সবুজ দূর্বাচ্ছাদিত প্রশস্ত তটভূমি

কবিতার বই ‘তথ্যসূত্র পেরুলেই সরোবর’ পড়ার পর ‘ভোলগা থেকে গঙ্গা’  বইয়ের কথা মনে পড়ে। ‘সরোবরের ধার ঘেঁষে সবুজ দূর্বাচ্ছাদিত প্রশস্ত তটভূমি। এর ওপর কোথাও গোলাপ, জুঁই, বেল ইত্যাদি ফুলের কেয়ারি, আবার কোথাও তমাল, বকুল, অশোক বৃক্ষের ছায়া, আবার কোথাওবা লতাগুল্মে ঘেরা কুমার-কুমারীদের ক্রীড়াক্ষেত্র। উদ্যান মধ্যে মাটি, পাথর আর সবুজে আচ্ছাদিত কয়েকটি মনোরম ক্রীড়াপাহাড়। উদ্যানের কোনো কোনো জায়গায় ফোয়ারা থেকে ঝরনাধারায় জল উৎসারিত হচ্ছে।’ ওবায়েদ আকাশের সরোবরেও আছে গোলাপ, জুঁই, বকুল, অশোক, কখনওবা গাছ, মাটি, পাথর, ঝরনার জল। যেমন ‘চলো গাছে উঠে ভূদৃশ্য ছাড়িয়ে লিখি/পূর্বাপর অবিশ^াস্য মেঘে-পাওয়া জলের ঘটনাবলি/লিখি অঝর বর্ষণের দিনে ছায়াময় হৃদয়ক্ষরিত/ অসহ বেদনাবিধুরতা’ (অনুনয়হীন, পৃষ্ঠা ১৩); অথবা ‘যারা আমার প্রতিদিনের মধ্যবিত্ত খাদ্যাভ্যাসে/ঢ্যাপের বিচি, কলার মোচা, লাউয়ের পাতা/সংযোজন করেছিল/তাদের ঘরের রসের হাঁড়ি, গোলাপ বাগান থেকে/কী যেন নেই কী যেন নেই/রব উঠে আসে’ (কী যেন নেই, পৃষ্ঠা ৭১)। এভাবে শব্দের জমাট বুননে তিনি যে জাল বুনেছেন প্রতিটি কবিতায়, প্রতিটি পঙ্ক্তিতে তা তার পরিশ্রমলব্ধ ফসলের অন্ন।

বইটিতে স্থান পেয়েছে ৭১টি কবিতা। বইটি এবছর প্রকাশ করেছে মাওলা ব্রাদার্স। প্রচ্ছদ এঁকেছেন শতাব্দী জাহিদ। দাম : ১৬০ টাকা। হ


রুদ্রর কবিতা উচ্চারণ থেকে কথনে
রুদ্রর বহির্মুখী চেতনারাশির ওপর তার ভাবকল্প ও সংরাগবহুলতার তোড় আছড়ে
বিস্তারিত
আলো জেলে রাখি কবিতার খাতায়
কী নীরব রাত! একা একা বসে লিখছি। লেখার মাঝে দুঃখগুলো
বিস্তারিত
কতিপয় বিচ্ছিন্ন মুহূর্তের টীকা
  ১. নিরন্তর শুষ্কতার বশে আমি এক মরুকাঠ; অথচ ঠান্ডাজলপূর্ণ কিছু
বিস্তারিত
রৈখিক রক্তে হিজলফুল
বৃষ্টি হৃদয় উঠোন ভিজিয়ে যায় বিপ্রতীপ বিভাবন আঁধারের ক্লান্তিলগ্নে চোখের
বিস্তারিত
অপারগতা
না তুষার ঝড় না মাইনাস ফোর্টি শীতের রাত তো, বুড়োটা কিছুক্ষণ
বিস্তারিত
যন্ত্রণার দীর্ঘশ্বাস
  অলীক স্বপ্ন, অসীম দহন, সমুখের হিসাব নিকাশ প্রদীপের শিখা ছিল
বিস্তারিত