জোছনা ইশারা

খিলান ছুঁয়েছে মাটি স্মৃতিগুলো ঢেকেছে শ্যাওলায়

বৃক্ষের সমূহ ছায়ায় ছেঁড়া ছেঁড়া বাতাসেরা
আঁধারের মাঝে যেন বাতিঘর
সেই সে বিরুদ্ধকাল অর্গলের খিল ভেঙে নিপুণ চাঁদেরা
জোছনা প্লাবন হয়ে কেমন অন্দরে
আর তুমি অবরোধবাসিনী দোয়াত কলম হাতে যেন স্রোতস্বিনী 
সময় কীভাবে যায়
রেললাইন-রেললাইন
তোমার দেখানো পথে ধূসর চশমা খোলে অরূপ পাইথন
তোমার ছোঁয়ায় জাগে পায়রাবন্দ, জাগে স্বপ্নসাহারা
যেখানে ভেঙেছে ঘুম যেই ঘরে
যতই জমুক ছায়া যতই ডুবাক ঠোঁট আধোশ্যাওলা
যতই বিলীন তার মেঘের খিলান
তুমি আছ জেগে আছ
তোমার চন্দ্রযানে শুধু সেই জোছনা ইশারা।


রুদ্রর কবিতা উচ্চারণ থেকে কথনে
রুদ্রর বহির্মুখী চেতনারাশির ওপর তার ভাবকল্প ও সংরাগবহুলতার তোড় আছড়ে
বিস্তারিত
আলো জেলে রাখি কবিতার খাতায়
কী নীরব রাত! একা একা বসে লিখছি। লেখার মাঝে দুঃখগুলো
বিস্তারিত
কতিপয় বিচ্ছিন্ন মুহূর্তের টীকা
  ১. নিরন্তর শুষ্কতার বশে আমি এক মরুকাঠ; অথচ ঠান্ডাজলপূর্ণ কিছু
বিস্তারিত
রৈখিক রক্তে হিজলফুল
বৃষ্টি হৃদয় উঠোন ভিজিয়ে যায় বিপ্রতীপ বিভাবন আঁধারের ক্লান্তিলগ্নে চোখের
বিস্তারিত
অপারগতা
না তুষার ঝড় না মাইনাস ফোর্টি শীতের রাত তো, বুড়োটা কিছুক্ষণ
বিস্তারিত
যন্ত্রণার দীর্ঘশ্বাস
  অলীক স্বপ্ন, অসীম দহন, সমুখের হিসাব নিকাশ প্রদীপের শিখা ছিল
বিস্তারিত