তামাদি হয় না প্রেম

এক বর্ষায় নদীটা মরে গেল

বৃষ্টির শব্দ, মানুষের কান্না 
তার রুদ্ধ করেনি পথ
শুদ্ধ করেনি জীবন

তারপর এলো শরৎকাল
আর সে জেগে ওঠেনি

হেমন্তের ঘন কুয়াশা, শীতের রুক্ষতাও
একদিন ফুরিয়ে গেল 
তবু চোখ মেলেনি নিষ্প্রাণ নদী

গ্রীষ্মের তপ্তকালের আগুনেও যখন 
নিঃশ্বাস ছাড়েনি সে
ভাবলাম, এবারেই তাকে সৎকারে পাঠাবো

কিন্তু অদ্ভুত, আশ্চর্য! অবাক বিস্ময়!
সৌরভময় এক বসন্তের ছোঁয়ায় 
আবার সে জেগে ওঠলো
এবং পেলবস্নিগ্ধ চোখ মেলে বলে ওঠলোÑ 
দীর্ঘশ্বাসের মৃত্যু নেই, তামাদি হয় না প্রেম!


আত্মজীবনী লিখলে ঘরে ও বাইরে
ঢাকায় বাতিঘর আয়োজন করে ‘আমার জীবন আমার রচনা’ শীর্ষক আলাপচারিতা।
বিস্তারিত
যে নদীর মন বোঝে
পদ্মা মেঘনার মতো দুই ভাগ হয়ে গেছে মানুষ চলে পাশাপাশি তবুও
বিস্তারিত
সেই তুমুল অঘ্রানলোকে
সবকিছু উগরে দিয়েছে ওরা  প্রীতি ও বিচ্ছেদ, সুর ও সুরভী, রতি
বিস্তারিত
চোরাচালানি
কুয়াশায় আচ্ছন্ন প্রতিদিনের সন্ধ্যা গভীর রাতে শিয়ালের কান্না শীতের আগমনী
বিস্তারিত
অভিশাপ
অভিশাপে কপালের আধখান শেষ। ভাগ্যরা আর পাশে নেই। উড়ে গেছে
বিস্তারিত
যে বৃক্ষে বাতাস জমেনি
আমাদের দুই জোড়া হাতে যে বৃক্ষটি রোপণ করেছি। সেটি যেদিন
বিস্তারিত