দরদ, বড় হোস না বাবা


 

কুটুমের নিয়মাবলির চতুষ্কোণ বেষ্টনীতে
মনকে একটা ছদ্মবেশের দীর্ঘ তালিম মদের গ্লাসে,
শুকনো পাতায় মুড়িয়ে দরদের পাখোয়াজে বেড়ে ওঠা বাড়ি
বস্তুগত উপস্থিতি কিছু ভয়ংকর দৃশ্যাবলি
ছড়িয়ে ছিটিয়ে অমানিশার নামতায় অপেক্ষাস্নাত।

যেন আমি নেই বলেই সিলিংজুড়ে জলধি-বাতাস
জড়িয়ে ধরেছে লম্বা চুলের ছায়ায় সস্তায় লিখলে আমার অনুপস্থিতিতে অন্য শরীর

আমার না থাকা রংগুলো বেশ নন্দন কম্পোজিশনে
দরদের আঁকার দেয়ালে ঝুলছে
পরিচিত সম্পর্কগুলো দার্জিলিংয়ের হাইওয়ের দুপাশের
হরিৎ মাঠের মতো সাদা।

আমার চোখ সামলাতে পারে না এসব
পালানোর প্রতিশব্দে মধ্য আকর্ষণের যাত্রায় সিঁড়ি বেয়ে উঠি ফুটপাতে

কত সব করবার না করবার মধ্য দিয়ে
ঘামের স্পর্শে ভেজা মাথার ক্যাপটা এপাশ-ওপাশ করি
দরদও কোলে উঠে এভাবেই মাতে, আমার ক্যাপের গুহায়, 
অল্প চুলের খেলনায়।


পাঠক কমছে; কিন্তু সেটা কোনো
দুই বাংলার জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়। অন্যদিকে বাংলাদেশের জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক
বিস্তারিত
মনীষা কৈরালা আমি ক্যান্সারের প্রতি কৃতজ্ঞ,
ঢাকা লিট ফেস্টের দ্বিতীয় দিন ৯ নভেম্বরের বিশেষ চমক ছিল
বিস্তারিত
এনহেদুয়ান্নার কবিতা ভাষান্তর :
  যিশুখ্রিষ্টের জন্মের ২২৮৫ বছর আগে অর্থাৎ প্রায় সাড়ে ৪ হাজার
বিস্তারিত
উপহার
  হেমন্তের আওলা বাতাস করেছে উতলা। জোয়ার এসেছে বাউলা নদীতে, সোনালি
বিস্তারিত
সাহিত্যের বর্ণিল উৎসব
প্রথম দিন দুপুরে বাংলা একাডেমির লনে অনুষ্ঠিত হয় মিতালি বোসের
বিস্তারিত
নিদারুণ বাস্তবতার চিত্র মান্টোর মতো সাবলীলভাবে
এ উৎসবের অন্যতম আকর্ষণ ছিল ভারতের প্রখ্যাত পরিচালক নন্দিতা দাস
বিস্তারিত