রোজা অবস্থায় চোখে, নাকে ও কানে ড্রপ দেওয়া

রোজা অবস্থায় দিনের বেলায় প্রয়োজনে চোখে, নাকে ও কানে ড্রপ দেওয়া যায়। কারণ এটি পানাহারের অন্তর্ভুক্ত নয় এবং এর দ্বারা পানাহারের উদ্দেশ্যও সাধিত হয় না। সর্বোপরি এই ওষুধ সরাসরি পাকস্থলী বা মস্তিষ্কেও যায় না। যদিও কখনও কখনও নাকে বা চোখে ড্রপ দিলে মুখে তার স্বাদ অনুভূত হয়; তবু এটি অতি স্বল্প মাত্রায় হওয়ার কারণে ধর্তব্যের আওতায় পড়ে না। যেমনÑ অজু করার সময় কুলি করলে মুখের ভেতরে পানি লাগে, তাতে কিন্তু রোজার কোনো ক্ষতি হয় না। গোসল করার সময় শরীরের লোমকূপগুলো দিয়ে যে অতি অল্প পরিমাণে পানি প্রবেশ করে তাতেও রোজার ক্ষতি হয় না।

অনুরূপভাবে শরীরের যে-কোনো জায়গায় ক্ষতস্থানে বা ব্যথায় ক্রিম বা পাউডার ওষুধ লাগালেও রোজার কোনো ক্ষতি হবে না; যদিও তা রক্তের সঙ্গে মিশে যায়। (মাজমাউল ফাতাওয়া)। 


ইসলামে নারীর অর্থনৈতিক অধিকার
ইসলামের আগমনের আগে গোটা পৃথিবী নারী জাতিকে অপ্রয়োজনীয় মনে করে
বিস্তারিত
বাইয়ে ঈনা ও প্রচলিত সমিতি
‘বাইয়ে ঈনা’ শব্দটির অর্থ হলো বাকি। বাইয়ে ঈনা মূলত দুই
বিস্তারিত
দেনমোহর নারীর অধিকার
দ্বিতীয় খলিফা হজরত ওমর (রা.) এর শাসনকাল। বিয়ের দেনমোহর নিয়ে
বিস্তারিত
আল্লাহর মাস মহররমের মর্যাদা
মহররমের রোজা শ্রেষ্ঠ নেকি ও সেরা আমল। ইমাম মুসলিম তার
বিস্তারিত
আশুরায় করণীয় বর্জনীয়
‘রাসুল (সা.) মদিনায় হিজরত করে ইহুদিদের আশুরার রোজা রাখতে দেখে
বিস্তারিত
আলেম বিদ্বেষের ভয়াবহ পরিণাম
উম্মাহর ক্রান্তিলগ্নে ঝড়ের রাতে মাঝ নদীতে একজন দক্ষ নাবিকের ভূমিকা
বিস্তারিত