হজ তথ্য কর্নার

মক্কা শরিফে অবস্থান

 

 

 

ষ বাংলাদেশ হজ মিশন : মক্কা শরিফ ও মদিনা শরিফে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশনের ঠিকানা জেনে নিন এবং তা চিনে নিন। যে কোনো সময়ে বাংলাদেশ হজ মিশনের সাহায্য আপনার প্রয়োজন হতে পারে। হজ মিশন থেকে আপনি বিনামূল্যে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও ওষুধ পেতে পারেন।

ষ বাসস্থান ও আবাসন : থাকার অসুবিধার অভিযোগ অনেক সময় শুনতে পাওয়া যায়। অস্বাস্থ্যকর কক্ষ ও অত্যধিক ভিড়ের জন্য কখনও হজযাত্রীদের কষ্ট করতে হয়।

ষ মালামাল হারানো : আপনার মালামাল বাসে উঠানো ও নামানো আপনার দায়িত্ব। কাজেই সে সম্পর্কে আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে। আপনার কোনো মাল বা কোনো প্রয়োজনীয় জিনিস হারিয়ে বা বদল হয়ে গেলে মালপত্রের বিবরণ সঙ্গে সঙ্গেই আপনার হজ এজেন্ট ও মুয়াল্লিমকে এবং বাংলাদেশ হজ মিশনকে অবশ্যই জানাবেন। সৌদি আরবে মালপত্র সাধারণত চুরি হয় না। সুতরাং অধিকাংশ ক্ষেত্রে মালপত্র খুঁজে পাওয়া যায়।

ষ টাকা-পয়সা হারানো : এ জন্য আপনাকে সবসময় সতর্ক থাকতে হবে। হজের সময় ভিড়ের মধ্যে অথবা অসতর্কভাবে বা অরক্ষিতভাবে কোথাও রাখলে আপনার টাকার থলি বা ব্যাগ হারিয়ে যেতে পারে। তাই ছোট কোনো ব্যাগ গলায় ঝুলিয়ে বুকের ওপর রেখে চলাফেরা করা সবচেয়ে নিরাপদ।

ষ যদি কোনো কারণে আপনার টাকা-পয়সা হারিয়ে যায়, তবে বাংলাদেশ হজ মিশনে যোগাযোগ করলে, তাদের ডেস্টিটিউট ফান্ড থেকে সাহায্য বা ধার পেতে পারেন।

ষ সাবধান : আপনার হাত ব্যাগে কোনো সময় বেশি টাকা, পাসপোর্ট, বিমানের টিকিট ও মূল্যবান কাগজপত্র রাখবেন না বা সঙ্গে নিয়ে ঘুরবেন না। যে কোনো সময় আপনার হাতব্যাগ হারিয়ে যেতে পারে। গলায় ঝুলানো ছোট ব্যাগে এসব রাখা অপেক্ষাকৃত নিরাপদ হবে।

ষ বাসে যাওয়া আসা : জেদ্দা থেকে বাসে মক্কা শরিফ বা মদিনা শরিফ যাওয়ার পথে হজ টার্মিনালে পাসপোর্ট এন্ট্রির জন্য বাস কিছুক্ষণ থামে। এ সময় অনেককে টয়লেট বা খাবার কেনার জন্য বাস থেকে নামতে দেখা যায়। কিন্তু তারা ফিরে এসে আর তাদের বাস খুঁজে পান না। সে কারণে বাস থেকে নামার সময় বাসের নম্বর নোট করে নিলে হারানোর ভয় কম থাকে।

ষ হারিয়ে যাওয়া : রাস্তায় বের হলেই আপনি পথ হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়তে পারেন। ভিন্ন ভাষার কারণে কারও কাছে সাহায্য চাওয়া আপনার জন্য মুশকিল হয়ে পড়বে। এ জন্য আপনাকে আগে থেকেই সাবধান থাকতে হবে। আপনি মুয়াল্লিমের ঠিকানাযুক্ত কার্ড অথবা আরবিতে ও ইংরেজিতে লিখিত আপনার ঠিকানা অবশ্যই সবসময় আপনার সঙ্গে রাখবেন।

ষ মিনা, আরাফাত ও মুজদালিফায় অনেক অভিজ্ঞ হাজী সাহেবও হারিয়ে যান বা দলছুট হয়ে সঙ্গীহারা হয়ে যান।

