া যায়
বিস্তারিত
মানুষ মানুষের জন্য
শুক্রবার মানেই সাপ্তাহিক ছুটি। ছুটির দিন নানাজন নানাভাবে কাজে লাগিয়ে
বিস্তারিত