আমরা একটি স্বেচ্ছাচারমুক্ত বাংলাদেশ দেখতে চাই: মাহি বি. চৌধুরী

মাহি বি. চৌধুরী বলেন, আমরা একটি স্বেচ্ছাচারমুক্ত গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ দেখতে চাই। ভারসাম্যের ভিত্তিতে ঐক্য হবে। শুধু ক্ষমতার পালাবদলের জন্য ঐক্য নয়। ঐক্যের অনেক বিষয় আছে। যাদের সঙ্গে ঐক্য হবে তাদের সঙ্গে বসতে হবে। ঐক্যটা হবে বৃহত্তর। অর্থাৎ এই সরকারের বাইরে মুক্তিযুদ্ধবিরোধী শক্তি ছাড়া সবাইকে এক করতে হবে।

শুক্রবার (২০ জুলাই) রাজধানী গুলশানে এক সংবাদ সম্মেলনে মাহি বি. চৌধুরী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, জাতীয় নির্বাচনের আর বেশি বাকি নেই- এ অবস্থায় ঐক্যের ঘোষণা কবে আসতে পারে- এমন প্রশ্নের জবাবে মাহি বি চৌধুরী বলেন, সময় দিয়ে আসলে কোনো ঐক্য হয় না। ঐক্য একটা প্রক্রিয়ার বিষয়। এই ঐক্য প্রক্রিয়াটা চলবে। আমরা সবাই ঐক্যের ব্যাপারে ইতিবাচক। একটা জায়গায় আমরা একমত হয়েছি যে ভারসাম্যের ভিত্তিতে ঐক্য হতে হবে।

মাহি বি. চৌধুরী বলেন, আমরা একটি স্বেচ্ছাচারমুক্ত গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ দেখতে চাই। ভারসাম্যের ভিত্তিতে ঐক্য হবে। শুধু ক্ষমতার পালাবদলের জন্য ঐক্য নয়। ঐক্যের অনেক বিষয় আছে। যাদের সঙ্গে ঐক্য হবে তাদের সঙ্গে বসতে হবে। ঐক্যটা হবে বৃহত্তর। অর্থাৎ এই সরকারের বাইরে মুক্তিযুদ্ধবিরোধী শক্তি ছাড়া সবাইকে এক করতে হবে।

তিনি বলেন, আমরা এমন একটা জায়গায় নিয়ে যেতে চাই বাংলাদেশ বনাম সরকার। সেই জায়গায় নিতে গেলে সেরকম মানসিকতা এবং সামগ্রিক ইশতেহারের দিকে আমরা যাতে এগিয়ে যেতে পারি তাহলেই ঐক্য হবে। সময় এখনই আমরা বলতে পারব না।

বিএনপির সঙ্গে জোটবদ্ধ আন্দোলনে যাবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে মাহি বি. চৌধুরী বলেন, বৃহস্পতিবারে যুক্তফ্রন্টের বৈঠকে এ বিষয়টি আলোচনা হয়নি। এটা আমাদের এজেন্ডাই ছিল না। এ নিয়ে আমাদের মহাসচিব মেজর (অব.) মান্নানের বক্তব্যটা সঠিকভাবে উপস্থাপিত হয়নি।

তাছাড়া ১৫০টি আসনে নির্বাচন করতে হবে এমন কোনো কথা কাউকে বলিনি বলে জানিয়েছেন বিকল্পধারা বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব মাহি বি. চৌধুরী।
 
তিনি বলেন, এ ধরনের কোনো কথা বলিনি। আমি বলেছি ভারসাম্যপূর্ণ সরকার চাই। এটা নিশ্চিত করতে হবে কেউ যাতে এককভাবে ক্ষমতায় না যায়। ১৫০টি আসনে নির্বাচন করতে হবে এমন কোনো কথা কাউকে বলিনি।

তিনি বলেন, সুনির্দিষ্টভাবে একটি দলকে সমর্থন করার কোনো বিষয়ই আসেনি। কথা হচ্ছে জাতীয় বৃহত্তর ঐক্য। বর্তমান সরকার দেশে যে দুঃশাসন চলছে এই দুঃশাসনের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে। গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করতে হবে। এজন্য বর্তমান সরকারের বাইরে যতগুলো রাজনৈতিক দল আছে তাদের সবার মধ্যে একটা জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। তাহলে আমরা এই সরকারের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে পারব। গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করতে পারব। এ রকম একটা আইডিয়া নিয়েই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, আমরা বাংলাদেশের দলগুলোকে দেখেছি যে দলগুলোর ভেতরেই গণতন্ত্র নেই। সে দল ক্ষমতায় গেলে আসলে একজন ব্যক্তি ক্ষমতা যায়। একটি পরিবার ক্ষমতায় যায়। এই পরিস্থিতিতে আমাদের দেশকে উত্তরণ ঘটাতে হবে। আমরা ’৯১-এ দলের ক্ষমতা দেখেছি, ’৯৬-এ দলের ক্ষমতা দেখেছি। ২০০১ সালেও জোটের ক্ষমতা দেখেছি।

তিনি বলেন, ২০০৮-এ মহাজোটের ক্ষমতা দেখেছি। ক্ষমতায় যায় একজন ব্যক্তি, ক্ষমতায় যায় একটি পরিবার। তার থেকে দেশকে রক্ষা করতে হলে ক্ষমতায় ভারসাম্য দেখতে চাই। যাতে দেশের জনগণ ক্ষমতায় যেতে পারে। এখানে আমরা একটা ভারসাম্য চাই। এটা বিকল্পধারার কথা।

জামায়াতকে ঐক্যে রাখবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে মাহি বি. চৌধুরী বলেন, জামায়াতকে সঙ্গে নিয়ে কোনো নির্বাচনী জোটের প্রশ্নই ওঠে না।


আমি এখনও অবরুদ্ধ: মওদুদ
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ নিজেকে অবরুদ্ধ বলে
বিস্তারিত
‘নতুন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত বিএনপি-জামায়াত’
সমাজকল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন,‘বিএনপি- জামায়াত ক্ষমতার আকাঙ্খায় নতুন
বিস্তারিত
নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর অজুহাত
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল
বিস্তারিত
নির্বাচনে বিএনপিকে চায় না আওয়ামী
আওয়ামী লীগ চায় না বিএনপি নির্বাচনে আসুক- এমন মন্তব্য করেছেন
বিস্তারিত
‌‘বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে দেশ
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে বাংলাদেশ
বিস্তারিত
‘এই নির্বাচনে নয়, পরবর্তী নির্বাচনের
একাদশ নির্বাচনের আগে বিএনপির সঙ্গে সংলাপ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ
বিস্তারিত