ষ হজের সময় প্রচ- ভিড়ের মধ্যে কাবা শরিফে যাওয়া-আসা এবং মিনা ও আরাফাতের হাজার হাজার তাঁবুর মধ্যে নিজের তাঁবু বের করা খুবই মুশকিল। তাঁবুর বাইরে এলে আর তাঁবু খুঁজে পাওয়া যায় না। সে জন্য অবশ্যই মুয়াল্লিমের মিনা ও আরাফাতের তাঁবুর ঠিকানাযুক্ত কার্ড সঙ্গে রাখবেন। মুয়াল্লিমের নাম, রাস্তার নাম এবং আশপাশের কিছু লক্ষণীয় জিনিস সবসময় খেয়াল রাখবেন। হারিয়ে গেলে জাতীয় পতাকাবাহী বাংলাদেশ মিশন খুঁজে বের করে তাদের সাহায্য চাইতে পারেন। আজকাল মক্কা ও মদিনা শরিফে বহু সংখ্যক বাঙালি ও পাকিস্তানি কর্মজীবী মানুষ পাওয়া যায়। (হলুদ বা সবুজ পোশাক পরা) এদের দেখলে চিনতে আপনার কষ্ট হবে না। হারিয়ে গেলে তাদের সাহায্য আপনি সবসময়ই নিতে পারেন। মিনা ও আরাফাতে আশপাশের মুয়াল্লিমের লোকদের কাছ থেকেও আপনার মুয়াল্লিমের নাম বা নম্বর উল্লেখ করে সাহায্য চাইতে পারেন। আর সব সময় দলবদ্ধভাবে চলাফেরা করার চেষ্টা করবেন। প্রচ- ভিড়ের মধ্যে দল থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার সম্ভাবনা থাকলে দলের কারও হাতে লম্বা লাঠির মাথায় কোনো পতাকা বা রুমাল বা কিছু ঝুলিয়ে পথ চলবেন। তাহলে দলের অন্যরা তাকে অনুসরণে করতে পারবেন। তওয়াফ, ছাফা, মারওয়া ইত্যাদি স্থানেও এভাবে চলতে পারেন।

ষ দলের মধ্যে বন্ধুবান্ধব বা আত্মীয়স্বজন থাকলে তারা একসঙ্গে থাকার চেষ্টা করবেন। বিশেষ করে স্বামী-স্ত্রী, একই পরিবার বা আত্মীয় ও মাহরামরা অবশ্যই সবসময় একত্রে থাকবেন। নিজেরা নিজেরা একত্রে থাকলে, বাকি পুরা দল হারিয়ে গেলেও কোনো অসুবিধা নেই।

ষ এ সময় আপনার সঙ্গের ব্যাগ যত হালকা হবে, তত বেশি সুবিধা হবে; আর আপনার ব্যাগ যত ভারী হবে তত বেশি অসুবিধা হবে। তাই মিনার উদ্দেশে হোটেল ত্যাগের সময় এ বিষয়টি খেয়াল রেখে ব্যাগ সাজাতে হবে। (এক্ষেত্রে পিঠে বহন করা যায়, সাকুল্যে দুই কেজির বেশি নয় এমন মজবুত ব্যাগই আদর্শ।) 


অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব ফেলছে কোরবানি
মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহা।
বিস্তারিত
অস্বচ্ছ লেনদেন এবং কোরবানি প্রসঙ্গ
বাবার হাতে ছেলে তার উপার্জনের টাকা তুলে দেবেÑ এতে আর
বিস্তারিত
জবাইসংক্রান্ত মাসআলা
মহিলার জবাই পুরুষের জবাইয়ের মতো। পুরুষের জবাইকৃত পশু যেমন হালাল,
বিস্তারিত
পশু কেনায় প্রতারণা থেকে বাঁচার
আসছে ঈদুল আজহা। এলাকায় এলাকায় বসবে পশুর হাট। মানুষ যাবে
বিস্তারিত
ইবরাহিম আদহামের জীবন কথা
ইবরাহিম আদহাম ছিলেন বলখের বাদশাহ। বলখের ভৌগলিক অবস্থান ছিল বৃহত্তর
বিস্তারিত
সুফিকোষ
আবদাল আরবি শব্দ। এটি বদল শব্দমূল থেকে গঠিত। আবদাল শব্দটি
বিস্তারিত