সুফিকোষ

আবরার



‘আবরার’ আরবি শব্দ, পুংলিঙ্গ। আবরার শব্দটি বাররুন থেকে আগত। বাররুন শব্দটি বিররুন ক্রিয়াপদের বিশেষণ। বিররুন অর্থ হলো সত্য, আনুগত্য, মঙ্গল, কল্যাণ, ভালো জিনিস, উত্তম বস্তু, সৎকর্ম, অন্তর, দয়া, সম্মান, ইহসান, তাকওয়া, দুনিয়া ও আখেরাতের কল্যাণ, যোগ্যতা, যথার্থতা, মারিফাত, কবুল, গ্রহণযোগ্যতা ইত্যাদি। বাররুন অর্থ সত্যবাদী, অনুগত, মঙ্গলময়, কল্যাণকর, সৎকর্মশীল, অন্তরঙ্গ, দয়ার্দ্র, সম্মানিত, ইহসান ওয়ালা, তাকওয়াবান, যোগ্য, যথার্থ, মারিফাত লাভকারী, মাকবুল ব্যক্তি, গ্রহণযোগ্য, মহৎ, মহান, বিনিময়প্রাপ্ত, নৈকট্যপ্রাপ্ত, পুরস্কৃত ইত্যাদি। বাররুন শব্দের বহুবচন হলো আবরার। কোরআন ও হাদিসে এই শব্দের নানা ব্যবহার দেখা যায়। যেমনÑ ‘এবং আমাদিগকে আবরার (সৎকর্মপরায়ণদের) সহগামী করে মৃত্যু দিন।’ (সূরা আলে ইমরান : ১৯৩)। ‘আল্লাহর কাছে যা আছে তা আবরার (সৎকর্মপরায়ণদের) জন্য শ্রেয়।’ (সূরা আলে ইমরান : ১৯৮)। ‘আবরার (সৎকর্মশীলরা) পান করবে এমন পানীয় যার মিশ্রণ হবে কর্পূর।’ (সূরা দাহর : ৫)। ‘আবরার (পুণ্যবানরা) তো থাকবে পরম স্বাচ্ছন্দ্যে।’ (সূরা ইনফিতার : ১৩)। ‘অবশ্যই আবরার (পুণ্যবানদের) আমলনামা ইল্লিয়িনে।’ (সূরা মুতফফিফিন : ১৮)। ‘আবরার (পুণ্যবানরা) তো থাকবে পরম স্বাচ্ছন্দ্যে।’ (সূরা মুতফফিফিন : ২২)। বাররুন শব্দটি আল্লাহর সিফাত হিসেবেও ব্যবহৃত হয়েছে। যথাÑ ‘নিশ্চয়ই তিনিই তো কৃপাময় পরম দয়ালু।’ (সূরা তুর : ২৮)। 
পরিভাষায় ‘আবরার’ হলো তরিকত ও তাসাউফের সালিকিনদের সাতাশ বা ঊনত্রিশ স্তরের একটি স্তর, যা আখয়ার অপেক্ষা শ্রেয়তর এবং মাজমুআয়ে উছমানীতে বর্ণিত ইনসানের অষ্টাত্রিংশ পর্বের চতুর্দশ পর্ব। এটি বিলায়াতের বিশেষ ধাপ। এরা বিশেষ মর্যাদাসম্পন্ন এবং নৈকট্যপ্রাপ্ত ও সম্মানিত হয়ে থাকেন। সাধারণত পূতঃপবিত্র ওলিদদেরই আবরার বলা হয়; তারা দুনিয়া ও আখেরাতে সফল। 
(সূত্র : লিসানুল আরব, ইবনে মানযূর রহ., খ- : ১, পৃষ্ঠা : ৩৭০-৩৭৩, অধ্যায় : বা)।


আদর্শ শিক্ষকের দায়িত্ব ও মর্যাদা
শিক্ষকতা পেশা হলো পৃথিবীর সমুদয় পেশার মধ্যে সর্বোৎকৃষ্ট ও শ্রেষ্ঠ।
বিস্তারিত
আত্মহত্যা প্রতিরোধে ইসলাম
জাতীয় পর্যায়ে আত্মহত্যা রোধ করতে হলে অবশ্যই জাতীয় পর্যায়ে প্রত্যেকটি
বিস্তারিত
ব্রয়লার মুরগিতে সচেতনতা জরুরি
মুরগির ফার্ম এখন সারা দুনিয়ায়। এর সংখ্যা এতই বিপুল যে,
বিস্তারিত
পারিবারিক বন্ধন অটুট রাখুন
স্ত্রীর কোনো কিছু অপছন্দ হলে স্বামী ধৈর্য ধরবে। একে অপরকে
বিস্তারিত
উম্মতের শ্রেষ্ঠ আমানতদার আবু উবাইদা (রা.)
রাসুলুল্লাহ (সা.) এরশাদ করেছেন, ‘প্রত্যেক জাতির আমানতদার ব্যক্তি আছে। এই
বিস্তারিত
ঈমান ও আমলের পুরস্কার
মোমিনমাত্রই বিশ্বাস করে পরকালকে। পরকাল মানে পার্থিব জীবনান্তে যেখানে মানুষ
বিস্তারিত