বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের আদ্যোপান্ত

মহাকাশ ছুঁয়েছে বাংলাদেশের বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১। এ স্যাটেলাইটের আদ্যোপান্ত নিয়ে ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট দেখা এবং’ শিরোনামে বই লিখেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সচিব শ্যামসুন্দর সিকদার। তিনি এ প্রকল্পের কাজ সরাসরি পর্যবেক্ষণ করেছেন। ফ্রান্সের কান শহরে ফ্যাক্টরিতে একাধিকবার গিয়েছেন। এমনকি এই স্যাটেলাইট ছুঁয়ে দেখেছেনও। সম্ভবত এটিই বঙ্গবন্ধু কমিউনিউকেশন স্যাটেলাইট নিয়ে বাংলাদেশে প্রকাশিত প্রথম বই। এটি প্রকাশ করেছে য়ারোয়া বুক কর্নার। বইটিতে ১৫টি পর্ব রয়েছে। পড়ে মনে হবে পর্বগুলো প্রতিদিনের ঘটনা হিসেবে ভাগ করা। যেমন অষ্টম পর্বে এসে লেখক বলেন, ‘কান শহরে আজ তৃতীয় দিন। পূর্বপরিকল্পনামতো সকাল ১০টায় আমরা থেলাসের কন্ট্রোল সেন্টার ভিজিট করি। গতকালের মতোই আবার সেই পোশাক পরতে হয়। একই রকম নিরাপত্তাও অনুসরণ করতে হয়...’
স্যাটেলাইটের জন্য সোলার প্যানেল তৈরি। এটির তিনটি পার্ট। উৎক্ষেপণের সময় এগুলো ফোল্ডারে থাকবে। আবার যখন অরবিটে স্থাপিত হবে, তখন তিনটি পার্ট খুলে একটি হয়ে যাবে। এসব তথ্য-উপাত্ত যেমন এ বই থেকে পাওয়া যাবে, তেমনি পাওয়া যাবে ভ্রমণকাহিনির স্বাদ। এছাড়া আছে লেখকের একান্ত অনুভূতি। 
স্যাটেলাইটের গায়ে ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ লেখাটি লিখছেন প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। তার সচিত্র মুহূর্তটাও এ বইয়ে দেখতে পাওয়া যায়। এছাড়া মন কাড়ার মতো অনেক ছবির সংযোজন বইটিকে করেছে অনবদ্য। প্রচ্ছদ এঁকেছেন ঋতু চৌধুরী। দাম ৩৫০ টাকা। হ


রাজধানীর রাজহাঁস সাপ-পাখি ও ডাহর
আটটি রাজহাঁস দশ-বারো ফুট দূরে হল্লা করে ভেজা ঘাস খাচ্ছে।
বিস্তারিত
নোঙর
গভীর গহনস্রোতে চোখ রেখে বলি হাতে হাতখানি ধরোÑ এসো, ঝাঁপ দিই অতল
বিস্তারিত
মহিউদ্দিন -বিনে পয়সায় বৃষ্টি
    এসো বৃষ্টি দেখি, বিনে পয়সায় বৃষ্টি। এ শহরের বৃষ্টি বড়ই লাজুক
বিস্তারিত
টিপু সুলতান-নারকেল পাতার চশমা
      আমার একটা ভাবনা ছিল কারোর আঙ্গিনায় গাছ হই। রোদ ভাঙা সন্ধ্যেয়
বিস্তারিত
বিবর্তন
    আভিজাত্য সম্মান জাদুঘরে নির্বাসিত   আমাদের সমাজ এখন ভেড়ার বদলে  কুকুর পালনে মনোনিবেশ
বিস্তারিত
ডুডল
  দীর্ঘ বিরতির পর এই দেখলামÑ তোমার বয়সের ছাপ এসে গেছেÑ চোখের নিচে
বিস্তারিত