বৃষ্টিময় হাতগুলো দিয়ে

জড়িয়ে ধরো, দেখবে কয়েক ফোঁটা বৃষ্টি ছুঁবে তোমাকে

কাছে যাওÑ দেখবে আঁচড় লাগা চিত্রকর্মটির গায়ে
লেগে আছে তোমার ছায়ামেঘ। উড়ে গিয়েছে যে বাষ্পÑ
সে’ও রেখে গেছে রেশ-রেণু-রঙ, আর ভালোবাসার ঘর।

সেই ছাউনিতে দাঁড়াও। দেখবে ঠিক তোমার দিকেই
ছুটে আসছে একটি ঢেউ। তাকে আঁচলে আঁকড়ে রাখো।
এই যে জমিয়ে রাখাÑ তার নামই বেঁচে থাকা, তার
নামই সংসার। যেখানে আলোর খেলা। যেখানে আঁধারই 
আরাধ্য হয়ে যায় যমুনায়; খেলে পাশা ঘোরে-মোহনায়।


আরব ছোটগল্পের রাজকুমারী
সামিরা আজ্জম ১৯২৬ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর ফিলিস্তিনের আর্কে একটি গোঁড়া
বিস্তারিত
অমায়ার আনবেশে
সাদা মুখোশে থাকতে গেলে ছুড়ে দেওয়া কালি  হয়ে যায় সার্কাসের রংমুখ, 
বিস্তারিত
শারদীয় বিকেল
ঝিরিঝিরি বাতাসের অবিরাম দোলায় মননের মুকুরে ফুটে ওঠে মুঠো মুঠো শেফালিকা
বিস্তারিত
গল্পের পটভূমি ইতিহাস ও বর্তমানের
গল্পের বই ‘দশজন দিগম্বর একজন সাধক’। লেখক শাহাব আহমেদ। বইয়ে
বিস্তারিত
ধোঁয়াশার তামাটে রঙ
দীর্ঘ অবহেলায় যদি ক্লান্ত হয়ে উঠি বিষণœ সন্ধ্যায়Ñ মনে রেখো
বিস্তারিত
নজরুলকে দেখা
আমাদের পরম সৌভাগ্য, এই উন্নত-মস্তকটি অনেক দেরিতে হলেও পৃথিবীর নজরে
বিস্তারিত