যেসব খাবারে দূর হয় ত্বকের রোদে পোড়া দাগ

গরমের তীব্রতা সেই সঙ্গে রোদের তেজ দুটোই বাড়ছে পাল্লা দিয়ে। নেহাত প্রয়োজন না হলে গ্রীষ্মের এই খরতাপে কেউ বেরুতে রাজি হচ্ছে না। তবে দৈনন্দিন বিভিন্ন কাজে যাদের বাইরে বেরুতে হয়, তাদের তো আর বসে থাকার উপায় নেই। আর এই তাপে ত্বকের তো বারোটা বেজে সারা। সারাদিনের পরিশ্রম শেষে আর ত্বকের চর্চার সময় কই? তবে যারা ত্বকের পরিচর্চায় আলাদা করে সময় বের করতে পারেন না, তারা দৈনন্দিন বিভিন্ন খাবারের মধ্যেই খুঁজে নিতে পারেন প্রতিরোধ ব্যবস্থা। ত্বকের রোদে পোড়া ভাব দূর করতে দারুণ কার্যকরী কিছু খাবারের তালিকা দেয়া হলো-
গ্রিন টি: গ্রিন টিতে রয়েছে এমন উপাদান যা সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে। এর মধ্যে রয়েছে ট্যানিক অ্যাসিড যা রোদে পোড়া ভাবকে কমিয়ে দেয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, নিয়মিত গ্রিন টি খেলে রোদে পোড়া ভাব কম হয়।
আলু: সূর্যের ক্ষতিকর আলো থেকে ত্বককে যথাযথ ভাবে রক্ষা করে আলু। আলুর রস পোড়া ত্বকে মাখলে কালো ভাব উঠে যাবে। অথবা নিয়মিত মাখলে রোদে ঘুরলেও ত্বক সহজে পুড়বে না।
বেদানা: ত্বককে রোদের হাত থেকে রক্ষা করা হোক বা বয়সের ছাপ না পড়তে দেয়া, সবক্ষেত্রেই কার্যকর ভূমিকা নেয় বেদানা। পোড়া ত্বককে সারিয়ে ফেলা বা নতুন কোষ তৈরিতেও সাহায্য করে এই ফল।
স্ট্রবেরি: স্ট্রবেরি খেলে ত্বকের স্বাভাবিক ঔজ্জ্বল্য যেমন অক্ষুণ্ণ থাকে, তেমনই রোদের হাত থেকে বাঁচার ক্ষমতা তৈরি হয়। যেসকল ফলে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে, সেগুলো খেলে ত্বকের স্বাভাবিক প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়।
শশা: শশা খেয়ে বা মুখে মেখে দুভাবেই ত্বককে রোদে পোড়ার হাত থেকে বাঁচানো যায়।
পেয়ারা: পেয়েরাতে রয়েছে নানা উপাদান যা ত্বকের জন্য উপকারী। একইসঙ্গে ত্বকের ক্যানসার আটকাতেও এর জুড়ি নেই। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস ও ভিটামিন সি যা ত্বককে পোড়ার হাত থেকে রক্ষা করে।

 


বাসর রাতে স্ত্রীর কাছে কী
বিয়ের প্রথম রাত, অর্থাৎ ফুলশয্যার রাত হচ্ছে যে কোনো দম্পতির
বিস্তারিত
আত্মীয়ের মধ্যে বিয়ের কারণে যে
নিকট আত্মীয়ের সঙ্গে বিয়ের কারণে জন্ম নেয়া শিশু আক্রান্ত হচ্ছে
বিস্তারিত
ঘুমের মধ্যে মৃত্যু হতে পারে
জন্ম নিলে মারা যেতেই হবে। এই বাস্তবতা থেকে বের হওয়ার
বিস্তারিত
অতিরিক্ত সেলফি পোস্ট ভালো নাকি
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক বা ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে শুধুই সেলফি!তবে অতিরিক্ত সেলফি
বিস্তারিত
৯ ঘণ্টার বেশি বসে কাজ
টানা অথবা বসে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাজ করে যাচ্ছেন। কিন্তু
বিস্তারিত
জেনে নিন যেসব কারণে সন্তান
স্পার্ম কাউন্ট কম হওয়ায় বাবা-মা হওয়ার স্বাদ পান না অনেক
বিস্তারিত