গরুর খামারে পলাশের দিন বদল

শিক্ষকতার পাশাপাশি বাড়তি কিছু করার ইচ্ছা থেকেই হঠাৎ শখ করে ১০টি ষাড় কিনেন বাড়িতে। পরে কেনেন একটি গাভি। সেই থেকেই দিন বদলের শুরু। একটি থেকে দুটি। দুটি থেকে এখন ছয়টি গাভি। 

সেই খামার ধীরে ধীরে বড় হয়েছে, গাভি বেড়েছে, বেড়েছে দুধের উৎপাদনও। বতমানে এ শিক্ষকের খামারে রয়েছে ১৬টি গরু। সম্প্রতি সেখান থেকে বিক্রি করেছেন ছয়টি ষাড়। 

এই খামারির নাম গোলাম মঞ্জুরুল কবীর পলাশ। বাড়ি ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার বাঘেরগাঁও গ্রামে। তিনি পাঁচবাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক। 

পরিশ্রম আর সংগ্রাম করে শুধু নিজের সংসারেই স্বচ্ছলতা আনেননি, পাশাপাশি গ্রামের অন্যদেরও গাভী পালনে উৎসাহিত করে স্বাবলম্বী হওয়ার পথ দেখিয়েছেন তিনি। তার দেখাদেখি খামারবিপ্লব ছড়িয়ে পড়েছে গফরগাঁও উপজেলার গ্রামগুলোয়।

খামার করতে প্রথমে কিছুটা সমস্যা হলেও হার মানেননি পলাশ। ধীরে ধীরে গড়ে তুলেছেন দুগ্ধ খামার। খামারের নাম ‘বাদার্স ক্যাটেল ফার্ম’। 

গফরগাঁও পৌর শহর থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে বাঘেরগাঁও গ্রাম। এ গ্রামের বাড়ির পাশেই বিশাল সেড ঘরে খামার।

পলাশ জানান, দুধেল গাভীর মধ্যে ৪টি ফ্রিজিয়ান, ২টি শংকর জাতের। ফ্রিজিয়ান জাতের গাভী ৩০ লিটার পর্যন্ত দুধ দেয়। দুগ্ধ খামারে কোনো এঁড়ে বাছুর রাখেন না তিনি। দুধ দেওয়া শেষ হলেই তা বিক্রি করে দেন। যে গাভি দিয়ে খামার শুরু করেছিলেন, সেটিও রয়েছে খামারে। 

দুধ দোহানোর পর খামারের শ্রমিকেরা তা উপজেলা সদরের বিভিন্ন হোটেলে বিক্রি করেন।প্রতিদিন ১৫০০ টাকার দুধ বিক্রি করতে পারেন বলে জানান খামারী পলাশ।

পলাশের সাফল্যে অনুপ্রাণিত হয়ে অনেকেই দুগ্ধ খামার করেছেন। প্রায় প্রতিদিনই লোকজন আসেন পলাশের কাছে খামার সম্পর্কে নানা পরামর্শ নিতে। 

গফরগাঁও উপজেলা প্রাণীসম্পদ কার্যালয়ের ভ্যাটেনারি সার্জন ডাঃ মোঃ আনিছুর রহমান জানান, শিক্ষক পলাশের খামার গড়ে তোলার মাধ্যমে এলাকার দুধ ও মাংসের চাহিদা পূরণ করছেন। তিনি নিজের ভাগ্যবদলের পাশাপাশি অন্যদের খামার গড়ার পরামর্শ দিয়ে দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে অবদান রাখছেন।


উন্নয়ন আর পরিবেশ রক্ষা, দুটি
উন্নয়ন আর পরিবেশ রক্ষা- দুটি কি একই সাথে সম্ভব? যদি
বিস্তারিত
করোনা প্রতিরোধে অন্তরের অসুখ নিরাময়
মানুষের অসুস্থতা প্রধানত দুই প্রকার, শারীরিক ও মানসিক। বিশ্বস্বাস্থ সংস্থা
বিস্তারিত
আমাদের চার পাশে হাজারো দু’পায়ের
আপনি পবিত্র রমজান মাসে কতজন লোককে সাহায্য করেছেন? একজন? দুইজন?
বিস্তারিত
সাংবাদিকতা ছাড়া কিছুতেই আর আনন্দ
বেশিরভাগ প্রতিবেদন প্রচার হবার পরে এক শ্রেণির তীর্যক তীর প্রতিহত
বিস্তারিত
প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ বর্তমান সংকট
  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ যখন উন্নতির দিকে এগিয়ে চলছিল
বিস্তারিত
করোনায় গৃহবন্দীর জবানবন্দি ও মুক্তির
কারাগারের বন্দীরাও মনে হয় সীমিত স্বাধীনতা ভোগ করতে পারে। কিন্তু
বিস্তারিত